বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > বিজেপির হেভিওয়েটদের দলত্যাগের পর যোগীগড়ে ভোটের হাওয়া কোনদিকে? জবাব দিল সমীক্ষা
মায়াবতী, যোগী আদিত্যনাথ ও অখিলেশ যাদব।
মায়াবতী, যোগী আদিত্যনাথ ও অখিলেশ যাদব।

বিজেপির হেভিওয়েটদের দলত্যাগের পর যোগীগড়ে ভোটের হাওয়া কোনদিকে? জবাব দিল সমীক্ষা

  • ৭২ ঘণ্টার মধ্যে ৩ মন্ত্রী সহ মোট ৯ হেভিওয়েট ও একাধিক বিধায়কের পর পর ইস্তফায় বড় ভাঙন ধরেছে উত্তর প্রদেশের বিজেপির ক্যাম্পে।

উত্তরপ্রদেশ বিধানসভা ভোট ২০২২ -এর আগে বিজেপির পর পর মন্ত্রীদের সমাজবাদী পার্টিতে গমন কার্যত গোবলয় রাজনীতিতে নতুন দোলাচল তৈরি করেছে। এর আগে , এই হাইভোল্টেজ নির্বাচন ঘিরে একাধিক জনমত সমীক্ষা জানান দিয়েছে যে, যোগীর রথ উত্তরপ্রদেশের বুকে অপ্রতিরোধ্য। তবে ভোটের পিচ যখন প্রস্তুত ঠিক তখনই উত্তরপ্রদেশের বুকে পর পর বিজেপি নেতাদের জার্সি বদলের ট্রেন্ড দেখা যায়। স্বামীপ্রসাদ মৌর্যর পর থেকে যোগীগড়ে ৩ মন্ত্রী সহ ১৫ বিধায়ক অখিলেশের সমাজবাদী পার্টির দিকে ঝুঁকেছেন। সেই জায়গা থেকে পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে বিজেপির রাস্তা কতটা চ্যালেঞ্জিং? এছাড়া স্বামী প্রাসদদের মতো ডাকসাইটে নেতাদের শিবির বদলের পর সমাজবাদী পার্টি কতটা সুবিধাজনক জায়গায় এসেছে, তা নিয়েও রয়েছে প্রশ্ন। এবার তার উত্তর দিচ্ছে, এবিপি নিউজ ও সিভোটারের সমীক্ষা।

৭২ ঘণ্টার মধ্যে ৩ মন্ত্রী সহ মোট ৯ হেভিওয়েট ও একাধিক বিধায়কের পর পর ইস্তফায় বড় ভাঙন ধরেছে উত্তর প্রদেশের বিজেপির ক্যাম্পে। এই দলত্যাগীদের মধ্যে রয়েছেন স্বামী প্রসাদ মৌর্য ও ধরম সিং সাইনির মতো দলিত নেতারাও। উল্লেখ্য, ঠাকুরদের প্রতিনিধি হিসাবে যোগীকে উত্তর প্রদেশরে তখতে দেখে যখন সেখানের ব্রাহ্মণ সম্প্রদায়ের মনক্ষুণ্ণভাব উঠে আসে, তখন ভোটব্যাঙ্কে ভারসাম্য রাখতে বিজেপি শিবির ভরসা রেখেছিল দলিত ভোটব্যাঙ্কে। বে স্বামী প্রসাদদের মতো নেতারা পদ্মক্যাম্প ছাড়তেই সেই ভোটব্যাঙ্কে কতটা প্রভাব পড়বে,তা নিয়ে রয়েছে জল্পনা। এছাড়াও যোগীকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দেওয়া সমাজবাদী পার্টির অখিলেশ শিবির এই জায়গা থেকে কতটা অ্যাডভান্টেজ পাচ্ছে , তার দিকেও জল মাপছে রাজনৈতিক শিবিরগুলি। দেখে নেওয়া যাক এবিপি-সিভোটারের সমীক্ষা কী বলছে?

১৩ জানুয়ারির এই জনমত সমীক্ষায় ৫০ শতাংশ মানুষ মনে করেন উত্তরপ্রদেশের তখতে ফের আসবে বিজেপির সরকার। জনমত সমীক্ষা বলছে, ২৮ শতাংশ মানুষের দাবি, উত্তরপ্রদেশে সমাজবাদী পার্টি সরকার গড়বে। ৯ শতাংশের সমর্থন রয়েছে মায়াবতীর বহুজন সমাজবাদী পার্টির প্রতি। ৬ শতাংশ মনে করছে কংগ্রেস এবার উত্তরপ্রদেশের সরকার গড়তে পারে। তবে সমীক্ষায় সবচেয়ে আকর্ষণীয় দিক উঠে এসেছে ২ শতাংশের জনমত নিয়ে। এঁরা বলছেন উত্তরপ্রদেশ বিধানসভা নির্বাচন ২০২২ এবার ত্রিশঙ্কু হবে।

উল্লেখ্য, এই সমীক্ষা ঘিরে আরও একটি বড় দিক উঠে আসছে। এর আগে, ২০২১ সালের ৩১ ডিসেম্বরের জনমত সমীক্ষায় দেখা গিয়েছিল যে উত্তরপ্রদেশে বিজেপির পক্ষে ৪৮ শতাংশ মত প্রকাশ করেন। আর সেই সময়ে অখিলেশদের পক্ষে ৩১ শতাংশ মানুষ ছিলেন। তবে, এরপর উত্তরপ্রদেশের গঙ্গা দিয়ে বয়ে গিয়েছে অনেক জল। বিজেপির পর পর হেভিওয়েট দল ছেড়েছেন। তবে, ১৩ জানুয়ারির সমীক্ষায় দেখা যাচ্ছে, ৫০ শতাংশ মানুষ মনে করছেন বিজেপি সরকার গড়বে। যে সংখ্যাটা আগে ছিল ৪৮ শতাংশ। সেখানে, সমাজবাদী পার্টির পক্ষে রায় দিয়েছেন ২৮ শতাংশ মানুষ, আগের সমীক্ষায় যে সংখ্যাটা ছিল ৩১ শতাংশ। উল্লেখ্য়, ২০২১ সালের পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা ভোটেও দলবদলের রাজনীতি দেখা গিয়েছে। সেই সময় বহু তৃণমূল হেভিওয়েট দল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেন। যদিও , নির্বাচনের শেষে মমতা শিবিরের পক্ষেই যায় জনমত। তবে সেই ফর্মুলা উত্তরপ্রদেশের বুকেও দেখা যাবে কি না, তা নিয়ে রয়েছে জল্পনা। যার উত্তর মিলতে চলেছে ১০ মার্চ বিধানসভা ভোটের ফলাফলে।

বন্ধ করুন