বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Urine Therapy: ‘চিরযৌবনের রহস্য’, মোরারজির পথে হেঁটে ৮ বছর ধরে নিজের মূত্রপান ব্রিটিশ যুবকের!
হ্যারি মাতাদিন (ছবি - সোশ্যাল মিডিয়া)

Urine Therapy: ‘চিরযৌবনের রহস্য’, মোরারজির পথে হেঁটে ৮ বছর ধরে নিজের মূত্রপান ব্রিটিশ যুবকের!

  • Urine Therapy: ইংল্যান্ডের এক ৩৪ বছর বয়সি যুবক বিগত আট বছর ধরে নিজেরই মূত্র পান করে এসেছেন। এবং এতে তাঁর বিষণ্ণতা দূর হয়েছে বলে দাবি করেছেন সেই ব্যক্তি। উল্লেখ্য, ভারতের পঞ্চম প্রধানমন্ত্রী মোরারজি দেশাই রোগ 'প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে' দীর্ঘদিন 'ইউরিন থেরাপি' নিয়েছেন।

‘ওষুধ’ হিসেবে ভারতে অনেকেই গোমূত্র পান করেন। এবার ‘ওষুধ’ হিসেবে নিজেরই মূত্র পান করা এক ব্যক্তির বিষয়ে জানা গেল। সম্প্রতি এই ব্যক্তির অদ্ভূত দাবি সামনে এসেছে। নিউ ইয়র্ক পোস্টের এক প্রতিবেদনে দাবি কার হয়েছে, ইংল্যান্ডের এক ৩৪ বছর বয়সি যুবক বিগত আট বছর ধরে নিজেরই মূত্র পান করে এসেছেন। এবং এতে তাঁর বিষণ্ণতা দূর হয়েছে বলে দাবি করেছেন সেই ব্যক্তি। উল্লেখ্য, ভারতের পঞ্চম প্রধানমন্ত্রী মোরারজি দেশাই রোগ 'প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে' দীর্ঘদিন 'ইউরিন থেরাপি' নিয়েছেন। ১৯৭৮ সালে মার্কিন টেলিভিশন সিবিএস নিউজের সাক্ষাত্কাহর সে কথা স্বীকার করেছিলেন তিনি।

মার্কিন সংবাদপত্রে প্রকাশিত রিপোর্ট অনুযায়ী, হ্যাম্পশায়ারের বাসিন্দা হ্যারি মাতাদিন ২০১৬ সালে নিজের প্রস্রাব খাওয়া শুরু করেছিলেন। সেই সময় তিনি নিজের মানসিক সমস্যাগুলি নিরাময়ের জন্য ‘মরিয়া’ হয়ে উঠেছিলেন। তিনি প্রকাশ করেছেন যে তিনি নিজের বিষণ্ণতা কাটাতে 'প্রস্রাব থেরাপি' শুরু করেন। এর পরেই নাকি তিনি শান্তি অনুভব করেছিলেন। যারপর থেকে তিনি ধারাবাহিক ভাবে বিগত আটবছর ধরে নিজের মূত্র পান করে এসেছেন।

আরও পড়ুন: কোভিড টিকার বদলে দেওয়া হল রেবিস ইনজেকশন! দায়িত্বহীনতার চরম নিদর্শন যোগী রাজ্যে

রিপোর্ট অনুযায়ী হ্যারি রোজ ২০০ মিলিলিটার স্বমূত্র পান করেন। হ্যারি বলেন, ‘আমি যখন নিজের প্রস্রাব নিজে পান করতে শুরু করি তখন আমি ভাবতেও পারিনি যে এটা কতটা কার্যকর হবে। আমার কল্পনার বাইরে ছিল পুরো বিষয়টি। আমি প্রস্রাব পান করার মুহূর্ত থেকে বুঝতে পারি যে এটি আমার মস্তিষ্ককে জাগিয়ে তুলছে এবং আমার বিষণ্নতা দূর করছে। আমি শান্তি অনুভব করতে করেছি। আমি ভাবলাম, এটা তো বিনামূল্যেই আমি পেয়ে যাব এবং এতে করে নিজেকে খুশি রাখতে পারব আমি।’ পাশাপাশি হ্যারি দাবি করেন, স্বমূত্র পান করার পর থেকে তাঁর ত্বক আরও উজ্জ্বল হয়েছে। তিনি চিরযৌবন অনুভব করছেন।

 

বন্ধ করুন