Covid-19 সংক্রমণের জেরে চিন ভ্রমণের উপরে নিষেধাজ্ঞা চাপিয়ে ঠিক করেছেন বলে জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। ছবি সৌজন্যে রয়টার্স। (REUTERS)
Covid-19 সংক্রমণের জেরে চিন ভ্রমণের উপরে নিষেধাজ্ঞা চাপিয়ে ঠিক করেছেন বলে জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। ছবি সৌজন্যে রয়টার্স। (REUTERS)

করোনা-কে ‘চিনা ভাইরাস’ বলে ভুল করিনি, দাবি ট্রাম্পের

তর্ক না করে দেখিয়ে দিয়েছি, কোথা থেকে সংক্রমণ শুরু হয়েছিল। ওটা তো চিন থেকেই এসেছে। তাই আমার মনে হয়, কথাটা যথাযথ।

নোভেল করোনাভাইরাসকে ‘চিনা ভাইরাস’ হিসেবে চিহ্নিত করার পক্ষে যুক্তি দিলেন আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। সেই সঙ্গে উড়িয়ে দিলেন বেজিংয়ের অভিযোগ।

মঙ্গলবার হোয়াইটহাউসে সাংবাদিক বৈঠকে ট্রাম্প জানান, ‘চিন মিথ্যা প্রচার করেছিল যে আমাদের সেনাবাহিনী তাদের দেশে করোনাভাইরাস ছড়িয়েছে। তর্ক না করে দেখিয়ে দিয়েছি, কোথা থেকে সংক্রমণ শুরু হয়েছিল। ওটা তো চিন থেকেই এসেছে। তাই আমার মনে হয়, কথাটা যথাযথ।’

ট্রাম্প জোর দিয়ে বলেন, করোনাকে ‘চিনা ভাইরাস’ বলায় চিনকে আদৌ কটাক্ষ করা হয়নি। তাঁর যুক্তি, ‘আমার তা মনে হয় না। আমার মনে হয় আমাদের সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ তোলাটাই বরং কটাক্ষ করা।’

Covid-19 সংক্রমণের জেরে চিন ভ্রমণের উপরে নিষেধাজ্ঞা চাপিয়েও সঠিক কাজ করেছেন বলে এ দিন জানান মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

তবে করোনাভাইরাসের কারণে চিনের সঙ্গে আমেরিকার বাণিজ্য সম্পর্ক নষ্ট হবে বলে মনে করেন না ট্রাম্প। তাঁর মতে, মার্কিন পণ্যের প্রয়োজন রয়েছে বলেই তা রফতানিতে বাধা দেবে না বেজিং।

তবে চিন থেকে এই মুহূর্তে চিকিত্সা সরঞ্জাম-সহ বেশ কিছু পণ্য আমেরিকায় এলেও খুব তাড়াতাড়ি তার বিকল্প খুঁজে নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন আমেরিকার প্রেসিডেন্ট।

বন্ধ করুন