বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > US Primaries- ট্রাম্পের বিরুদ্ধে প্রার্থী হওয়ার লড়াইয়ে এগিয়ে গেলেন বিডেন, ব্যাকফুটে বার্নি
জো বিডেন  (REUTERS)
জো বিডেন (REUTERS)

US Primaries- ট্রাম্পের বিরুদ্ধে প্রার্থী হওয়ার লড়াইয়ে এগিয়ে গেলেন বিডেন, ব্যাকফুটে বার্নি

১৪টি রাজ্যের মধ্যে নয়টিতে জিতেছেন জো বিডেন।

রিপাবলিকান মার্কিন রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ডেমোক্র্যাটদের কে প্রার্থী হবেন? সেটি নির্ণয় করার জন্য নিজেদের মধ্যে প্রাইমারিতে লড়ছেন একাধিক প্রত্যাশী। গতকাল Super Tuesday-তে সেই লড়াইয়ে অনেকটা এগিয়ে গেলেন প্রাক্তন মার্কিন উপ রাষ্ট্রপতি জো বিডেন। চোদ্দটি রাজ্যের মধ্যে নটিতে জিতেছেন তিনি। এগিয়ে আছেন একটিতে। অপ্রত্যাশিত ভাবে খারাপ ফলাফল করলেন বার্নি স্যান্ডার্স। জুলাই মাসের মধ্যে প্রাইমারির শেষে চূড়ান্ত প্রার্থী ঠিক করে ফেলবে ডেমোক্র্যাটরা। নভেম্বরে হবে রাষ্ট্রপতি নির্বাচন।

প্রথম কয়েকটা প্রাইমারিতে খারাপ ফলাফল করেছিলেন ওবামার প্রিয় পাত্র জো। অনেকের তখন মনে হচ্ছিল, হয়তো দ্রুতই প্রার্থীদের ভিঁড়ে হারিয়ে যাবেন তিনি। বার্নির তারা তখন তুঙ্গে। কিন্তু গত সপ্তাহে নর্থ ক্যারোলিনা থেকেই ঘুরল মোড়। দারুন জয়ের পর লড়াইয়ে ফিরলেন বিডেন। তারপরেই বেশ কিছু শীর্ষস্থানীয় ডেমোক্র্যাট নেতা বললেন বিডেন কেই তাঁরা দেখতে চান ট্রাম্পের প্রতিদ্বন্দ্বী হিসাবে। কানাঘুষো পর্দার আড়ালে ওবামাই এদের বিডেনকে সমর্থন করতে বলেছিলেন। সে যাই হোক, সুপার টুইসডেতে ভোট বাক্স খুলতেই ম্যাজিক।

একের পর এক রাজ্যে এগিয়ে বিডেন। অনেক জায়গাতে প্রচার না করেই কোন এক জাদুবলে জিতলেন তিনি! আসলে সোশ্যালিস্ট বার্নি স্যান্ডার্সের নীতির সঙ্গে অনেক ডেমোক্র্যাট ভোটাররাই নিজেদের মেলাতে পারছেন না। মধ্যপন্থায় যারা বিশ্বাস করেন, রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে জেতার জন্য তাদের ভোটটাও দরকার। শুধু উদারপন্থীদের ভোটে জয় আসবে না। এই কারণেই হয়তো স্যান্ডার্সকে টেক্কা মেরে দিলেন বিডেন।

একই সঙ্গে আফ্রিকান-অ্যামেরিকানদের মধ্যে প্রচন্ড জনপ্রিয় তিনি। সেখানেও অনেকে দেখছেন ওবামার ছায়া। মহিলাদের মধ্যেও অনেকটা এগিয়ে জো বিডেন। ডেমোক্যাট পার্টির যেটা এসট্যাবলিসমেন্ট-তাদের পছন্দ জো বিডেন। আমেরিকায় যে শ্রমজীবি মানুষরা আছে গতবার তারা ট্রাম্পকে ভোট দিয়েছিলেন। সেটা ফিরিয়ে আনার জন্য বিডেনই বাজি বলে মনে করছেন তাঁরা।

তবে হারের পরেও শেষ পর্যন্ত তিনিই জিতবেন বলে আশা করছেন স্যান্ডার্স। অন্যদিকে বিডেনের জয়ের পর এটি আদর্শ ঝড় বলে টুইটারে প্রতিক্রিয়া দিয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। সবাই মিলে ফের বার্নিকে হারিয়েছে, এতেই খুশি তিনি।

আরও দুইজন প্রার্থী লড়াইয়ে আছেন, কোটিপতি ব্যবসায়ী মাইকেল ব্লুমবার্গ ও ম্যাসাচুসেটসের সেনেটর এলিজাবেথ ওয়ারেন। নিজের রাজ্যেই তৃতীয় হয়েছেন ওয়ারেন। কেবল একটি রাজ্যে জিতেছেন ব্লুমবার্গ।

এদিন সবচেয়ে বড় চমক, অল্প ব্যবধানে টেক্সাস জিতলেন বিডেন। এছাড়াও তিনি জেতেন ম্যাসাচুসেটস, মিনেসোটা, ওকালাহোমা ও নিজের গড় দক্ষিণের পাঁচ রাজ্যে। মেইনেও এগিয়ে আছেন তিনি।

স্যান্ডার্স শুধু জিতেছেন ক্যালিফোর্নিয়া, ভারমোন্ট, উটা ও কলোরাডো। তাঁর জয়ের ব্যবধানও তেমন নয়। যেই শতাংশ ভোট পাবেন প্রার্থীরা, সেই অনুযায়ী ডেলিগেট ভাগ হবে। তাই অনেক রাজ্যে ব্যবধান কমিয়েও নিজের রাস্তা প্রশস্ত করে রাখলেন বিডেন। এখনও অনেক রাজ্যে প্রাইমারি হওয়া বাকি। তবে আজকের পরে মোমেন্টাম নিশ্চিত ভাবেই বিডেনের সঙ্গে।





বন্ধ করুন