বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > পাকিস্তানের মাটিতে মার্কিন সেনা বেশিদিন থাকবে না, দাবি পাক মন্ত্রীর
মার্কিন সেনা চলে যাওয়ার পর কাবুল বিমানবন্দরে পাহারায় তালিবান REUTERS (ফাইল ছবি)
মার্কিন সেনা চলে যাওয়ার পর কাবুল বিমানবন্দরে পাহারায় তালিবান REUTERS (ফাইল ছবি)

পাকিস্তানের মাটিতে মার্কিন সেনা বেশিদিন থাকবে না, দাবি পাক মন্ত্রীর

  • আফগানিস্তানের শান্তি ও স্থিতাবস্থার সঙ্গে পাকিস্তানের শান্তি জড়িয়ে রয়েছে। দাবি পাক মন্ত্রীর।

জামায়েত- উলেইমা- ই- ইসলামের প্রধান মৌলনা ফসলুর রহমান আগেই দাবি করেছিলেন ইসলামাবাদে মার্কিন সেনাদের থাকার জন্য পাকিস্তান হোটেল বুক করছে। পাকিস্তানে ফিরে আসছে মুসারফ জমানা। পাশাপাশি সোশ্য়াল মিডিয়াতেও এনিয়ে নানা ভিডিও ঘুরছে। তবে এসব সম্ভাবনা উড়িয়ে দিয়েছেন পাক মন্ত্রী শেখ রশিদ আহমেদ। তিনি জানিয়েছেন, স্বল্প সময়ের জন্য তারা পাকিস্তানে এসেছেন। তাদের জন্য তিন সপ্তাহ থেকে এক মাসের জন্য ট্রানসিট ভিসার ব্যবস্থা করা হয়েছে। 

পাশাপাশি পাক মন্ত্রীর দাবি, ‘আফগানিস্তানের শান্তি প্রক্রিয়ার জন্য পাকিস্তানের প্রচুর ভূমিকা রয়েছে। এখনও সেই কর্তব্য পালন করে যাচ্ছে। পাকিস্তানের মতো এমন কোনও দেশ নেই যারা আফগানিস্তানের শান্তির জন্য এত কিছু করেছে। আফগানিস্তানের শান্তি ও স্থিতাবস্থার সঙ্গে পাকিস্তানের শান্তি জড়িয়ে রয়েছে।’ দাবি পাক মন্ত্রীর।

পাশাাপাশি তিনি জানিয়েছেন, নিষিদ্ধ সংগঠন তেহেরিক-ই- তালিবান আফগানিস্তানের মাটিকে ব্যবহার করবে না। এই প্রতিশ্রুতি দিয়েছে তালিবান। তাঁর দাবি, সমস্ত পাকিস্তানিকেই আফগানিস্তান থেকে সরানো হয়েছে। তবে এখনও ৩০-৪০ জন পাকিস্তানি এখনও সেখানে থেকে গিয়েছে। এদিকে কাবুল বিস্ফোরণের পর প্রচুর মানুষ পাকিস্তানের মাটিতে চলে আসতে পারে বলেও আশঙ্কা করা হচ্ছে। এর সঙ্গেই তাঁর দাবি আফগানিস্তান থেকে যারা আসছেন তাদের বিনামূল্যে ভিসা দেওয়া হচ্ছে। তাদেরকে রিফিউজি স্ট্যাটাসও দেওয়া হচ্ছে না। জানিয়েছেন পাক মন্ত্রী।

 

জামায়েত- উলেইমা- ই- ইসলামের প্রধান মৌলনা ফসলুর রহমান আগেই দাবি করেছিলেন ইসলামাবাদে মার্কিন সেনাদের থাকার জন্য পাকিস্তান হোটেল বুক করছে। পাকিস্তানে ফিরে আসছে মুসারফ জমানা। পাশাপাশি সোশ্য়াল মিডিয়াতেও এনিয়ে নানা ভিডিও ঘুরছে। তবে এসব সম্ভাবনা উড়িয়ে দিয়েছেন পাক মন্ত্রী শেখ রশিদ আহমেদ। তিনি জানিয়েছেন, স্বল্প সময়ের জন্য তারা পাকিস্তানে এসেছেন। তাদের জন্য তিন সপ্তাহ থেকে এক মাসের জন্য ট্রানসিট ভিসার ব্যবস্থা করা হয়েছে। 

পাশাপাশি পাক মন্ত্রীর দাবি, আফগানিস্তানের শান্তি প্রক্রিয়ার জন্য পাকিস্তানের প্রচুর ভূমিকা রয়েছে। এখনও সেই কর্তব্য পালন করে যাচ্ছে। পাকিস্তানের মতো এমন কোনও দেশ নেই যারা আফগানিস্তানের শান্তির জন্য এত কিছু করেছে। আফগানিস্তানের শান্তি ও স্থিতাবস্থার সঙ্গে পাকিস্তানের শান্তি জড়িয়ে রয়েছে। দাবি পাক মন্ত্রীর।

 পাশাাপাশি তিনি জানিয়েছেন, নিষিদ্ধ সংগঠন তেহেরিক-ই- তালিবান আফগানিস্তানের মাটিকে ব্যবহার করবে না। এই প্রতিশ্রুতি দিয়েছে তালিবান। তাঁর দাবি সমস্ত পাকিস্তানিকেই আফগানিস্তান থেকে সরানো হয়েছে। তবে এখনও ৩০-৪০ জন পাকিস্তানি এখনও সেখানে থেকে গিয়েছে। এদিকে কাবুল বিস্ফোরণের পর প্রচুর মানুষ পাকিস্তানের মাটিতে চলে আসতে পারে বলেও আশঙ্কা করা হচ্ছে। এর সঙ্গেই তাঁর দাবি আফগানিস্তান থেকে যারা আসছেন তাদের বিনামূল্যে ভিসা দেওয়া হচ্ছে। তাদেরকে রিফিউজি স্ট্যাটাসও দেওয়া হচ্ছে না। জানিয়েছেন পাক মন্ত্রী।

 

|#+|

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

বন্ধ করুন