বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Video: নিউ ইয়র্কের রাস্তায় বাংলা বলছেন, মিস্টি দই খাচ্ছেন সাহেব!
ছবি : ফেসবুক (Facebook)
ছবি : ফেসবুক (Facebook)

Video: নিউ ইয়র্কের রাস্তায় বাংলা বলছেন, মিস্টি দই খাচ্ছেন সাহেব!

  • বিক্রেতারাও একজন সাহেবকে এমন বাংলা বলতে দেখে বেশ মজা পান। তাঁদেরকে তিনি বলেন, 'আমি বাংলা শিখছি'।

'ওর বাংলাটা একটু উইক,' ইংরাজি মাধ্যমে পড়া সন্তানের বিষয়ে 'গর্ব' করে অনেক মা-বাবাই এটা বলেন। আবার কিছু অভিজাত স্কুলেও বাংলা বলা বারণ। কিন্তু খোদ মার্কিন মুলুকের সাহেবই বাংলা শিখছেন। শুধু তাই নয়, নিউ ইয়র্কের বাংলাদেশি মার্কেটে তা বলছেনও। খাচ্ছেন বাঙালি খাবার। ইউটিউবার শাওমার এই ভ্লগ মন জয় করেছে সকলের।

শাওমা নতুন ভাষা শেখা এবং বিভিন্ন সংস্কৃতি নিয়ে ভিডিয়ো করেন। সম্প্রতি একটি ভিডিয়োয় তিনি জ্যাকসন হাইটস, কুইন্সে যান। সেখানে বহু সংখ্যক বাংলাদেশ ও ভারতীয় বাঙালি ব্যবসা করেন। তাঁদের সঙ্গে বাংলায় কথা বলে কেনাকাটা, খাওয়াদাওয়া করেন তিনি।

মিষ্টি পান থেকে ফুচকা, মিস্টি দইয়ের মতো বাঙালি খাবার খেয়ে দেখলেন তিনি। বিক্রেতারাও একজন সাহেবকে এমন বাংলা বলতে দেখে বেশ মজা পান। তাঁদেরকে তিনি বলেন, 'আমি বাংলা শিখছি'। মজা পেয়েছেন নেটিজেনরাও।

শাওমা বলেন, বাংলায় বিশ্বের বহু সংখ্যক মানুষ কথা বলেন। কিন্তু এটার সেভাবে প্রচার বা পরিচিতি নেই। সেই কারণেই তিনি এই ভাষা ও সংস্কৃতির সঙ্গে বিশ্ববাসীর পরিচয় করাতে চান।

তবে এই প্রথম নয়। এর আগেও বহু ভাইরাল ভিডিয়ো বানিয়েছেন শাওমা। বলিউড, ম্যাগি ইত্যাদি নিয়ে ভিডিয়ো আছে তাঁর। বাংলার মতোই হিন্দিও বলতে পারেন তিনি। ইউটিউবে প্রায় ৪২ লক্ষ সাবস্ক্রাইবার তাঁর।

ফেসবুকে তাঁর ভিডিয়োর কমেন্টে এক বাঙালি লেখেন, 'মার্কিন মুলুকে গিয়ে ভাষা ও দেখতে অন্যরকম বলে মাঝে মাঝে বৈষম্যের শিকার হতে হয়েছে। কিন্তু শাওমার ভিডিয়োটা দেখে খুব খুশি হলাম। আশা করি আরও বেশি মানুষ আমাদের সংস্কৃতির সঙ্গে পরিচিত হবেন।'

অপর এক ফেসবুক ব্যবহারকারী লেখেন, 'কলকাতায় বাঙালি রেস্তোরাঁয় গিয়ে আমরা বাংলা বলতে লজ্জা পাই। ইংরাজিতে অর্ডার করি। আর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের একজন বাংলা শিখে কথা বলছেন। আমাদের নিজের ভাষা ও সংস্কৃতি নিয়ে গর্ব করা উচিত্।'

বন্ধ করুন