বাড়ি > ঘরে বাইরে > গ্যাংস্টার বিকাশ দুবের মৃত্যু-রহস্য নিয়ে নানান প্রশ্নের জবাব দিল ইউ পি পুলিশ
গ্যাংস্টার বিকাশ দুবের মৃত্যু নিয়ে কয়েকটি ‘ভুল ধারণার’ ব্যাখ্যা দিল উত্তর প্রদেশ পুলিশ।
গ্যাংস্টার বিকাশ দুবের মৃত্যু নিয়ে কয়েকটি ‘ভুল ধারণার’ ব্যাখ্যা দিল উত্তর প্রদেশ পুলিশ।

গ্যাংস্টার বিকাশ দুবের মৃত্যু-রহস্য নিয়ে নানান প্রশ্নের জবাব দিল ইউ পি পুলিশ

  • ওকালতনামায় ঘটনা সংক্রান্ত কিছু মৌলিক প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করা হয়েছে।

পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে গত ১০ জুলাই গ্যাংস্টার বিকাশ দুবের মৃত্যু নিয়ে কয়েকটি ‘ভুল ধারণার’ ব্যাখ্যা দিল উত্তর প্রদেশ পুলিশ। শুক্রবার সুপ্রিম কোর্টে জমা দেওয়া ওকালতনামায় বিষয়টি ব্যাখ্যা করেছে যোগী আদিত্যনাথের পুলিশ। ওকালতনামায় ঘটনা সংক্রান্ত কিছু মৌলিক প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করা হয়েছে।

যদি পালানোর চেষ্টাই করলেন, তা হলে কেন উজ্জয়িনীতে আত্মসমর্পণ করলেন বিকাশ?

উত্তর প্রদেশ পুলিশের দাবি, উজ্জয়িনীতে মোটেই আত্মসমর্পণ করেননি বিকাশ। তাঁকে ৯ জুলাই উজ্জয়িনীর মহাকাল মন্দিরে দেখে চিনতে পেরে কর্তব্যরত পুলিশকে জানায় মন্দির কর্তৃপক্ষ। সংবাদমাধ্যমে বিকাশের ছবি দেখে তাঁর পরিচয় সম্পর্কে নিঃসন্দেহ হয় উজ্জয়িনী পুলিশ। সেই তথ্য তারা উত্তর প্রদেশ পুলিশকে জানায়। 

বিকাশকে উত্তর প্রদেশে নিয়ে যাওয়ার সময় পুলিশ যে গাড়ি ব্যবহার করেছিল আর দুর্ঘটনাগ্রস্ত গাড়িটি কি এক?

পুলিশের তরফে এর জবাবে বলা হয়েছে, গুনা শহরে পৌঁছানোর পরে সাবধানতা ও নিরাপত্তার প্রয়োজনে বিকাশকে অন্য গাড়িতে তোলা হয়। 

বিকাশকে কেন হাতকড়া পরানো হয়নি?

পুলিশের দাবি, তিনটি গাড়িতে মোট ১৫ জন পুলিশকর্মী বিকাশকে নিয়ে কানপুর যাচ্ছিলেন। গ্রেফতারের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে তাঁকে আদালতে তোলার নিয়ম, এদিকে ১০ জুলাই সকাল ১০টায় সময় ফুরিয়ে যাওয়ার কথা ছিল।

দুর্ঘটনাস্থলের ২ কিমি আগে কেন সংবাদমাধ্যমকে থামিয়ে দেওয়া হয়?

এই অভিযোগ সম্পূর্ণ অস্বীকার করে উত্তর প্রদেশ পুলিশ জানিয়েছে, বিকাশকে গ্রেফতারের সময় থেকেই পুলিশের গাড়ির পিছু পিছু ধাওয়া করে সরাসরি সম্প্রচার করছিল সংবাদমাধ্যম। তবে মাঝে মাঝে চেক পয়েন্টে যানজটের কারণে তারা পিছিয়ে পড়ছিল। সরকার জানিয়েছে, দুর্ঘটনার কিছু ক্ষণের মধ্যেই ঘটনাস্থলে পৌঁছে গিয়েছিল আজ তক ও রিপাবলিক টিভি-র গাড়ি।

পুলিশের সঙ্গে গ্যাংস্টার বিকাশের সংঘর্ষের কোনও সাক্ষী নেই কেন? 

পুলিশ জানিয়েছে, দুর্ঘটনাস্থলের কাছাকাছি কোনও বসতি নেই। তার ওপর, বৃষ্টির কারণে সেই সময় সড়কে কোনও পথচারীও উপস্থিত ছিলেন না।

বিকাশের কাছে কী এমন কোনও গোপন তথ্য ছিল, যার সুবাদে তার সঙ্গে পুলিশ বা রাজনীতিকদের সম্পর্ক ফাঁস হতে পারত? 

এই সমস্ত বিষয়ে অনুসন্ধান করতে একটি বিচারবিভাগীয় কমিশন গঠন করা হয়েছে। এই কমিশন সমগ্র ঘটনা যাচাই করে পুলিশ ও অন্যান্য বিভাগের সঙ্গে নিহত গ্যাংস্টারের কোনও সম্পর্ক ছিল কি না, তা তদন্ত করবে। 

শরীরের ভিতরে লোহার রড থাকায় বিকাশকে উজ্জয়িনীতে খুঁড়িয়ে হাঁটতে দেখা গিয়েছে। এমন শারীরিক প রিস্থিতিতে সে কী ভাবে দৌড়ল?

পুলিশের দাবি, হাঁটাচলায় আদৌ কোনও সমস্যা ছিল না কানপুরের গ্যাংস্টারের। ৮ পুলিশকর্মীকে হত্যার পরে শাগরেদদের সঙ্গে সে তিন কিমিরও বেশি দূরত্ব দৌড়ে পালিয়েছিল। সেই সঙ্গে বলা হয়েছে, ‘মহাকাল মন্দিরের ভিডিয়ো রেকর্ডিংয়েই স্পষ্ট যে সে ভালো করেই হাঁটছিল।’

বিকাশকে চার্টার্ড বিমানে কানপুর আনার সিদ্ধান্ত কী কারণে পরিবর্তন করা হল?

বিকাশকে কানপুরে আনার জন্য চার্টার্ড বিমানের সিদ্ধান্ত কখনই নেওয়া হয়নি, দাবি পুলিশের। 

 

বন্ধ করুন