বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > বিজয় মাল্যকে প্রত্যর্পণের বিরুদ্ধে ব্রিটিশ সুপ্রিম কোর্টে আবেদনের আর্জি খারিজ
লন্ডন হাইকোর্টে খারিজ হল বিজয় মালিয়ার আবেদন। ছবি: এএনআই।
লন্ডন হাইকোর্টে খারিজ হল বিজয় মালিয়ার আবেদন। ছবি: এএনআই।

বিজয় মাল্যকে প্রত্যর্পণের বিরুদ্ধে ব্রিটিশ সুপ্রিম কোর্টে আবেদনের আর্জি খারিজ

  • লন্ডন হাইকোর্টে মামলা হেরে গিয়ে ব্রিটিশ সুপ্রিম কোর্টে আবেদন জানানোর জন্য আর্জি জানান মাল্য। বুধবার তা খারিজ হয়ে গিয়েছে।

ব্রিটেনের সর্বোচ্চ আদালতে আবেদন জানানোর আর্জি নাকচ হল ১,১০০ কোটি টাকা ব্যাঙ্ক প্রতারণা মামলায় অভিযুক্ত প্রাক্তন লিকার ব্যারন বিজয় মাল্যর। 

একাধিক ভারতীয় ব্যাঙ্কের বিরুদ্ধে আর্থিক প্রতারণায় অভিযুক্ত দেশত্যাগী শিল্পপতি বিজয় মাল্যকে ভারতে প্রত্যর্পণের আদেশ দিয়েছিলেন ব্রিটেনের ওয়েস্টমিনস্টার ম্যাজিস্ট্রেটস কোর্টের বিচারক এমা আরবাথনট। সেই রায়ের বিরুদ্ধে লন্ডন হাইকোর্টে আবেদন জানালে সেখানেও নিম্ন আদালতের রায় বহাল রাখা হয় এবং ভারত সরকারের আর্জি মেনে তাঁকে প্রত্যর্পণের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। 

লন্ডন হাইকোর্টে মামলায় হেরে গিয়ে এবার ব্রিটিশ সুপ্রিম কোর্টে আবেদন জানানোর জন্য আর্জি জানান মাল্যর আইনজীবী। বুধবার সেই আর্জি খারিজ করে দিয়েছে লন্ডন হাইকোর্ট। নির্দেশে বলা হয়েছে, ২০১২ সালে মাল্যর মালিকানাধীন কিফিশার এয়ারলাইন্স বন্ধ হওয়ার সঙ্গে জড়িত ব্যাঙ্ক প্রতারণার অভিযোগের সম্মুখীন হওয়ার জন্য নির্বাসিত শিল্পপতিকে ভারতের হাতে তুলে দেওয়া হোক।

লন্ডন হাইকোর্টে মাল্যর আইনজীবীরা দাবি করেন যে, তাঁদের মক্কেলের বিরুদ্ধে কোনও প্রত্যক্ষ অপরাধ প্রমাণ করতে ব্যর্থ হয়েছে ভারত সরকার। এ ছাড়া ওয়েস্ট মিনস্টার ম্যাজিস্ট্রেটস কোর্টের বিচারকের রায় নিয়েও প্রশ্ন তোলা হয়। কিন্তু সেই সমস্ত যুক্তিকে আমল দেয়নি হাইকোর্ট।

এ দিনের রায়ের আগে ভারত সরকারের উদ্দেশে মাল্য টুইটারে আবেদন জানান, একাধিক ব্যাঙ্কে তাঁর অপরিশোধিত ঋণ বাবদ ১০০% অর্থ করোনা সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সরকারি ত্রাণ তহবিলে জমা নেওয়া হোক এবং তাঁর বিরুদ্ধে যাবতীয় মামলা তুলে নেওয়া হোক। 

লন্ডন হাইকোর্টে আবেদন খারিজ হয়ে যাওয়ায় এবার একমাত্র ইউরোপিয়ান কোর্ট অফ হিউম্যান রাইটস-এই দেশে না ফেরানোর জন্য আবেদন জানানোর রাস্তা খোলা রইল বিজয় মাল্যর সামনে। ওই আবেদনের ভিত্তিতে ইউরোপীয় মানবাধিকার আদালত ইনজাংশন জারি করলে তবেই তিনি আপাতত রেহাই পেতে পারেন। 

সেই আবেদন না জানালে ব্রিটিশ হাইকোর্টের রায়দানের ২৮ দিনের মধ্যে তাঁকে ভারতে প্রত্যর্পণ করতে বাধ্য ব্রিটেন।  

বন্ধ করুন