মুখোশ পরে ক্যাম্পাসে দাপাচ্ছে দুষ্কৃতীরা (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
মুখোশ পরে ক্যাম্পাসে দাপাচ্ছে দুষ্কৃতীরা (ছবি সৌজন্য পিটিআই)

'হাতে লাঠি-রড়, মুখোশ পরে ক্যাম্পাসে দাপাচ্ছে দুষ্কৃতীরা', অভিযোগ JNU পড়ুয়াদের

ঘটনায় এবিভিপির বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে। যদিও অভিযোগ অস্বীকার করেছে তারা।

মুখে লাগাতার শাসানি। হাতে লাঠি, হাতুড়ি, রড। তা উঁচিয়ে রে রে করে পড়ুয়াদের দিকে তেড়ে যাচ্ছে। ভাঙচুর করছে বিভিন্ন সামগ্রী। বেধড়ক মারধর করা হয় পড়ুয়াদের। বাদ যাননি অধ্যাপকরাও। তাঁদেরও মারধর করা হয়। রবিবার সন্ধ্যায় দিল্লির জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ে (জেএনইউ) তাণ্ডব চালাল কাপড় দিয়ে মুখ ঢাকা একটি দল।

আহত হয়েছেন ছাত্র সংগঠনের সভাপতি ঐশী ঘোষ। তাঁর অভিযোগ, মুখোশ পরে তাঁর উপর হামলা চালিয়েছে দুষ্কৃতীরা। মূল গেটে প্রচুর পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

আহত ঐশী (ছবি সৌজন্য এএনআই)
আহত ঐশী (ছবি সৌজন্য এএনআই)

পরে একটি ভিডিয়োতে ঐশীকে কাঁদতে কাঁদতে বলতে শোনা যায়, মুখোশ পরা দুষ্কৃতীরা আমার উপর হামলা চালায়। আমায় নৃশংসভারে মারা হয়। আমি কথা বলার পরিস্থিতিতেও নেই।' আপাতত ১৫ জন পড়ুয়াকে এইমসকে ভরতি করা হয়েছে। দুজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। আহত হয়েছেন অধ্যাপক সুচরিতা সেন। তাঁর মাথায় চোট লেগেছে।

একটি ভিডিয়োতে এই ছবি ধরা হয়েছে। (ছবি সৌজন্য স্ক্রিনগ্র্যাব)
একটি ভিডিয়োতে এই ছবি ধরা হয়েছে। (ছবি সৌজন্য স্ক্রিনগ্র্যাব)

এক পড়ুয়া বলেন, 'হাতুড়ি, রড, অ্যাসিড নিয়ে অনেকে ক্যাম্পাসে দাপাচ্ছিল। সবরমতী হস্টেলে ঢুকে মেয়েদের মারধর করা হয়।' অনেকেই ক্য়াম্পাস ছেড়ে চলে যাচ্ছেন।

দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল টুইট করেন, 'জেএনইউ-তে হিংসার ঘটনায় আমি বিস্মিত। পড়ুয়াদের নৃশংসভাবে আক্রমণ করা হয়েছে। পুলিশের উচিত, অবিলম্বে হিংসা থামিয়ে শান্তি ফিরিয়ে আনা। নিজেদের বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের মধ্যেই যদি পড়ুয়ারা সুরক্ষিত না থাকেন, তাহলে দেশের উন্নতি কীভাবে হবে?'

বন্ধ করুন