বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ছটফট করতে থাকা স্বামীকে বাঁচানোর শেষ চেষ্টাও ব্যর্থ, এভাবে হারতে হবে আর কত রেণুকে?
ছবি সৌজন্যে সোশ্যাল মিডিয়া
ছবি সৌজন্যে সোশ্যাল মিডিয়া

ছটফট করতে থাকা স্বামীকে বাঁচানোর শেষ চেষ্টাও ব্যর্থ, এভাবে হারতে হবে আর কত রেণুকে?

  • রেণু সিঙ্ঘলের স্বামী করোনা আক্রান্ত হন। এই পরিস্থিতিতে শ্বাসকষ্ট শুরু হয় রেণুর স্বামী রবি সিঙ্ঘলের। সেই সময় স্বামীকে নিয়ে অটো করে হাসপাতালের পথে রওনা দেন রেণু।

করোনা আবহে একের পর এক হৃদয় বিদারক ছবি আমাদের চোখের সামনে ভেসে উঠেছে টিভি বা সোশ্যাল মিডিয়ায়। সম্প্রতি করোনার নিষ্ঠুরতার উদাহরণের আরও একটি ছবি সবাইকে স্তব্ধ করে দিল। নিজের প্রিয়জনকে বাঁচাতে মানুষ কতটা মরিয়া হয়ে উঠেছে তা একবার ফের চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিলেন আগরার রেণু সিঙ্ঘল।

রেণু সিঙ্ঘলের স্বামী করোনা আক্রান্ত হন। এই পরিস্থিতিতে শ্বাসকষ্ট শুরু হয় রেণুর স্বামী রবি সিঙ্ঘলের। সেই সময় স্বামীকে নিয়ে অটো করে হাসপাতালের পথে রওনা দেন রেণু। তবে মাঝ পথেই শ্বাসকষ্ট আরও বেড়ে যায় তাঁর স্বামীর। এই পরিস্থিতিতে কী করবেন না ভেবে পেয়ে মুখে মুখ দিয়ে কৃত্রিম উপায়ে তাঁর প্রাণ বাঁচানোর চেষ্টা করেন রেণু। এতে যে তিনি নিজেও আক্রান্ত হয়ে পড়তে পারেন, তা নিয়ে ভাবেননি একবারও। তবে তাতেও শেষ রক্ষা হয়নি। হাসপাতালের বাইরে রেণুর কোলেই মারা যান রবি। তবে এত কিছুর মাঝে রেণুর মরিয়া চেষ্টার ছবি ফের একবার দেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থার করুণ দশার কঙ্কালসার চিত্র তুলে ধরল।

জানা গিয়েছে, মৃত রবি এবং রেণু উত্তরপ্রদেশের আবাস বিকাশ সেক্টর ৭-এর বাসিন্দা। করোনা আক্রান্ত রবির শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাঁকে সরোজিনী নাইডু মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে নিয়ে যেতে চেয়েছিলেন রেণু। তবে হাসপাতালে পৌঁছানোর আগেই শ্বাস না নিতে পেরে ছটফট করতে থাকেন রবি। আর স্বামীকে বাঁচাতে মরিয়া চেষ্টা শুরু করেন রেণু। তবে তাঁর সেই চেষ্টা কাজে দেয়নি। তাঁর এই ব্যর্থতা একাধিক প্রশ্ন তুলে দিয়ে গিয়েছে।

এই আবহে ফের একবার দেশ জুড়ে চলতে থাকা অক্সিজেনের আকালের কথা আতঙ্কিত করে তুলেছে সবাইকে। রাজধানীতে দেদার কালোবাজারি চলছে অক্সিজেনের। যত দিন যাচ্ছে ততই আরও ভয়ঙ্কর হচ্ছে দেশে করোনা পরিস্থিতি। দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লাখ ছাড়িয়েছে। এই পরিস্থিতিতে অক্সিজেনের আকাল যেভাবে দেখা দিয়েছে, তাতে ভবিষ্যতে আরও কত রেণুর চোখে অশ্রু দেখা যাবে, জানা নেই কারোর। 

 

বন্ধ করুন