বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Woman Dragged by Hair Viral Video: চুলের মুঠি ধরে টেনে হিঁচড়ে মন্দির থেকে বের করা হল মহিলাকে! ভাইরাল ভিডিয়ো

Woman Dragged by Hair Viral Video: চুলের মুঠি ধরে টেনে হিঁচড়ে মন্দির থেকে বের করা হল মহিলাকে! ভাইরাল ভিডিয়ো

চুলের মুঠি ধরে টেনে হিঁচড়ে মন্দির থেকে বের করা হল মহিলাকে

অভিযুক্ত পুরোহিত মুনিকৃষ্ণ পুলিশকে বলেছেন, সেই মহিলা দাবি করেছিলেন যে ভগবান ভেঙ্কটেশ্বর তাঁর স্বামী এবং গর্ভগৃহে মূর্তির পাশে বসতে চেয়েছিলেন। সেই মহিলা নাকি পুরোহিতের গায়ে থুথু ফেলেন। এরপরে তাঁকে চলে যেতে বলা হয়। মহিলাটি সেই কথা শোনেনি। এরপরই তাঁকে মারধর করে টেনে বের করে দেওয়া হয়।

মন্দির থেকে চুলের মুঠি ধরে টেনে হিঁচরে মহিলাকে বের করে দেওয়া হল! এমনই এক অবাক করা ঘটনার ভিডিয়ো সম্প্রতি প্রকাশ্যে এসেছে। ঘটনাটি ঘটেছে বেঙ্গালুরুর অমৃতহাল্লিতে অবস্থিত লক্ষ্মী নরসিংহ স্বামী মন্দিরে। জানা গিয়েছে, গতবছর ২১ ডিসেম্বর ঘটনাটি ঘটেছিল। তবে তা প্রকাশ্যে এসেছে সাম্প্রতিককালে। ভিডিয়ো ভাইরাল হতেই নিন্দার ঝড় উঠেছে। অভিযোগ, এক পুরোহিত মহিলাকে চুল ধরে টেনে মন্দির থেকে বের করে দেন। (আরও পড়ুন: বিমানে অভব্য আচরণ করলে যাত্রীকে আটকাতে হাতকড়া বা বেল্ট ব্যবহারের নির্দেশ DGCA-র)

ভাইরাল ভিডিয়োতে দেখা গিয়েছে, সেই মহিলা এবং পুরোহিতের মধ্যে তর্ক হচ্ছে। মহিলাটি মন্দিরের ভিতরে থাকার জন্য জোর করতে থাকেন। অপরদিকে পুরোহিত তাঁকে লাথি মারতে মারতে মন্দির থেকে বের করে দিতে চান। পুরোহিত নিজের অবস্থানে অনড় ছিল। মহিলাটি প্রতিরোধ করেন। এপর পুরোহিত তাঁকে তাঁর চুল ধরে টেনে নিয়ে যান এবং তাঁকে চড় মারতে থাকেন। মহিলাটি পড়ে যান। কিন্তু পুরোহিত না তাঁকে টানতে থাকেন। চুল ধরে তাঁকে বাইরে টেনে নিয়ে যান পুরোহিত। সেই সময় আরও তিনজন ব্যক্তি সেখানে উপস্থিত ছিলেন। তাঁদের মধ্যে দু'জনের পোশার পুরোহিতের মতো ছিল। গর্ভগৃহে উপস্থিত থাকলেও তাঁরা কেউই পুরোহিতকে থামানোর বা মহিলাকে বাঁচানোর চেষ্টা করেনননি।

আইএএনএস-এর প্রতিবেদন অনুসারে, ভুক্তভোগী হেমাবতী অমৃতহাল্লি থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। তিনি জানান, উল্লেখিত ঘটনাটি ২১ ডিসেম্বর ঘটেছিল এবং অভিযুক্ত মুনিকৃষ্ণ অমৃতহাল্লি এলাকার লক্ষ্মী নরসিংহ স্বামী মন্দিরের 'ধর্মদর্শী'। খবরে বলা হয়েছে, অভিযুক্ত মুনিকৃষ্ণ মহিলাকে লাঠি দিয়ে মারধর করেন। মুনিকৃষ্ণের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৫৪ নং ধারার অধীনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। এদিকে ঘটনা প্রসঙ্গে মুনিকৃষ্ণ পুলিশকে বলেছেন, সেই মহিলা দাবি করেছিলেন যে ভগবান ভেঙ্কটেশ্বর তাঁর স্বামী এবং গর্ভগৃহে মূর্তির পাশে বসতে চেয়েছিলেন। যখন তাঁরা মহিলার দাবি প্রত্যাখ্যান করেন, তখন তিনি পুরোহিতের গায়ে থুথু ফেলেন। এরপরে তাঁকে চলে যেতে বলা হয়। মহিলাটি সেই কথা শোনেনি। এরপরই তাঁকে মারধর করে টেনে বের করে দেওয়া হয়।

বন্ধ করুন