বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > দক্ষিণ ভারতের একের পর এক যুবকের বিরুদ্ধে আইএস যোগের অভিযোগ, NIA'র ধরপাকড়

দক্ষিণ ভারতের একের পর এক যুবকের বিরুদ্ধে আইএস যোগের অভিযোগ, NIA'র ধরপাকড়

এনআইএর জালে একাধিক সন্দেহভাজন (প্রতীকী ছবি)

কেন্দ্রীয় এজেন্সির দাবি, দামুদি একাধিক ভুয়ো পরিচয় ব্যবহার করে সোশ্য়াল মিডিয়ায় সক্রিয় ছিলেন।

আইএস যোগে কর্ণাটক থেকে এনআইয়ের জালে একের পর এক সন্দেহভাজন ব্যক্তি। গত ৬ই অগস্ট কর্ণাটকের ভাটকল এলাকা থেকে এনআইয়ের জালে ধরা পড়েছিল এক ব্য়ক্তি। ইসলামিক স্টেট বা আইএস এর সন্ত্রাসবাদী কাজের সঙ্গে সম্পর্ক থাকার অভিযোগে এনআইএ তাকে গ্রেফতার করে। ধৃতের নাম জুফরি জওহর দামুদি। বুধবার ম্যাঙ্গালোর থেকে আরও দুজনকে গ্রেফতার করেছে এনআইএ। একজন ম্যাঙ্গালোরের আম্মর আব্দুল রহমান ও অপরজন বেঙ্গালুরুর শঙ্কর ভেঙ্কটেশ পেরুমল। কাশ্মীর ও কর্ণাটকের একাধিক ঘটনার সূত্রে তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে। 

আইএস যোগে কর্ণাটক থেকে এনআইয়ের জালে একের পর এক সন্দেহভাজন ব্যক্তি। গত ৬ই অগস্ট কর্ণাটকের ভাটকল এলাকা থেকে এনআইয়ের জালে ধরা পড়েছিল এক ব্য়ক্তি। ইসলামিক স্টেট বা আইএস এর সন্ত্রাসবাদী কাজের সঙ্গে সম্পর্ক থাকার অভিযোগে এনআইএ তাকে গ্রেফতার করে। ধৃতের নাম জুফরি জওহর দামুদি। বুধবার ম্যাঙ্গালোর থেকে আরও দুজনকে গ্রেফতার করেছে এনআইএ। একজন ম্যাঙ্গালোরের আম্মর আব্দুল রহমান ও অপরজন বেঙ্গালুরুর শঙ্কর ভেঙ্কটেশ পেরুমল। কাশ্মীর ও কর্ণাটকের একাধিক ঘটনার সূত্রে তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে। 

|#+|

কেন্দ্রীয় এজেন্সির দাবি, দামুদি একাধিক ভুয়ো পরিচয় ব্যবহার করে সোশ্য়াল মিডিয়ায় সক্রিয় ছিলেন। মূলত যুব সমাজকে আইএসে নিয়োগ করার চেষ্টা চালাতেন তিনি। সূত্রের খবর, এনিয়ে কর্ণাটক থেকে আইএস এর প্রতি সহানুভূতি সম্পন্ন ১৫জন ব্য়ক্তিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ২০১৯ সালের অক্টোবর মাসে এনআইএর ইনস্পেক্টর জেনারেল অলোক মিত্তাল জানিয়েছিলেন '২০১৪-২০১৯ এই সময়কালের মধ্যে আইএসের প্রতি সহানুভূতি সম্পন্ন থাকার অভিযোগে ১২৭জনকে গোটা দেশ থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে।' এনআইয়ের তালিকা অনুসারে শুধু তামিলনাড়ু থেকেই গ্রেফতার করা হয়েছিল ৩৩জনকে, উত্তরপ্রদেশ থেকে ১৯জনকে, কেরল থেকে ১৭জনকে, তেলেঙ্গানা থেকে ১৪জনকে, মহারাষ্ট্র থেকে ১২জনকে ও কর্ণাটক থেকে ৮জনকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। 

 

বন্ধ করুন