সুস্থ হয়ে ওঠা করোনাভাইরাস রোগীদের রক্ত সংগ্রহ করবে পশ্চিমবঙ্গ সরকার। সেটি ব্যবহার করে অসুস্থদের চিকিত্সা করার প্রস্তাব বিবেচনা করছে রাজ্যসরকার। পশ্চিমবঙ্গে এখন করোনায় আক্রান্ত ১০৩, কেন্দ্রীয় সরকারের দেওয়া তথ্যের অনুসারে। এর মধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৬ জন। মৃত পাঁচ।

এই সুস্থ রোগীদের রক্ত নিয়ে ট্রিটমেন্ট করার পদ্ধতিকে কনভ্যালেসেন্ট প্লাজমা থিওরি বলা হয়। এটি সুস্থদের থেকে অ্যান্টিবডি যুক্ত রক্ত ব্যবহার করা হয় অসুস্থদের চিকিত্সার জন্য। এটি নিয়ে ভাবনা চিন্তা চলছেন বলে জানিয়েছেন চিকিত্সক অভিজিত চৌধুরী। তিনি মুখ্যমন্ত্রীর গঠিত আট সদস্যের উপদেষ্টা বোর্ডের আহ্বায়ক। এই পদ্ধতি ব্যবহার করে চিন ও আমেরিকায় কিছুটা সফলতা এসেছে বলে জানিয়েছে অভিজিতবাবু।

চিনে সুস্থ হওয়া লোকদের থেকে ২০০ মিলিলিটার প্লাজমা নিয়ে দশজন অসুস্থকে দেওয়া হয়েছিল। এরপর তাদের ইমিউনিটি অনেকটা বৃদ্ধি পায় ও খুব দ্রুত তারা সুস্থ হয়ে ওঠেন বলে জানা গিয়েছে। প্যানেলে উপস্থিত আরেকজন চিকিত্সক সুকুমার মুখোপাধ্যায় জানিয়েছেন যে এটা পুরনো পন্থা। কিন্তু থেরাপির কোন স্তরে এই প্লাজমা শরীরে প্রবেশ করানো উচিত, সেটা বুঝতে হবে, বলে জানিয়েছে তিনি। তবে এই ট্রিটমেন্টের খরচা খুব বেশি হবে বলে সতর্ক করেন তিনি। এটি এখনও পরীক্ষামুলক স্তরে আছে ও সারা বিশ্বে এখনও ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল হয়নি বলেই জানান তিনি।

অন্যদিকে রোগীদের ট্র্যাক করার জন্য সফটওয়্যার ব্যবহার করার কথা ভাবছে রাজ্য সরকার। আপাতত রাজ্যে সাতটি হটস্পট জোন আছে। সেই জোনে রোগীদের চিহ্নিত করে, তাদের টেস্ট করে, কোয়ারেন্টাইন করার কথা ভাবছে রাজ্য সরকার।

বন্ধ করুন