বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ‘অক্সিজেনের অভাবে কেউ মরেনি? এই সরকার অন্ধ!’ স্বাধিকার ভঙ্গের নোটিশ আনবে কংগ্রেস
স্বাস্থ্য মন্ত্রকের রাষ্ট্রমন্ত্রী ভারতী পারভিনের বিরুদ্ধে স্বাধিকার ভঙ্গের নোটিশ আনবে কংগ্রেস (ছবি সৌজন্যে পিটিআই) (PTI)
স্বাস্থ্য মন্ত্রকের রাষ্ট্রমন্ত্রী ভারতী পারভিনের বিরুদ্ধে স্বাধিকার ভঙ্গের নোটিশ আনবে কংগ্রেস (ছবি সৌজন্যে পিটিআই) (PTI)

‘অক্সিজেনের অভাবে কেউ মরেনি? এই সরকার অন্ধ!’ স্বাধিকার ভঙ্গের নোটিশ আনবে কংগ্রেস

  • অক্সিজেনের অভাবে কারও মৃত্যু হয়নি, রাজ্যসভায় কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর এই বক্তব্যের প্রেক্ষিতেই স্বাধিকার ভঙ্গের নোটিশ আনবে কংগ্রেস।

করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের সময় একাধিক রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে অক্সিজেনের হাহাকার দেখা গিয়েছিল। তবে এই নিয়ে সংসদে প্রশ্ন উঠলে কেন্দ্রের তরফে স্বাস্থ্য মন্ত্রকের রাষ্ট্রমন্ত্রী ভারতী পারভিন বলেন, অক্সিজেনের অভাবে কারও মৃত্যু হয়নি। আর এরপরই এই মন্তব্যের বিরোধিতায় সরব হয় কংগ্রেস। তোপ দেগে টুইট করেন রাহুল গান্ধী। ভারতী পারভিনের বিরুদ্ধে স্বাধিকার ভঙ্গের নোটিশ আনা হবে বলে জানান কংগ্রেসের রাজ্যসভার সদস্য কেনি বেণুগোপাল।

রাজ্যসভায় আজ করোনার দ্বিতীয় ঢেউ নিয়ে সঙ্কট নিয়ে ওঠা প্রশ্নের উত্তর দিচ্ছিল কেন্দ্র। প্রশ্ন তোলা হয়েছিল, করোনায় আক্রান্তরা অক্সিজেনের অভাবে রাস্তায় পড়ে মারা গিয়েছেন কি না। এই প্রশ্নের উত্তরে স্বাস্থ্য মন্ত্রকের রাষ্ট্রমন্ত্রী ভারতী পারভিন পাওয়ার জানান, স্বাস্থ্য সংক্রান্ত বিষয়টি রাজ্যের আওতাধীন। রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলি নিয়মিত করোনায় মৃত্য ও আক্রান্তের সংখ্যা কেন্দ্রকে পাঠিয়েছে। তবে অক্সিজেনের অভাবে কারও মৃত্যু হয়নি বলেই লিখিত জবাবে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য মন্ত্রকের রাষ্ট্রমন্ত্রী।

এরপরই সন্ধ্যায় সংবাদ সম্মেলন করে কংগ্রেসের তরফে দাবি করা হয়ে ভারতী পারভিনের বিরুদ্ধে স্বাধিকার ভঙ্গের নোটিশ আনা হবে। কংগ্রেসের অভিযোগ, অক্সিজেন নিয়ে দেশে রোগী মৃত্যুর পরিসংখ্যান নিয়ে সংসদকে মিথ্যে বলেছেন মন্ত্রী। কেসি বেণুগোপাল বলেন, 'এই সরকার অন্ধ এবং নির্লিপ্ত। অক্সিজেনের অভাবের কারণে কত মৃত্যু হয়েছে, তা সাধারণ মানুষই দেখেছে।'

এদিকে রাহুল গান্ধীও এই বিষয়ে টুইট করেন, লেখেন, 'শুধুমাত্র অক্সিজেনের অভাব নয়, সংবেদনশীলতা এবং সত্যের অভাব সেদিনও ছিল এবং আজও আছে।' এদিকে কেন্দ্রের তরফে এদিন দাবি করা হয়, প্রথম ঢেউয়ের সময় ৩০৯৫ মেট্রিক টন অক্সিজেনের চাহিদা ছিল দেশে। কিন্তু দ্বিতীয় ঢেউয়ের সময় তা একধাক্কায় ৯০০০ মেট্রিক টনে গিয়ে পৌঁছায়। এই পরিস্থিতিতে সব রাজ্য যাতে সমানভাবে অক্সিজেন পায়, সেদিক নজর ছিল নরেন্দ্র মোদী সরকারের।

বন্ধ করুন