বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > বিয়ে বাড়িতে খাবার পাতে মাংসের পরিমাণ কম!‌ বর ও কনেপক্ষের সঙ্ঘর্ষে মৃত্যু প্রৌঢ়ের
প্রতীকী ছবি
প্রতীকী ছবি

বিয়ে বাড়িতে খাবার পাতে মাংসের পরিমাণ কম!‌ বর ও কনেপক্ষের সঙ্ঘর্ষে মৃত্যু প্রৌঢ়ের

  • সবই ঠিক চলছিল। কিন্তু গোল বাঁধে প্রীতিভোজের সময়। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, খাবার দেওয়ার সময় অতিথিদের মাংসের পরিমাণ কম দেওয়াকে ঘিরে কনেপক্ষ ও বরপক্ষের মধ্যে প্রথমে কথা কাটাকাটি শুরু হয়।

খাবার পাতে কম পরিমাণে মাংস দেওয়ায় রণক্ষেত্রে পরিণত হল বিয়ে বাড়ি। মঙ্গলবার এই ঘটনা ঘটে বাংলাদেশের বরিশালে। মাংস কম দেওয়াকে ঘিরে প্রথম বচসা আর পরে সঙ্ঘর্ষ বাধে বর ও কনে পক্ষের লোকজনের মধ্যে। আর সেই সঙ্ঘর্ষে বরযাত্রীদের মধ্যে একজনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। জানা গিয়েছে, মৃতের নাম আজহার মীর (‌৬৫)‌। তিনি সম্পর্কের বরের কাকা।

বাংলাদেশের সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন অনুযায়ী, সম্প্রতি রফিয়াদি গ্রামের মোতাহার মীরের ছেলে সজিব মীরের সঙ্গে বরিশাল শহরের কাউনিয়া সাবান ফ্যাক্টরি এলাকার আবুল কালামের মেয়ে রুনা বেগমের বিয়ে হয়। সেই উপলক্ষেই এদিন দুপুরে বাবুগঞ্জ উপজেলার চাদপাশা ইউনিয়নের রফিয়াদি গ্রামে বৌভাতের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে কনেপক্ষ থেকে প্রায় ৫০ জন আত্মীয় আসেন।

সবই ঠিক চলছিল। কিন্তু গোল বাঁধে প্রীতিভোজের সময়। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, খাবার দেওয়ার সময় অতিথিদের মাংসের পরিমাণ কম দেওয়াকে ঘিরে কনেপক্ষ ও বরপক্ষের মধ্যে প্রথমে কথা কাটাকাটি শুরু হয়। আর তার পরই দু’‌পক্ষে সঙ্ঘর্ষ বাধে। শুরু হয় মারামারি। তখনই গুরুতর জখম হয়ে মৃত্যু হয় প্রৌঢ় আজহার মীরের।

এ ব্যাপার বরিশাল মহানগর পুলিশের এয়ারপোর্ট থানার ওসি জাহিদ বিন আলম জানিয়েছেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে পুলিশ। দেহ ময়নাতদন্তের জন্য শের–ই–বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় অভিযুক্তদের দ্রুত গ্রেফতার করা হবে। এদিকে, বিয়ে বাড়িতে খাওয়া–দাওয়ার সময় মাংস কম দেওয়ার জন্য কারও মৃত্যু হয়েছে— এ ঘটনায় অবাক অনেকেই।

বন্ধ করুন