বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > শীতের আগমনী বার্তা আনল ভোরের ঘন কুয়াশা, ১১ ডিসেম্বর থেকেই জাঁকিয়ে ঠান্ডা বঙ্গে
ঘন কুয়াশার চাদরে ঢাকল কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গের একাধিক জেলা। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
ঘন কুয়াশার চাদরে ঢাকল কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গের একাধিক জেলা। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)

শীতের আগমনী বার্তা আনল ভোরের ঘন কুয়াশা, ১১ ডিসেম্বর থেকেই জাঁকিয়ে ঠান্ডা বঙ্গে

  • গত ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ২৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের তুলনায় ৪ ডিগ্রি কম৷

সোমবার বিকেলেই থেমেছিল বৃষ্টি। তবে জাওয়াদের প্রভাবে আকাশের মুখভার ছিল আজ সকাল পর্যন্ত। তবে বৃষ্টির সম্ভাবনা যে নেই, তা জানিয়ে দিয়েছিল আবহাওয়া দফতর। আর এরই মধ্যে বেলা বাড়তেই বুধবার রোধ উঠল কলকাতা ও পার্শ্ববর্তী এলাকায়। আর জাওয়াদের আশঙ্কা দূর হতেই এখন শীতের প্রত্যাশায় বেড়েছে বঙ্গে।

জাওয়াদ দূর হতেই দক্ষিণবঙ্গে সর্বোচ্চ এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রার ফারাক কমতে শুরু করেছে। ফলে ফের বেশ ঠান্ডা ভাব অনুভূত হতে শুরু করেছে। আদ্রতা কমে বাতাসও শুষ্ক হচ্ছে। হাওয়া অফিসের পূর্বাভাস অনুযায়ী ১১ ডিসেম্বরের পরে শীত বাড়বে রাজ্যে। বুধবার দিনের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ২৫ ডিগ্রি ও সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৯ ডিগ্রির আশপাশে থাকবে৷ গত ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ২৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের তুলনায় ৪ ডিগ্রি কম৷ সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৯.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের তুলনায় ৩ ডিগ্রি বেশি৷ আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ গত ২৪ ঘণ্টায় ৯৮ শতাংশ। বৃষ্টি হয়েছে ১.৪ মিলিমিটার।

এদিকে ভোরের দিকে ভারী কুয়াশার পাশাপাশি শিশির পড়ছে। এই আবহে এদিন সকালে বেশ কয়েকটি বিমান দেরিতে উড়েছে বলে জানানো হয়েছে কলকাতা বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের তরফে। এদিন সকাল ৬ টায় দৃশ্যমানতা কমে হয় ১০০ মিটার।  যার জেরে সকাল ৫টা ৩৭ মিনিট থেকে ৭টা ৪৫ মিনিট পর্যন্ত কোনও বিমান ওড়েনি কলকাতা বিমানবন্দর থেকে। বিমানবন্দরের পাশাপাশি নিউ টাউন, রাজার হাট, সল্টলেক, ইএম বাইপাস সহ একাধিক জায়গায় ঘন কুয়াশা দেখা যায় এদিন। 

 

 

 

বন্ধ করুন