বাড়ি > ঘরে বাইরে > জিডিপির ১০% প্যাকেজ দিয়ে কী হবে, ৫০% দিন- টুইট করে ট্রোল হল মধ্যপ্রদেশ কংগ্রেস
ফাইল ছবি (REUTERS)
ফাইল ছবি (REUTERS)

জিডিপির ১০% প্যাকেজ দিয়ে কী হবে, ৫০% দিন- টুইট করে ট্রোল হল মধ্যপ্রদেশ কংগ্রেস

২০ লক্ষ কোটি টাকা আর্থিক প্যাকেজ দেওয়ার কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী। 

কংগ্রেসের দাবি ছিল জিডিপি-র পাঁচ শতাংশ দেওয়া হোক আর্থিক প্যাকেজ হিসাবে। সেখানে প্রধানমন্ত্রী মোদী ঘোষণা করেছেন কুড়ি লক্ষ কোটি অর্থাত্ জিডিপির দশ শতাংশ দেওয়া হবে আর্থিক প্যাকেজ হিসাবে। বিস্তারিত ঘোষণা বুধবার বিকেলে করবেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন। 

স্বাভাবিক ভাবেই সতর্ক ভাবে প্রতিক্রিয়া দিয়েছে কংগ্রেস। প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী পি চিদাম্বরম জানিয়েছেন তাঁরা দেখতে চান কী আসলে আছে এই আর্থিক প্যাকেজে ও কত টাকা সবচেয়ে গরীব ১৩ কোটি পরিবার পাবে। পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য কেন কিছু বললেন না, সেই প্রসঙ্গ তুলেছেন কংগ্রেসের মুখপাত্র রণদীপ সুরজেওয়ালা। কিন্তু অবাস্তব দাবি করে ট্রোল হয়ে গেল মধ্যপ্রদেশ কংগ্রেস। নিজেদের টুইটার হ্যান্ডেল থেকে দাবি করে যে জিডিপি-র ৫০ শতাংশ কেন দেওয়া হচ্ছে না করোনা খাতে! 

এই টুইট নিয়ে রীতিমত হাসিমস্করা শুরু হয়। কিন্তু তারপরেও টুইট ডিলিট করেনি মধ্যপ্রদেশ কংগ্রেস। 

মঙ্গলবার জাতির উদ্দেশে ভাষণে মোদী জানান, ভারতকে আত্মনির্ভর করে তুলতে হবে। সেটাই হবে অগ্রগতির উপায়। আর আত্মনির্ভর ভারতের গড়ার ক্ষেত্রে কোনগুলি মূল ভিত্তি হবে, তারও বিস্তারিত ব্যাখ্যা দেন মোদী। তিনি বলেন, ‘আত্মনির্ভর ভারতের গড়ার জন্য পাঁচটি মূল স্তম্ভ আছে। সেগুলি হল - অর্থনীতি, পরিকাঠামো, সিস্টেম, জনবিন্যাস এবং চাহিদা।’

আর সেই আত্মনির্ভর ভারত ধারণার বাস্তবায়নের জন্য দ্বিতীয় আর্থিক প্যাকেজের ঘোষণা করেন মোদী। তিনি বলেন, ‘আমি আজ একটি বিশেষ আর্থিক প্যাকেজের ঘোষণা করছি। যা আত্মনির্ভর ভারত অভিযানের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। করোনা নিয়ে সরকার যে ঘোষণা করেছে, রিজার্ভ ব্যাঙ্ক ইন্ডিয়ার ঘোষণা এবং আজকের প্যাকেজ মিলিয়ে এই প্যাকেজ প্রায় ২০ লাখ কোটি টাকার। যা ভারতের জিডিপি'র প্রায় ১০ শতাংশ। এর মাধ্যমে দেশের বিভিন্ন শ্রেণী, আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলি ২০ লাখ কোটি টাকার সম্বল পাবে এবং সাহায্য পাবে। ২০ লাখ কোটি টাকার এই প্যাকেজ ২০২০ সালে ভারতের বিকাশযাত্রাকে (দৃঢ়তা দেবে)। ২০ লাখ - ২০২০-তে আত্মনির্ভর অভিযানকে নতুন গতি দেবে।’

সাম্প্রতিক সময়ে লকডাউন নিয়ে সবথেকে বেশি সময়ের ভাষণে মোদী দাবি করেন, নয়া প্যাকেজের ফলে দেশের সব শ্রেণীর উপকৃত হবেন। তিনি বলেন, ‘জমি, শ্রম, নগদের জোগান এবং আইন - সবকিছুর উপর জোর দেওয়া হয়েছে। বস্ত্র শিল্প, ছোটো শিল্প, ক্ষুদ্র, মাঝারি ও ছোটো শিল্পের জন্য। যারা কোটি কোটি মানুষের জীবিকা। যা আত্মনির্ভর ভারত সংকল্পের মজবুত ভিত্তি। এই আর্থিক প্যাকেজ দেশের সেই শ্রমিকের জন্য, দেশের সেই কৃষকের জন্য, যাঁরা প্রতিটি পরিস্থিতি, প্রতিটি আবহাওয়ায় দেশবাসীর জন্য পরিশ্রম করছেন।’

 

বন্ধ করুন