বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > মহারাষ্ট্রে কি আবারও লকডাউন হবে? জানালেন অজিত পাওয়ার
আগামী ৮-১০ দিন পরিস্থিতির পর্যালোচনা করা হবে। তারপর সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। জানালেন মহারাষ্ট্রের উপ-মুখ্যমন্ত্রী অজিত পাওয়ার। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
আগামী ৮-১০ দিন পরিস্থিতির পর্যালোচনা করা হবে। তারপর সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। জানালেন মহারাষ্ট্রের উপ-মুখ্যমন্ত্রী অজিত পাওয়ার। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)

মহারাষ্ট্রে কি আবারও লকডাউন হবে? জানালেন অজিত পাওয়ার

  • উৎসবের মরশুমে রাস্তায় ঢল নেমেছিল মানুষের। তার জেরে আগামিদিনে রাজ্যে লকডাউনের ঘোষণা করা হতে পারে।

উৎসবের মরশুমে রাস্তায় ঢল নেমেছিল মানুষের। তার জেরে আগামিদিনে রাজ্যে লকডাউনের ঘোষণা করা হতে পারে। এমনটাই ইঙ্গিত দিলেন মহারাষ্ট্রের উপ-মুখ্যমন্ত্রী অজিত পাওয়ার।তবে সে বিষয়ে কোনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। 

রবিবার পুণেতে পাওয়ার বলেন, ‘দীপাবলির সময় প্রচুর ভিড় হয়েছিল। গণেশ চতুর্থীর সময় বড়সড় ভিড় দেখা গিয়েছিল। আমরা সংশ্লিষ্ট দফতরের সঙ্গে কথা বলছি। আগামী ৮-১০ দিন আমরা পরিস্থিতির পর্যালোচনা করব এবং তারপর লকডাউনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’

এমনিতেই গত কয়েকদিন ধরে মহারাষ্ট্রে জল্পনা বেড়েছে যে করোনাভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধির ফলে দিল্লি থেকে ট্রেন ও উড়ান পরিষেবা স্থগিত রাখা হবে। সংবাদসংস্থা পিটিআইকে মহারাষ্ট্রের প্রিন্সিপাল সেক্রেটারি সঞ্জয় কুমার বলেন, ‘রাজ্যে ভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়ে আলোচনা করা হচ্ছে। দিল্লি থেকে ট্রেন ও উড়ান পরিষেবা স্থগিত করার বিষয়টি নিয়েও আলোচনা চলছে।’ তবে তিনি বলেন, ‘তবে এখনও পর্যন্ত কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি।’

সেই জল্পনার মধ্যেই মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরের ডেপুটি বলেন, ‘এখন আশঙ্কা করা হচ্ছে যে দ্বিতীয় স্রোত (সেকেন্ড ওয়েভ) আসতে পারে। স্কুল চালু করার জন্য বিভিন্ন নিয়ম তৈরি করেছে সরকার। তার মধ্যে আছে, কীভাবে স্কুল স্যানিটাইজ করা হবে।’

উল্লেখ্য, শনিবার মহারাষ্ট্রে ৫,৭৬০ জন করোনা আক্রান্তের হদিশ মিলেছে। ওই সময়ের মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৬২ জনের। তার ফলে রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১,৭৭৪,৪৫৫। আর মৃতের সংখ্যা হয়েছে ৪৬,৫৭৩। আর সুস্থ রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১,৬৪৭,০০৪। তাঁদের মধ্যে শনিবার ৪,০৮৮ জন করোনা-মুক্ত হয়েছেন।

বন্ধ করুন