বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > কোভিড নিয়ে এখনই চিনা ল্যাবকে ক্লিনচিট নয় WHO প্রধানের, কড়া প্রতিক্রিয়া বেজিংয়ের
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান (রয়টার্স) (REUTERS)
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান (রয়টার্স) (REUTERS)

কোভিড নিয়ে এখনই চিনা ল্যাবকে ক্লিনচিট নয় WHO প্রধানের, কড়া প্রতিক্রিয়া বেজিংয়ের

  • হু প্রধান বলেন, 'আমি নিজে এককালে ল্যাব টেকনিশিয়ান ছিলাম। এরকম জিনিস হতেই পারে।'

প্রাথমিক ভাবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাই দাবি করেছিল যে চিনের ল্যাব থেকে করোনা ছড়ায়নি। চিনে হু-এর তদন্তকারী দল বিষয়টি খতিয়ে দেখে দাবি করেছিল যে চিনা ল্যাব নিয়ে করা অভিযোগ এবং সন্দেহ ভিত্তিহীন। তবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সেই দাবিকে এখনই সিলমোহর দিতে নারাজ স্বয়ং হু প্রধান টেড্রস অ্যাঢানম গেব্রিসাস। এই বিষয়ে এবার হু প্রধান বলেন, 'আমি নিজে এককালে ল্যাব টেকনিশিয়ান ছিলাম। এরকম জিনিস হতেই পারে।'

এরপর বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান আরও বলেন, 'আমাদের এই বিষয়ে আরও তথ্য লাগবে। অতিমারীর আগে ল্যাব কী পরিস্থিতিতে ছিল বা এখন তা কী অবস্থায় আছে, তা খতিয়ে দেখতে হবে। আমরা সব তথ্য যদি হাতে পাই, তাহলে এই ল্যাব থেকে করোনা ছড়ানোর তত্ত্বক খারিজ করতে পারি।'

এদিকে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার এই নয়া মনোভাবের মাঝেই চিনের দাবি, আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞদের পুরো তথ্য দেওয়া হয়েছে। মার্চে প্রকাশিত রিপোর্টকে উদ্ধৃত করে চিনা বেদিশ মন্ত্রকের মুখপাত্র বলেন, 'তদন্তকারীরা মেনে নিয়েছিলেন যে ল্যাব থেকে করোনা ছড়ানোর তত্ত্ব প্রায় অসম্ভব।' প্রসঙ্গত, উহান ইনস্টিটিউট অফ ভাইরোলজির গবেষণাগার থেকেই করোনা ভাইরাসের উৎপত্তি, বারে বারে এই তত্ত্বের প্রতিবাদ করেছে চিন।

২০১৯-এর শেষে চিনের হুবেই প্রদেশের উহান শহরের একটি বাজারে প্রথম করোনা ভাইরাস সংক্রমণের খবর পাওয়া যায়। মনে করা হয়, এই বাজারে প্যাঙ্গোলিনের মাংস থেকে ছড়ায় করোনা। এরপরই ১ কোটি ১০ লক্ষ মানুষের এই উহানে জারি করা হয় কড়া লকডাউন। লাগাতার ৭৬ দিন বন্ধ থাকার পর কিছু ছাড় দিয়ে লকডাউন উঠলেও জারি ছিল কড়া বিধিনিষেধ। অবশ্য চিন এখন প্রায় করোনামুক্ত। তবে এখনও সারা দুনিয়া হিমশিম খাচ্ছে সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আনতে।

বন্ধ করুন