বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > আবারও কি দেশে লকডাউন হতে চলেছে? জানিয়ে দিলেন মোদী
লকডাউনের সম্ভাবনা উড়িয়ে দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
লকডাউনের সম্ভাবনা উড়িয়ে দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)

আবারও কি দেশে লকডাউন হতে চলেছে? জানিয়ে দিলেন মোদী

  • করোনাভাইরাসে সংক্রমণ বৃদ্ধির মধ্যে দেশে আবারও কি লকডাউন হবে?

দেশে ক্রমশ বাড়ছে করোনাভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা। একাধিক রাজ্যে আংশিক বা সাময়িক লকডাউনের ঘোষণা করা হয়েছে। তার জেরে স্বভাবতই জল্পনা ছড়িয়েছিল, করোনাভাইরাস সংক্রমণ বৃদ্ধির মধ্যে দেশজুড়ে কি আবারও লকডাউন ঘোষণা করা হবে? বৃহস্পতিবার সেই সম্ভাবনা উড়িয়ে দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। পরিবর্তে ‘করোনাভাইরাস কার্ফু’-র পক্ষে সওয়াল করলেন।

করোনা পরিস্থিতি নিয়ে বৃহস্পতিবার মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠক করেন মোদী। সেখানে তিনি জানান, লকডাউনের পরিবর্তে রাত ন'টা বা ১০ টা থেকে ‘করোনাভাইরাস কার্ফু’ জারি করা যেতে পারে। তা চলতে পারে ভোর পাঁচটা বা সকাল ছ'টা পর্যন্ত। মোদীর কথায়, ‘ছোটো ছোটো কনটেন্টমেন্ট জোনের উপর আমাদের জোর দিতে হবে। যেখানে যেখানে নাইট কার্ফু চলছে, সেখানে নাম পরিবর্তন করে করোনাভাইরাস কার্ফু নাম রাখা হোক, যাতে করোনার প্রতি সচেতনতা গড়ে ওঠে। তাতে বাকি জীবনের উপর প্রভাব পড়বে। রাত্রিকালীন কার্ফু নিয়ে অনেকে প্রশ্ন তোলবেন। কিন্তু রাত্রিকালীন কার্ফুর ফলে অন্যান্য সময়ের কাজে প্রভাব পড়ে না। এই নামেই চালু করা হোক। একদিক থেকে করোনাভাইরাস কার্ফু মানুষকে শিক্ষিত করার কাজে লাগবে।’

বৃহস্পতিবার মোদী স্বীকার করে নেন, এবার সংক্রমণ দ্রুতহারে বৃদ্ধি পাচ্ছে। তা সত্ত্বেও কেন লকডাউনের প্রয়োজন নেই, সেই ব্যাখ্যাও দেন। জানান, করোনার প্রথম স্রোত বা ওয়েভ আছড়ে পড়েছিল, তখন দেশে উপযুক্ত পরিকাঠামো ছিল না। পরীক্ষাগার-সহ অন্যান্য পরিকাঠামোর অপ্রতুলতা ছিল। কিন্তু দীর্ঘদিনের চেষ্টায় এখন ভারতের নিজস্ব পরিকাঠামো গড়ে উঠেছে। সেইসঙ্গে টিকাকরণও হচ্ছে। তাই এখন লকডাউনের প্রয়োজন নেই বলে জানিয়ে মোদী।

একইসঙ্গে মোদী প্রস্তাব দেন, আগামী ১১ এপ্রিল (রবিবার) থেকে ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত দেশজুড়ে ‘টিকা উৎসব’ চালু করা হোক। সেই সময় দেশে যত বেশি সংখ্যক টিকা প্রদানের উপর জোর দেন তিনি। সঙ্গে টিকা যাতে একদম নষ্ট না হয়, তা নিশ্চিত করার নির্দেশও দেন।

বন্ধ করুন