বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > বিভেদ, বিতর্ক যে কোনও রাজনৈতিক দলেই হয়-নেপালবাসীদের বার্তা কোণঠাসা ওলির
প্রচণ্ড ও ওলি, যাদের মধ্যে বিভেদ (AP)
প্রচণ্ড ও ওলি, যাদের মধ্যে বিভেদ (AP)

বিভেদ, বিতর্ক যে কোনও রাজনৈতিক দলেই হয়-নেপালবাসীদের বার্তা কোণঠাসা ওলির

ফের মুলতুবি হল শাসকদলের জরুরি বৈঠক, রাজনৈতিক অচলাবস্থা চলছে নেপালে। 

চেয়ার নড়বড়ে। দলের লোকেরা বলছেন এবার গদি ছা়ড়ুন। তারমধ্যেই জাতীয়তাবাদের ধুয়ো তুলে দলের মধ্যে একতা আনার চেষ্টা করলেন নেপালের প্রধানমন্ত্রী কেপি শর্মা ওলি। এদিন জাতীর উদ্দেশে ভাষণে তিনি বললেন যে দেশের একতা ও অখণ্ডতাকে অক্ষুণ্ণ রাখার জন্য তিনি যথাসাধ্য চেষ্টা করবেন। 

শুক্রবার চতুর্থবারের জন্য নেপালের শাসক কম্যুনিস্ট পার্টির স্ট্যান্ডিং কমিটির বৈঠক পিছিয়ে গিয়েছে। সরকারি ভাবে বন্যার কারণ দেখানো হলেও প্রচণ্ড ও ওলির মধ্যে বিভেদে কারণেই এই বৈঠক হয়নি বলে জানা গিয়েছে। 

এদিন অবশ্য এই বিভেদকে লঘু করে দেখাতে চেয়েছেন নেপালের প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন যে এমন বিতর্ক, আলোচনা ও মতাভেদ সব রাজনৈতিক দলেই থাকে। দেশবাসীকে তিনি বলেন যে যথাসাধ্য চেষ্টা করবেন জাতীয় একতা বাড়ানোর ও জাতীর আত্মমর্যাদা যাতে বাড়ে। 

তাঁর ভারত বিরোধী কার্যকলাপের জন্য দলের মধ্যে চাপে ওলি। এদিন নিজের আচরণের স্বপক্ষে জাতীয়তাবাদের তাস খেলে ওলি বলেন দেশের অখণ্ডতা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষার্থে তিনি বদ্ধপরিকর। এই মুহূর্তে তীব্র বন্যায় ধস নেমে দেশে ২২জন মারা গিয়েছেন। সেই পরিপ্রেক্ষিতে ওলি বলেন যে মানুষের প্রাণ ও সম্পতি রক্ষা করতে সবরকমের চেষ্টা করা হচ্ছে। 

প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও ভারত বিরোধী জিগির তুলেই আপাতত চেয়ার ধরে রাখতে চান ওলি। সেই উদ্দেশেই শুক্রবারের ভাষণ। কিন্তু এতে চিঁড়ে ভেজে কিনা, নিজের দলের মধ্যে ওলি সমর্থন ফিরে পান কিনা, সেটা বোঝা যাবে ১৭ জুলাইয়ের বৈঠকে।

বন্ধ করুন