বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Woman attacks Parents of Live-in Partner: লিভ ইন পার্টনার নিখোঁজ, সন্দেহের বশে যুবকের মা-বাবাকে ছুরিকাত বিবাহিত যুবতীর

Woman attacks Parents of Live-in Partner: লিভ ইন পার্টনার নিখোঁজ, সন্দেহের বশে যুবকের মা-বাবাকে ছুরিকাত বিবাহিত যুবতীর

নিখোঁজ লিভ ইন পার্টনারের মা-বাবাকে ছুরিকাত বিবাহিত যুবতীর

রিপোর্ট অনুযায়ী, অভিযুক্ত যুবতী বিবাহিত। কিন্তু নিজের স্বামীর সঙ্গে না থেকে তিনি রাম বাথামের সঙ্গে বসবাস করতেন। ভারতীয় দণ্ডবিধির  প্রাসঙ্গিক ধারায় অভিযুক্ত যুবতীর বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

লিভ ইন পার্টনার নিখোঁজ। আর এর জেরেই সঙ্গীর মা-বাবার ওপর ছুরি দিয়ে হামলা চালাল এক যুবতী। মর্মান্তিক এই ঘটনাটি ঘটেছে মধ্যপ্রদেশের গোয়ালিয়রে। জানা গিয়েছে, দুই দিন ধরে লিভ ইন পার্টনার নিখোঁজ থাকায় তাঁর বাবা-মায়ের ওপর সন্দেহ হয় যুবতীর। এই আবহে ছুরি দিয়ে পার্টনারের মা-বাবার ওপরই আক্রমণ করে বসেন সেই যুবতী। এদিকে অভিযুক্ত ওই যুবতীকে আটক করা হয়েছে। অপরদিকে দুই দিন আগে নিখোঁজ হওয়া লিভ ইন পার্টনার এখনও নিখোঁজ রয়েছেন। (আরও পড়ুন: ট্রেনে জামাকাপড় খুলিয়ে বেল্ট দিয়ে মার, দাড়ি ধরে টান রেলযাত্রীর, ভাইরাল ভিডিয়ো)

ইন্ডিয়া টুডে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রাম লক্ষণ বাথাম নামের ওই ব্যক্তি নিখোঁজ হয়েছেন দুই দিন আগে। যে মহিলা রাম বাথামের সঙ্গে লিভ ইন সম্পর্কে ছিলেন তিনি মনে করেছিলেন যে তাঁর পরিবার তাঁকে দূরে পাঠিয়েছে। এরপর ওই যুবতী রাম বাথামের বাবার বাড়িতে যান এবং ছুরি দিয়ে তাঁর মায়ের গলায় ছুরিকাঘাত করে। বাথমের বাবা যুবতীকে আটকানোর চেষ্টা করেছিলেন। ঘটনায় তিনিও যুবতীর ছুরিকাঘাতে জখন হয়েছেন।

আরও পড়ুন: পোষা কুকুরের থেকে বাঁচতে তিনতলা থেকে ঝাঁপ, মর্মান্তিক মৃত্যু ফুড ডেলিভারি বয়ের

রিপোর্ট অনুযায়ী, অভিযুক্ত যুবতী বিবাহিত। কিন্তু নিজের স্বামীর সঙ্গে না থেকে তিনি রাম বাথামের সঙ্গে বসবাস করতেন। ভারতীয় দণ্ডবিধির (আইপিসি) প্রাসঙ্গিক ধারায় অভিযুক্ত যুবতীর বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এদিকে, নিখোঁজ ব্যক্তিকে খুঁজতে পুলিশ তল্লাশি শুরু করেছে।

আরও পড়ুন: 'বাবা হারানোর পর চাকরি...', ভাইরাল অ্যামাজন কর্মীর পোস্ট, অফিস জুড়ে কান্নাকাটি

অন্য একটি ঘটনায়, শুক্রবার পূর্ব দিল্লির মজবুর নগর ক্যাম্পে বন্ধুদের সাথে ঝগড়ার পর এক ব্যক্তিকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে। নিহত টিটু তারা ওয়াটি হাসপাতালের কাছে মান্দাওয়ালী উচ্চ এলাকার বাসিন্দা। মৃত যুবক এর আগে হত্যা ও ডাকাতি মামলায় জড়িত ছিল বলে পুলিশ জানিয়েছে।

এই খবরটি আপনি পড়তে পারেন HT App থেকেও। এবার HT App বাংলায়। HT App ডাউনলোড করার লিঙ্ক https://htipad.onelink.me/277p/p7me4aup

বন্ধ করুন