কড়া নিরাপত্তা জাফরাবাদে
কড়া নিরাপত্তা জাফরাবাদে

জাফরাবাদে পাততাড়ি গোটাল বিক্ষোভকারীরা, দ্বিতীয় শাহিনবাগ হতে দিলাম না, বললেন কপিল মিশ্র

মঙ্গলবার রাতেই অঞ্চল ছেড়ে চলে যান বিক্ষোভকারীরা।

জাফরাবাদ মেট্রো স্টেশন আটকে সিএএ-র বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করছিলেন যে মহিলারা, মঙ্গলবার রাতে তারা সেই স্থান ছেড়ে চলে গিয়েছেন, বলে জানিয়েছে দিল্লি পুলিশ। বুধবার সকাল থেকে স্বাভাবিক মেট্রো চলাচল শুরু হয়েছে। দিল্লি পুলিশের বিশেষ কমিশনার সতীশ গোলচা বলেন যে জাফরাবাদ স্টেশন খালি করে চলে গিয়েছেন বিক্ষোভকারীরা। পুরোপুরি খালি মৌজপুর চকও।

এই ঘটনায় খুশি বিজেপি নেতা কপিল মিশ্র। দ্বিতীয় শাহিন বাগ রোখা গিয়েছে বলে টুইটারে ভিডিও পোস্ট করেছেন তিনি। তাঁরই জন্যই এই বিক্ষোভকারীরা উঠে গিয়েছে, এরকম টুইট রিটুইটও করছেন তিনি।

প্রসঙ্গত কপিল মিশ্রর বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে, বিক্ষোভকারীদের উস্কানোর। তাঁর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবিও করেছেন বিজেপি সাংসদ গৌতম গম্ভীর। এসবে অবশ্য বিচলিত নন কপিল মিশ্র। তাঁর সাফ কথা সিএএ-র সমর্থনে কথা বলে তিনি কোনও দোষ করেননি।

বিক্ষোভকারী মহিলাদের অবশ্য দাবি যে অস্থায়ী ভাবে সরে গিয়েছেন তাঁরা। পরিস্থিতি একটু শান্ত হলেই ফের জাফরাবাদ স্টেশনে ফিরে যাবেন তাঁরা। দুই কিলোমিটার দুরেে শীলমপুরে এখন প্রতিবাদ করেছেন তাঁরা। যে পাঁচটি স্টেশন বন্ধ ছিল, আজ সকাল থেকে শুরু হয়েছে পরিষেবা। উত্তর-পূর্ব দিল্লিতে কার্ফু ও শুট অ্যাট সাইটের নির্দেশ দিয়েছে পুলিশ। রবিবার থেকে শুরু হওয়া হামলায় ইতিমধ্যেই এক পুলিশকর্মী সহ ২০ জন মারা গিয়েছেন। এখনও পর্যন্ত ১১টি এফআইআর দায়ের করেছে পুলিশ।



সিএএ পাশ হওয়ার পর থেকেই দিল্লির শাহিন বাগে প্রতিবাদ বিক্ষোভ করছেন মুসলিম মহিলারা। সেই ধারায় জাফরাবাদেও বিক্ষোভ করছিলেন সিএএ-বিরোধীরা। কিন্তু লাগামহীন হিংসার ফলে কিছুটা হলেও পিছিয়ে এলেন তাঁরা। এরই কৃতিত্ব দাবি করছেন কপিল মিশ্র।




.

বন্ধ করুন