বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > চিনা পণ্য বয়কটের আঁচ পড়ল না বিক্রিতে, স্মার্টফোন বাজারে এখনো পয়লা নম্বরে Xiaomi
People walk past a Xiaomi store in Shenyang, Liaoning province, China June 12, 2018. REUTERS/Stringer/Files (REUTERS)

চিনা পণ্য বয়কটের আঁচ পড়ল না বিক্রিতে, স্মার্টফোন বাজারে এখনো পয়লা নম্বরে Xiaomi

  • এই তথ্য থেকে একটা জিনিস স্পষ্ট, আত্মনির্ভরতার ডাক সত্বেও ভারতীয় স্মার্টফোন বাজারের প্রায় গোটাটাই বিদেশি সংস্থাদের দখলে। যার মধ্যে স্যামসাং বাদ দিলে বাকি প্রত্যেকটিই চিনা সংস্থা।

দেশজুড়ে চিনা পণ্য বয়কটের ডাকের মধ্যেও ভারতের স্মার্টফোন বাজারে নিজের আধিপত্য ধরে রাখল চিনা সংস্থা শাওমি। চলতি অর্থবর্ষের দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকের বিকিকিনির রিপোর্ট বলছে গত ৩ মাসে শাওমি ফোনের বিক্রি কমেছে মাত্র ১ শতাংশ। কম বেশি নিজেদের বিক্রি ধরে রেখেছে প্রায় সমস্ত চিনা সংস্থা। উল্লেখযোগ্যভাবে বাজারে নিজেদের দখল বাড়িয়েছে দক্ষিণ কোরিয় স্মার্টফোন নির্মাতা স্যামসাং ইলেক্ট্রনিক্স। 

সম্প্রতি প্রকাশিত তথ্য অনুসারে ভারতীয় স্মার্টফোন বাজারে শাওমির দখল এখন ২৯ শতাংশ। গত ত্রৈমাসিকের থেকে যা মাত্র ১ শতাংশ কম। ডোকলামে চিনা আগ্রাসনের পর সেদেশের পণ্য বয়কটের ডাক ও লকডাউনের পরেও শাওমিরই দখলে ভারতীয় স্মার্টফোন বাজারের সব থেকে বড় অংশ। 

ওদিকে এই সময় ভারতীয় বাজারে নিজেদের দখল প্রায় ১০ শতাংশ বাড়িয়েছে স্যামসাং। যার ফলে স্যামসাং-এর দখলে এসেছে ২৬ শতাংশ বাজার। এর ফলে দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে তারা। তৃতীয় স্থানে রয়েছে ভিভো। IPL-এর টাইটেল স্পনশরশিপ হারালেও তাদের দখলে রয়েছে বাজারের ১৭ শতাংশের দখল। চতুর্থতে রয়েছে রিয়েলমি। তাদের মার্কেট শেয়ার ১১ শতাংশ। রিয়েলমির কর্ণধার ব্র্যান্ড ওপোর মার্কেট শেয়ার কমেছে ৩ শতাংশ। ১২ শতাংশ থেকে নেমে তা হয়ে ৯ শতাংশ।

এই তথ্য থেকে একটা জিনিস স্পষ্ট, আত্মনির্ভরতার ডাক সত্বেও ভারতীয় স্মার্টফোন বাজারের প্রায় গোটাটাই বিদেশি সংস্থাদের দখলে। যার মধ্যে স্যামসাং বাদ দিলে বাকি প্রত্যেকটিই চিনা সংস্থা। 

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ভারতীয় ক্রেতা সব সময় দাম যাচাই করে জিনিস কেনে। আর চিনা সংস্থার মতো সস্তায় ফোন বা অন্য প্রযুক্তি অন্য কোনও দেশ দিতে পারে না। ফলে প্রয়োজনে সেই চিনা সংস্থারই দ্বারস্থ হতে হয় ভারতীয় ক্রেতাকে। 

 

বন্ধ করুন