বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Xiaomi Allegations on ED: শারীরিক বলপ্রয়োগের হুমকি নয়, চিনা সংস্থা শাওমির ‘অভিযোগ’ পুরো ‘ভিত্তিহীন’: ED
শাওমির অভিযোগ উড়িয়ে দিল ইডি। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্যে রয়টার্স)
শাওমির অভিযোগ উড়িয়ে দিল ইডি। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্যে রয়টার্স)

Xiaomi Allegations on ED: শারীরিক বলপ্রয়োগের হুমকি নয়, চিনা সংস্থা শাওমির ‘অভিযোগ’ পুরো ‘ভিত্তিহীন’: ED

  • সংবাদসংস্থা রয়টার্সের একটি প্রতিবেদনে দাবি করা হয়, কর্ণাটক হাইকোর্টে শাওমি অভিযোগ করেছে যে বেঙ্গালুরুতে জিজ্ঞাসাবাদের সময় সংস্থার উচ্চপদস্থ কর্তাদের হুমকি দিয়েছেন ইডির আধিকারিকরা। সেই অভিযোগ পুরোপুরি উড়িয়ে দিল ইডি।

ইডির বিরুদ্ধে ‘শারীরিক বলপ্রয়োগের’ হুমকি দেওয়ার অভিযোগ তুলেছিল শাওমি ইন্ডিয়া। যে অভিযোগ উড়িয়ে দিল এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)। ভারতের কেন্দ্রীয় সংস্থার তরফে স্পষ্টভাবে জানানো হল, ভিত্তিহীন অভিযোগ করেছে চিনা মোবাইল প্রস্তুতকারক সংস্থার সম্পূর্ণ মালিকাধীন শাওমি ইন্ডিয়া। 

সংবাদসংস্থা রয়টার্সের একটি প্রতিবেদনে দাবি করা হয়, কর্ণাটক হাইকোর্টে শাওমি অভিযোগ করেছে যে বেঙ্গালুরুতে জিজ্ঞাসাবাদের সময় সংস্থার উচ্চপদস্থ কর্তাদের হুমকি দিয়েছেন ইডির আধিকারিকরা। গত বুধবার (৪ মে) শাওমি অভিযোগ করে, ইডি হুমকি দিয়েছে যে ভারতে সংস্থার প্রাক্তন প্রধান মনু কুমার জৈন এবং চিফ ফিনান্সিয়াল অফিসার সমীর বি এস রাও যদি কেন্দ্রীয় সংস্থার ইচ্ছা মতো বিবৃতি না দেন, তাহলে তাঁদের এবং তাঁদের পরিবারকে 'চরম ফল' ভুগতে হবে।

আরও পড়ুন: আইনভঙ্গের অভিযোগ, চিনা সংস্থা শাওমির ৫,৫৫১.২৭ কোটি টাকা বাজেয়াপ্ত করল ED

একাধিক রিপোর্টের পরিপ্রেক্ষিতে বিবৃতি জারি করে ইডির তরফে জানানো হয়, শাওমির তরফে যে অভিযোগ করা হচ্ছে, তা পুরোপুরি ভিত্তিহীন এবং মিথ্যা। ইডি একটি পেশাদারি তদন্ত সংস্থা, যা নীতি মেনে কাজ করে। কোনও ক্ষেত্রেই সংস্থার কোনও আধিকারিক ভয় দেখান না। ইডির বিবৃতিতে বলা হয়, ‘ফেমার অধীনে একাধিকবার স্বেচ্ছায় সবথেকে অনুকূল পরিবেশে ইডির কাছে বয়ান রেকর্ড করেছেন শাওমি ইন্ডিয়ার আধিকারিকরা।’

উল্লেখ্য, গত মাসের শেষের দিকে শাওমির ৫,৫৫১.২৭ কোটি টাকা বাজেয়াপ্ত করেছে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)। কেন্দ্রীয় সংস্থার তরফে জানানো হয়, ১৯৯৯ সালের ফরেন এক্সচেঞ্জ ম্যানেজমেন্ট অ্যাক্টের (ফেমা) আওতায় শাওমির অ্যাকাউন্ট থেকে সেই অর্থ বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। কেন্দ্রীয় সংস্থার তরফে জানানো হয়, ১৯৯৯ সালের ফরেন এক্সচেঞ্জ ম্যানেজমেন্ট অ্যাক্টের আওতায় শাওমি টেকনোলজি ইন্ডিয়া প্রাইভেট লিমিটেডের অ্যাকাউন্ট থেকে সেই অর্থ বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে।

বন্ধ করুন