বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > DHFL-Yes Bank Scam: সঞ্জয় ছাবরিয়ার ২৫১ কোটির সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করল ED
ফাইল ছবি: টুইটার (Twitter)

DHFL-Yes Bank Scam: সঞ্জয় ছাবরিয়ার ২৫১ কোটির সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করল ED

  • রেডিয়াস এস্টেট অ্যান্ড ডেভেলপার্স প্রাইভেট লিমিটেড এবং রঘুলীলা বিল্ডার্স প্রাইভেট লিমিটেডের কর্তা ছিলেন সঞ্জয় ছাবরিয়া। ডিএইচএফএল-ইয়েস ব্যাঙ্ক জালিয়াতির মামলায় গত এপ্রিল মাসে তাঁকে গ্রেফতার করে সিবিআই।

ইয়েস ব্যাঙ্ক- ডিএইচএফএল কেলেঙ্কারির তদন্তে বড়সড় মোড়। রেডিয়াস গ্রুপের এমডি সঞ্জয় ছাবরিয়ার ২৫১ কোটি টাকার সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করল এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)। একই সঙ্গে অবিনাশ ভোসলের ১৬৪ কোটি টাকার সম্পদ বাজেয়াপ্ত করেছে ইডি।

২ অগস্ট, দু'টি অস্থায়ী বাজেয়াপ্ত নির্দেশিকা জারি করে ইডি। প্রিভেনশন অফ মানি লন্ডারিং অ্যাক্ট (PMLA)-এর অধীনে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

সঞ্জয় ছাবরিয়ার বাজেয়াপ্ত সম্পত্তির মধ্যে রয়েছে সান্তাক্রুজ, মুম্বইয়ের ১১৬.৫ কোটি টাকার জমি। তার পাশাপাশি ছাবরিয়ার সংস্থায় ২৫% ইক্যুইটি শেয়ার, বেঙ্গালুরুর ১১৫ কোটির জমি, সান্তাক্রুজ, মুম্বইতে অবস্থিত ৩ কোটি টাকার ফ্ল্যাট। তাছাড়া দিল্লি বিমানবন্দরে ছাবরিয়ার হোটেল থেকে প্রাপ্ত ১৩.৬৭ কোটি টাকার মুনাফা। সেই সঙ্গে রয়েছে সঞ্জয় ছাবরিয়ার তিনটি বিলাসবহুল গাড়ি। সব মিলিয়ে তিনটি গাড়ির দাম ৩.১০ কোটি টাকা।

অন্যদিকে অবিনাশ ভোসলের বিলাসবহুল ডুপ্লেক্স ফ্ল্যাট, পুনে, নাগপুরের বিপুল জমি বাজেয়াপ্ত করেছে ইডি।

ইয়েস ব্যাঙ্কের প্রায় ১২২ কোটি টাকা প্রতারণায় অভিযুক্ত সঞ্জয় ছাবরিয়া।

রেডিয়াস এস্টেট অ্যান্ড ডেভেলপার্স প্রাইভেট লিমিটেড এবং রঘুলীলা বিল্ডার্স প্রাইভেট লিমিটেডের কর্তা ছিলেন তিনি। ডিএইচএফএল-ইয়েস ব্যাঙ্ক জালিয়াতির মামলায় গত এপ্রিল মাসে তাঁকে গ্রেফতার করে সিবিআই।

তাঁর বিরুদ্ধে ইয়েস ব্যাঙ্ক থেকে একটি মেয়াদী ঋণ এবং একটি ওভারড্রাফ্ট বেনেফিট নেওয়া এবং ঋণ খেলাপির অভিযোগ রয়েছে। ব্যাঙ্কের অভ্যন্তরীণ তদন্তে জানা গিয়েছে যে, তিনি তহবিল নয়ছয় করেছেন এবং সেগুলি ভিন্ন উদ্দেশ্যে ব্যবহার করেন।

বন্ধ করুন