বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > শিক্ষা ক্ষেত্রে অবদানের স্বীকৃতি,৩.৯ মিলিয়ন ডলার মূল্যের পুরস্কার বাঙালির ঝুলিতে
'প্রথম এডুকেশন ফাউন্ডেশনে'র সিইও ডঃ রুক্মিণী বন্দ্যোপাধ্যায় (ছবি সৌজন্যে মিন্ট)
'প্রথম এডুকেশন ফাউন্ডেশনে'র সিইও ডঃ রুক্মিণী বন্দ্যোপাধ্যায় (ছবি সৌজন্যে মিন্ট)

শিক্ষা ক্ষেত্রে অবদানের স্বীকৃতি,৩.৯ মিলিয়ন ডলার মূল্যের পুরস্কার বাঙালির ঝুলিতে

  • Yidan Prize: শিক্ষা ক্ষেত্রে অবদানের জন্য আন্তর্জাতিক পুরস্কার পেলেন 'প্রথম এডুকেশন ফাউন্ডেশনে'র সিইও ডঃ রুক্মিণী বন্দ্যোপাধ্যায়। শিক্ষা ক্ষেত্রে অবদানের স্বীকৃতি,৩.৯ মিলিয়ন ডলার মূল্যের পুরস্কার বাঙালির ঝুলিতে।

শিক্ষা ক্ষেত্রে অবদানের জন্য ইয়াদান পুরস্কার পেলেন 'প্রথম এডুকেশন ফাউন্ডেশন' নামক সংস্থার সিইও ডঃ রুক্মিণী বন্দ্যোপাধ্যায়। শিক্ষার মান উন্নত করে পড়ুয়াদের ফলাফল উন্নত করার কাজের জন্য এই পুরস্কার পান তিনি। ইয়াদান প্রাইজ ফাউন্ডেশনের তরফে দেওয়া এই পুরস্কারের অর্থমূল্য ৩০ মিলিয়ন হংকং ডলার যা প্রায় ৩.৯ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের সমান। ২০১৬ সাল থেকে এই পুরস্কার দেওয়া শুরু হয়েছে।

'শিক্ষার বার্ষিক অবস্থা প্রতিবেদনে'র (ASER) মূল্যায়নের মাধ্যমে এই পুরস্কারটি দেওয়া হয়ে থাকে। এই পুরস্কার এমন মানুষদের দেওয়া হয়, যাঁরা শিক্ষার অগ্রগতি এবং পরিবর্তন নিয়ে কাজ করছেন। ২০১৬ সাল থেকে মোট নয়জন মানুষ এই পুরকস্কারটি পেয়েছে।

স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের হুভার ইনস্টিটিউশনের অধ্যাপক এরিক এ হানুশেক, সিনিয়র ফেলো পল এবং জিন হ্যানাও এই পুরস্কার পেয়েছেন এই বছর। বিহারের বাসিন্দা ডঃ রুক্মিণী বন্দ্যোপাধ্যায়ের মতে, ভবিষ্যতে ছোট শিশুদের নিয়ে কাজের প্রসার ঘটাতে সাহায্য করবে এই পুরস্কারটি। তিনি ASER মূল্যায়ন পদ্ধতি এবং 'সঠিক স্তরে শিক্ষাদান' প্রোগ্রামের মাধ্যমে গুরুত্বপূর্ণ কাজ করেছেন ইতিমধ্যেই।

রুক্মিণী বন্দ্যোপাধ্যায়কে এই পুরস্কার দেওয়া প্রসঙ্গে পুরস্কার প্রদানকারী প্যানেলের প্রধান ডরোথি কে গর্ডন জানান রুক্মিণী বন্দ্যোপাধ্যায়ের সংস্থার লক্ষ্য সমীক্ষা চালিয়ে শিক্ষার মান বাড়ানো। প্রথমের মূল বক্তব্য, 'আমাদের শুধু শিক্ষার নয় শিক্ষার মানের দিকেও মনোযোগ দিতে হবে।' গর্ডন বলেন, 'এরিক এবং রুক্মিনী উভয়েই শিক্ষা ক্ষেত্রের একটি গুরুত্বপূর্ণ ধাঁধার মোকাবিলা করছেন: শিক্ষার মান উন্নত করা। এরিকের গবেষণায় দেখা গিয়েছে যে শিক্ষার মান তাদের জাতির অর্থনৈতিক স্বাস্থ্যের উপর নির্ভর করে। রুক্মিণীও অভূতপূর্ব কাজ করে এটা বোঝার চেষ্টা চালাচ্ছেন যে কিছু শিশু কেন প্রয়োজনীয় পড়া-লেখার দক্ষতা অর্জনা না করেই স্কুল ছাড়ছে।'

বন্ধ করুন