বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Zomato: শিক্ষকের চাকরি হারিয়ে সাইকেলে ডেলিভারি, বাইকের টাকা দিলেন নেটিজেনরা

Zomato: শিক্ষকের চাকরি হারিয়ে সাইকেলে ডেলিভারি, বাইকের টাকা দিলেন নেটিজেনরা

৪২ ডিগ্রি সেলসিয়াসের গরমেও সাইকেলে Zomato-র ডেলিভারি করতেন দুর্গা। ক্রাউড ফান্ডিংয়ের টাকায় পেলেন মোটরসাইকেল। ছবি: টুইটার (Twitter)

জোমাটোর ডেলিভারি ম্যানের জন্য ক্রাউড ফান্ডিংয়ে উঠল টাকা। রাজস্থানের কাহিনী ভাইরাল নেট দুনিয়ায়। 

Zomato ডেলিভারি ম্যানকে মোটরসাইকেল কিনতে সাহায্য নেটিজেনদের। অত্যাধিক গরমে যাতে ওই কর্মী সহজে ডেলিভারি করতে পারেন, তাঁর জন্য সেই ব্যবস্থা। ক্রাউড ফান্ডিংয়ে, মাত্র ৪ ঘণ্টায় উঠল ৭৫ হাজার টাকা।

ঘটনাটি কী?

রাজস্থানের বাসিন্দা আদিত্য শর্মা নামের এক Zomato গ্রাহকের এক অর্ডার থেকে এর সূত্রপাত। ডেলিভারি নেওয়ার সময় তিনি বেশ আবেগতাড়িত হয়ে যান। দেখেন তাপমাত্রা ৪২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সেই গরমেও, পুরনো একটি সাইকেল চালিয়ে ডেলিভারি দিতে এসেছেন এক ব্যক্তি। আরও পড়ুন: চাকরি করতেন TCS-এ, তারপর Zomato-য় ফুড ডেলিভারি এজেন্টের কাজ IT ইঞ্জিনিযারের

শুধু তাই নয়। তাঁর সঙ্গে কিছুক্ষণ কথাও বলেন আদিত্য। তারপরেই সেই জোমাটো এক্সিকিউটিভের কষ্টের কাহিনী উঠে আসে। টুইটারে সেই কষ্টের কাহিনী শেয়ার করেন তিনি।

আদিত্য লেখেন, 'ওঁর নাম দুর্গা মীনা, বয়স ৩১ বছর। গত ৪ মাস ধরে ডেলিভারি করছেন। মাসে প্রায় ১০ হাজার টাকা উপার্জন করেন। দুর্গা একজন শিক্ষক। গত ১২ বছর ধরে শিক্ষকতা করছেন। কোভিডের সময়, তিনি একটি স্কুলে শিক্ষকতার চাকরি হারান। আমার সঙ্গে ইংরাজিতে কথা বলছিলেন তিনি।'

শুধু তাই নয়, ওই ডেলিভারি পার্সন যে রীতিমতো শিক্ষিত, সেটাও উল্লেখ করেন আদিত্য। তিনি জানান, দুর্গা B.Com করেছেন। M.Com করতে চান, কিন্তু বর্তমানে আর্থিক অবস্থার কারণে Zomato-র সঙ্গে কাজ শুরু করেছেন।

'ওঁর ইন্টারনেটের ব্যবহারের ধারণা আছে। দুর্গা আমাকে বলেছিলেন যে তিনি ভাল ওয়াইফাই-সহ একটি ল্যাপটপ চান, যাতে তিনি পড়ুয়াদের অনলাইনে পড়াতে পারেন' লিখেছেন আদিত্য।

ওই ডেলিভারি পার্সনের নামে একাধিক ব্যাঙ্কের ঋণ রয়েছে। সেটা মেটাচ্ছেন। আর তার মধ্যেই বাইক কেনার চেষ্টা করছেন।

ডেলিভারি এক্সিকিউটিভটি আদিত্যকে বলেন, তিনি দিনে ১০-১২টি অর্ডার সরবরাহ করেন। যদি তাঁর একটি বাইক থাকে, তবে কাজটা সহজ হয়ে যাবে।

এরপর দুর্গা আদিত্যকে অনুরোধ করেন, 'আপনি যদি ডাউনপেমেন্ট দিয়ে সাহায্য করেন, সেক্ষেত্রে আমি EMI শোধ করব এবং ৪ মাসের মধ্যে সুদসমেত ডাউনপেমেন্ট ফেরত দেব।'

না, নিজে টাকা দিতে পারেননি আদিত্য। তবে, তার অন্য ব্যবস্থা বের করেন তিনি। ঠিক করেন, ক্রাউড ফান্ডিংয়ের মাধ্যমে সেই টাকার ব্যবস্থা করবেন তিনি। সেই মতো, টুইটে লেখেন, 'আমি ঠিক করেছি ক্রাউড ফান্ডিংয়ের মাধ্যমে ৭৫ হাজার টাকা তুলতে চাই। জানি, টাকার অঙ্কটা অনেকটাই বেশি। কিন্তু যদি ৭৫ হাজার মানুষ ১ টাকা করেও দেন, তাহলেও ওঁর স্বপ্ন পূরণ হবে।'

এরপরেই ঘটল ম্যাজিক

আদিত্যর টুইটটি ঝড়ের বেগে ভাইরাল হয়ে যায়। মাত্র ৪ ঘণ্টার মধ্যেই ৭৫ হাজার টাকা উঠে যায় ক্রাউড ফান্ডিংয়ে।

এর পরের দিনই দুর্গা মীনাকে নিয়ে মোটরসাইকেলের শোরুমে যান আদিত্য। মোটরসাইকেল কেনেন তিনি। শোরুমে গিয়ে দৃশ্যতই আবেগপ্রবণ হয়ে যান দুর্গা। দেখুন সেই মুহূর্তের ভিডিয়ো।

Zomato-র প্রতিষ্ঠাতা এবং সিইও দীপিন্দর গোয়েলও ভিডিয়োটি শেয়ার করেছেন।

বন্ধ করুন