ছোটদের বড়দিন.. ক্রিসমাসের উত্সবটা ওদের জন্যও স্পেশ্যাল

  • ক্রিসমাসের জোয়ারে গা ভাসিয়েছেন হুজুগে বাঙালি। তবে আনন্দের এই দিনে অন্যের মুখে হাসি ফোটানোটাই তো সবচেয়ে জরুরি। তেমন এক উদ্যোগ নিল প্রয়াস। সমাজের পিছিয়ে পড়া বা বিশেষভাবে সক্ষম পঞ্চাশ জন শিশুর একটু হাসি ফোটানোর চেষ্টা করল এই সংগঠন।
বড়দিনের আনন্দটা তো সকলের জন্যই সমান। বিশেষত ছোটদের কাছে এইদিনটা খুবই স্পেশ্যাল। তবে সকল শিশুর জন্য ক্রিসমাস মানেই সেটা আনন্দের তেমনটা হয় না। সমাজের পিছিয়ে পড়া সেই সব বাচ্চা কিংবা বিশেষভাবে সক্ষম শিশু, যারা সমাজের মূলস্রোত থেকে সমসময়ই পিছিয়ে থাকে তাদের জন্য একটা বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিল 'প্রয়াস'।
1/6বড়দিনের আনন্দটা তো সকলের জন্যই সমান। বিশেষত ছোটদের কাছে এইদিনটা খুবই স্পেশ্যাল। তবে সকল শিশুর জন্য ক্রিসমাস মানেই সেটা আনন্দের তেমনটা হয় না। সমাজের পিছিয়ে পড়া সেই সব বাচ্চা কিংবা বিশেষভাবে সক্ষম শিশু, যারা সমাজের মূলস্রোত থেকে সমসময়ই পিছিয়ে থাকে তাদের জন্য একটা বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিল 'প্রয়াস'।
উত্তম মঞ্চে আয়োজিত এদিনের অনুষ্ঠানে সামিল হয়েছিলেন ডিজাইনার অগ্নিমিত্রা পাল, শর্ববী দত্ত, অভিনেত্রী রিচা শর্মা, পরিচালক রেশমি মিত্ররা।
2/6উত্তম মঞ্চে আয়োজিত এদিনের অনুষ্ঠানে সামিল হয়েছিলেন ডিজাইনার অগ্নিমিত্রা পাল, শর্ববী দত্ত, অভিনেত্রী রিচা শর্মা, পরিচালক রেশমি মিত্ররা।
ওরাও কোনও অংশে কম নয়... এদিনের অনুষ্ঠানে স্পেশ্যাল চিল্ড্রেনদের এই পারফরমেন্স বুঝিয়ে দিল ওরা কতটা স্পেশ্যাল।
3/6ওরাও কোনও অংশে কম নয়... এদিনের অনুষ্ঠানে স্পেশ্যাল চিল্ড্রেনদের এই পারফরমেন্স বুঝিয়ে দিল ওরা কতটা স্পেশ্যাল।
এদিন উত্তম মঞ্চে পারফর্ম করলেন অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তের কন্যা ঋষনা।
4/6এদিন উত্তম মঞ্চে পারফর্ম করলেন অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তের কন্যা ঋষনা।
নাচের মধ্য দিয়ে কচিকাঁচাদের মন জয় করে নিলেন অভিনত্রী দেবলীনা কুমার , পরিচালক রেশমি মিত্র
5/6নাচের মধ্য দিয়ে কচিকাঁচাদের মন জয় করে নিলেন অভিনত্রী দেবলীনা কুমার , পরিচালক রেশমি মিত্র
অনুষ্ঠানের অন্যতম উদ্যোক্তা নৃত্যশিল্পী তথা কোরিওগ্রাফার অভিরূপ সেনগুপ্তর কথায়, 'ছোটোদের জন্য কিছু করতে পারাটা সবসময়ই আনন্দের। উত্সবটা তো সবার। আনন্দ ভাগ করে নিলে সেটা দ্বিগুণ হয়ে যায়। এটাই আমার বিশ্বাস'।
6/6অনুষ্ঠানের অন্যতম উদ্যোক্তা নৃত্যশিল্পী তথা কোরিওগ্রাফার অভিরূপ সেনগুপ্তর কথায়, 'ছোটোদের জন্য কিছু করতে পারাটা সবসময়ই আনন্দের। উত্সবটা তো সবার। আনন্দ ভাগ করে নিলে সেটা দ্বিগুণ হয়ে যায়। এটাই আমার বিশ্বাস'।
অন্য গ্যালারিগুলি