বাংলা নিউজ > ছবিঘর > বিভিন্ন দোকান খোলায় ছাড়, চলতে পারে IT অফিসও - একাধিক বিধিনিষেধ লঘু করল রাজ্য

বিভিন্ন দোকান খোলায় ছাড়, চলতে পারে IT অফিসও - একাধিক বিধিনিষেধ লঘু করল রাজ্য

  •  আগামী ১৫ জুন পর্যন্ত রাজ্যে কড়া বিধিনিষেধের ঘোষণা করা হয়েছিল। তবে তা কিছুটা লাঘব করল রাজ্য সরকার। সোমবার নবান্নে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, বিভিন্ন ক্ষেত্র থেকে ছাড়ের আবেদন জানানো হয়েছিল। সেইমতো কয়েকটি ক্ষেত্রে ছাড় দেওয়া হয়েছে। একনজরে দেখে নিন সেগুলি -
মুখ্যমন্ত্রী জানান, যেহেতু ১৫ তারিখ পর্যন্ত বিধিনিষেধ বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে, তাই কয়েকটি ক্ষেত্র থেকে অনুরোধ করা হয়েছে। সেইমতো বইয়ের দোকান, পাড়ার মুদির দোকান-সহ খোলা রাখা হবে। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্যে পিটিআই) 
1/4মুখ্যমন্ত্রী জানান, যেহেতু ১৫ তারিখ পর্যন্ত বিধিনিষেধ বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে, তাই কয়েকটি ক্ষেত্র থেকে অনুরোধ করা হয়েছে। সেইমতো বইয়ের দোকান, পাড়ার মুদির দোকান-সহ খোলা রাখা হবে। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্যে পিটিআই) 
মুখ্যমন্ত্রী জানান, সোনা এবং শাড়ির দোকানের মতো বেলা ১২ টা থেকে দুপুর ৩ টে পর্যন্ত খুচরো বাজারের (রিটেল মার্কেট) দোকান খোলা যাবে। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
2/4মুখ্যমন্ত্রী জানান, সোনা এবং শাড়ির দোকানের মতো বেলা ১২ টা থেকে দুপুর ৩ টে পর্যন্ত খুচরো বাজারের (রিটেল মার্কেট) দোকান খোলা যাবে। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
১০ শতাংশ কর্মী নিয়ে কাজ চালু হতে পারবে তথ্যপ্রযুক্তি অফিস। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য ব্লুমবার্গ)
3/4১০ শতাংশ কর্মী নিয়ে কাজ চালু হতে পারবে তথ্যপ্রযুক্তি অফিস। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য ব্লুমবার্গ)
কোনও নির্মাণ সংস্থা যদি নিজেদের কর্মীদের টিকা প্রদান করে কাজ শুরু করতে চায়, তাদের ছাড় দেওয়া হবে। মেনে চলতে হবে সামাজিক দূরত্বের বিধি। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
4/4কোনও নির্মাণ সংস্থা যদি নিজেদের কর্মীদের টিকা প্রদান করে কাজ শুরু করতে চায়, তাদের ছাড় দেওয়া হবে। মেনে চলতে হবে সামাজিক দূরত্বের বিধি। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
অন্য গ্যালারিগুলি