Budget 2020: 'ফাঁপা-পুনরাবৃত্তি-অসংলগ্ন', বাজেট নিয়ে কটাক্ষ রাহুলের

  • শনিবার সংসদে সাধারণ বাজেট পেশ করেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন। তারপর থেকেই বিজেপি নেতারা যেমন বাজেট-বন্দনা করছেন, তেমনই বাজেট ঘোষণাকে কটাক্ষ করতে ছাড়েনি কংগ্রেস। একনজরে দেখে নিন কে কী বললেন -
রাজনাথ সিং : নতুন দশকের নির্মলা সীতারামন যে বাজেট পেশ করেছেন, তা নতুন ও আত্মবিশ্বাসী ভারতের রূপরেখা স্পষ্ট করেছে। এটি একটি প্রতিশ্রুতিবদ্ধ, সক্রিয় ও প্রগতিশীল বাজেট। যা আগামীদিন ভারতকে বিত্তবান করে তুলবে। (ছবি সৌজন্য এএনআই)
1/4রাজনাথ সিং : নতুন দশকের নির্মলা সীতারামন যে বাজেট পেশ করেছেন, তা নতুন ও আত্মবিশ্বাসী ভারতের রূপরেখা স্পষ্ট করেছে। এটি একটি প্রতিশ্রুতিবদ্ধ, সক্রিয় ও প্রগতিশীল বাজেট। যা আগামীদিন ভারতকে বিত্তবান করে তুলবে। (ছবি সৌজন্য এএনআই)
অমিত শাহ : এই বাজেটে মোদী সরকার কর কাঠামোর সরলীকরণ, প্রাথমিক পরিকাঠামোয় সহায়তা, ব্যাঙ্কিং খাতে শক্তিশালী এবং বাণিজ্য করার সুবিধা (ইজ অফ বিজনেস) ও বিনিয়োগের রাস্তা আরও স্পষ্ট করেছে। যা ৫ ট্রিলিয়নের অর্থনীতির দিকে মোদী সরকারের যে আশ্বাস, তার পথ আরও প্রশস্ত করবে। (ছবি সৌজন্য এএফপি)
2/4অমিত শাহ : এই বাজেটে মোদী সরকার কর কাঠামোর সরলীকরণ, প্রাথমিক পরিকাঠামোয় সহায়তা, ব্যাঙ্কিং খাতে শক্তিশালী এবং বাণিজ্য করার সুবিধা (ইজ অফ বিজনেস) ও বিনিয়োগের রাস্তা আরও স্পষ্ট করেছে। যা ৫ ট্রিলিয়নের অর্থনীতির দিকে মোদী সরকারের যে আশ্বাস, তার পথ আরও প্রশস্ত করবে। (ছবি সৌজন্য এএফপি)
রাহুল গান্ধী : মূল যে ইস্যু ছিল বেকারত্ব। আমাদের যুব সম্প্রদায় চাকরি পাবে এমন কোনও কৌশলগত পরিকল্পনা দেখলাম না। আমি কৌশল দেখতে পেলাম। কিন্তু কোন প্রধান পরিকল্পনা পেলাম না। এটা সরকারকে উপযুক্তভাবে ব্যাখ্যা করে যে অনেক পুনরাবৃত্তি, অসংলগ্নতা (চলে)। এটা সরকারের মানসিকতা। শুধু ভাষণ, কিন্তু কিছু হয় না। এটা হয়তো ইতিহাসের দীর্ঘতম বাজেট বক্তৃতা। কিন্তু তাতে কিছু ছিল না। পুরো ফাঁপা। (ছবি সৌজন্য এএনআই)
3/4রাহুল গান্ধী : মূল যে ইস্যু ছিল বেকারত্ব। আমাদের যুব সম্প্রদায় চাকরি পাবে এমন কোনও কৌশলগত পরিকল্পনা দেখলাম না। আমি কৌশল দেখতে পেলাম। কিন্তু কোন প্রধান পরিকল্পনা পেলাম না। এটা সরকারকে উপযুক্তভাবে ব্যাখ্যা করে যে অনেক পুনরাবৃত্তি, অসংলগ্নতা (চলে)। এটা সরকারের মানসিকতা। শুধু ভাষণ, কিন্তু কিছু হয় না। এটা হয়তো ইতিহাসের দীর্ঘতম বাজেট বক্তৃতা। কিন্তু তাতে কিছু ছিল না। পুরো ফাঁপা। (ছবি সৌজন্য এএনআই)
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় : কেন্দ্র যেভাবে সরকারি সংস্থাগুলির ঐতিহ্যকে ধ্বংস করতে নেমেছে, তাতে আমি আশ্চর্য ও শঙ্কিত। নিরাপত্তা অনুভূতির শেষ এটা। সঙ্গে কি যুগাবসানও? (ছবি সৌজন্য এএনআই)
4/4মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় : কেন্দ্র যেভাবে সরকারি সংস্থাগুলির ঐতিহ্যকে ধ্বংস করতে নেমেছে, তাতে আমি আশ্চর্য ও শঙ্কিত। নিরাপত্তা অনুভূতির শেষ এটা। সঙ্গে কি যুগাবসানও? (ছবি সৌজন্য এএনআই)
অন্য গ্যালারিগুলি