বাংলা নিউজ > ছবিঘর > DC vs KKR: রাহুলের ছক্কা থেকে বরুণের দুর্ধর্ষ বোলিং - কোন কোন কারণে IPL ফাইনালে গেল KKR?

DC vs KKR: রাহুলের ছক্কা থেকে বরুণের দুর্ধর্ষ বোলিং - কোন কোন কারণে IPL ফাইনালে গেল KKR?

দিল্লি ক্যাপিটালসকে তিন উইকেটে হারিয়ে আইপিএলের ফাই... more

বরুণ চক্রবর্তীর দুর্ধর্ষ বোলিং : চার ওভারে ২৬ রান দিয়ে নিয়েছেন দু'উইকেট। সুনীল নারিন এবং শাকিব আল হাসানের বড় ওভারের পরেই তাঁকে নিয়ে আসেন ইয়ন মর্গ্যান। ভরসার মর্যাদা দেন বরুণ। প্রথম বলেই পৃথ্বী শ'কে ধাক্কা দেন। সেই ধাক্কা সামলে উঠতে পারেনি দিল্লি। পরে বরুণ আউট করেন শিখর ধাওয়ানকেও। ভাগ্য ভালো থাকলে তিন উইকেট পেয়ে যেতেন। কিন্তু নো বলের জন্য তা হয়নি। (ছবি সৌজন্য আইপিএল)
1/5বরুণ চক্রবর্তীর দুর্ধর্ষ বোলিং : চার ওভারে ২৬ রান দিয়ে নিয়েছেন দু'উইকেট। সুনীল নারিন এবং শাকিব আল হাসানের বড় ওভারের পরেই তাঁকে নিয়ে আসেন ইয়ন মর্গ্যান। ভরসার মর্যাদা দেন বরুণ। প্রথম বলেই পৃথ্বী শ'কে ধাক্কা দেন। সেই ধাক্কা সামলে উঠতে পারেনি দিল্লি। পরে বরুণ আউট করেন শিখর ধাওয়ানকেও। ভাগ্য ভালো থাকলে তিন উইকেট পেয়ে যেতেন। কিন্তু নো বলের জন্য তা হয়নি। (ছবি সৌজন্য আইপিএল)
সার্বিকভাবে ভালো বোলিং পারফরম্যান্স : কোনও নাইট বোলার আজ প্রচুর রান দিয়ে আসেননি। সর্বাধিক চার ওভারে ২৮ রান দিয়েছেন শাকিব। শিবম মাভি ২৮ রান দিয়ে এক উইকেট পেয়েছেন। ২৬ রান দিয়েছেন লকি ফার্গুসন। পেয়েছেন একটি উইকেট। একইভাবে ২৬ রান দিয়েছেন বরুণ। তাও শাকিব, নারিন এবং মাভি একটি করে বড় রানের ওভার দিয়েছেন। সেখান থেকে প্রত্যাবর্তন করে সাতের উপর ইকোনমি রেট উঠতে দেননি। তার জেরে মাত্র ১৩৫ রানেই দিল্লির মতো দলকে আটকে রাখে কেকেআর। (ছবি সৌজন্য আইপিএল)
2/5সার্বিকভাবে ভালো বোলিং পারফরম্যান্স : কোনও নাইট বোলার আজ প্রচুর রান দিয়ে আসেননি। সর্বাধিক চার ওভারে ২৮ রান দিয়েছেন শাকিব। শিবম মাভি ২৮ রান দিয়ে এক উইকেট পেয়েছেন। ২৬ রান দিয়েছেন লকি ফার্গুসন। পেয়েছেন একটি উইকেট। একইভাবে ২৬ রান দিয়েছেন বরুণ। তাও শাকিব, নারিন এবং মাভি একটি করে বড় রানের ওভার দিয়েছেন। সেখান থেকে প্রত্যাবর্তন করে সাতের উপর ইকোনমি রেট উঠতে দেননি। তার জেরে মাত্র ১৩৫ রানেই দিল্লির মতো দলকে আটকে রাখে কেকেআর। (ছবি সৌজন্য আইপিএল)
ভেঙ্কটেশ আইয়ার : ছোটো লক্ষ্যমাত্রা হলেও হোঁচট খাওয়ার যাবতীয় রসদ ছিল। কিন্তু তা কাজে আসতে দেননি আইয়ার। বুদ্ধিদীপ্ততার সঙ্গে আগ্রাসনের মিশেলে দলকে এগিয়ে নিয়ে যান। ৪১ বলে ৫৫ রান করেন। যা কেকেআরের জয়ের ভিত গড়ে দেয়। (ছবি সৌজন্য আইপিএল)
3/5ভেঙ্কটেশ আইয়ার : ছোটো লক্ষ্যমাত্রা হলেও হোঁচট খাওয়ার যাবতীয় রসদ ছিল। কিন্তু তা কাজে আসতে দেননি আইয়ার। বুদ্ধিদীপ্ততার সঙ্গে আগ্রাসনের মিশেলে দলকে এগিয়ে নিয়ে যান। ৪১ বলে ৫৫ রান করেন। যা কেকেআরের জয়ের ভিত গড়ে দেয়। (ছবি সৌজন্য আইপিএল)
ওপেনিং পার্টনারশিপ : ফাইনালে ওঠার জন্য ভালো ওপেনিং পার্টনারশিপের দরকার ছিল। ঠিক সেটাই করেন গিল এবং আইয়ার। ১২.২ ওভারে ৯৬ রান জোড়েন তাঁরা। (ছবি সৌজন্য আইপিএল) 
4/5ওপেনিং পার্টনারশিপ : ফাইনালে ওঠার জন্য ভালো ওপেনিং পার্টনারশিপের দরকার ছিল। ঠিক সেটাই করেন গিল এবং আইয়ার। ১২.২ ওভারে ৯৬ রান জোড়েন তাঁরা। (ছবি সৌজন্য আইপিএল) 
রাহুল ত্রিপাঠীর ছক্কা : যাবতীয় ভালো জিনিস নষ্ট হয়ে যেত এই জিনিসটা না হলে। যে ম্যাচটা হাসতে-হাসতে জেতার কথা ছিল, তা জিততেই কালঘাম ছুটে যায় কেকেআরের। একটা সময় ২৩ বলে সাত রান ছয় উইকেট হারিয়ে প্রবল চাপ তৈরি হয়। শেষ দু'বলে বাকি ছিল ছ'রান। সেই বলে ছক্কা মেরে কেকেআরকে ফাইনালে তুলে দেন রাহুল। (ছবি সৌজন্য এএনআই)
5/5রাহুল ত্রিপাঠীর ছক্কা : যাবতীয় ভালো জিনিস নষ্ট হয়ে যেত এই জিনিসটা না হলে। যে ম্যাচটা হাসতে-হাসতে জেতার কথা ছিল, তা জিততেই কালঘাম ছুটে যায় কেকেআরের। একটা সময় ২৩ বলে সাত রান ছয় উইকেট হারিয়ে প্রবল চাপ তৈরি হয়। শেষ দু'বলে বাকি ছিল ছ'রান। সেই বলে ছক্কা মেরে কেকেআরকে ফাইনালে তুলে দেন রাহুল। (ছবি সৌজন্য এএনআই)
অন্য গ্যালারিগুলি