Delhi Assembly Election 2020: প্রবীণতম! ১১০ বছর বয়সেও বুথে হাজির কালীতারা

অবিভক্ত ভারতে তাঁর জন্ম। একাধিক ঐতিহাসিক পালাবদলের... more

বিশ্বের বৃহত্তম গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রের নাগরিক তিনি। নির্বাচনে নিজের গণতান্ত্রিক অধিকার প্রয়োগ করতেতাই ১১১ বছর বয়সেও সমান উত্সাহী কালীতারা মণ্ডল।
1/6বিশ্বের বৃহত্তম গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রের নাগরিক তিনি। নির্বাচনে নিজের গণতান্ত্রিক অধিকার প্রয়োগ করতেতাই ১১১ বছর বয়সেও সমান উত্সাহী কালীতারা মণ্ডল।
প্রবীণ ভোটারদের নির্বাচনী বুথে যাতায়াতের ব্যবস্থা করেছিল নির্বাচন কমিশন। কালীতারাকে সাহায্য করার ভার বর্তেছিল নির্বাচন আধিকারিক হরিশ কুমারের উপর। এই দায়িত্ব পেয়ে নিজেকে ধন্য মনে করছেন বলে জানিয়েছেন হরিশ। ১১ বছর বয়সে পৌঁছেও ভোটাধিকার প্রয়োগে এমন তীব্র আগ্রহ দেখে বয়োজ্যেষ্ঠা দিল্লিবাসীনির প্রতি তিনি শ্রদ্ধাপ্লুত।
2/6প্রবীণ ভোটারদের নির্বাচনী বুথে যাতায়াতের ব্যবস্থা করেছিল নির্বাচন কমিশন। কালীতারাকে সাহায্য করার ভার বর্তেছিল নির্বাচন আধিকারিক হরিশ কুমারের উপর। এই দায়িত্ব পেয়ে নিজেকে ধন্য মনে করছেন বলে জানিয়েছেন হরিশ। ১১ বছর বয়সে পৌঁছেও ভোটাধিকার প্রয়োগে এমন তীব্র আগ্রহ দেখে বয়োজ্যেষ্ঠা দিল্লিবাসীনির প্রতি তিনি শ্রদ্ধাপ্লুত।
প্রবীণতমাকে বুথে নিয়ে যাওয়ার পথে পুষ্পস্তবক উপহার দেয় নির্বাচন কমিশন।
3/6প্রবীণতমাকে বুথে নিয়ে যাওয়ার পথে পুষ্পস্তবক উপহার দেয় নির্বাচন কমিশন।
বত্রিস পাটি দাঁতের সবগুলিই হারিয়েছেন কালীতারা। তবু ভাতের পাতে মাছ পেলে এখনও যত্ন করে কাঁটা বেছে খেতে ভালোবাসেন। ঠিক একই রকম আগ্রহে ১১ বছর বয়সেও দিল্লি বিধানসবা নির্বাচনে ভোট দিয়ে নিজের সাংবিধানিক অধিকার প্রয়োগ করে গর্বিত চিত্তরঞ্জন পার্কের বাসিন্দা, রাজধানীর প্রবীণতম ভোটার কালীতারা মণ্ডল।
4/6বত্রিস পাটি দাঁতের সবগুলিই হারিয়েছেন কালীতারা। তবু ভাতের পাতে মাছ পেলে এখনও যত্ন করে কাঁটা বেছে খেতে ভালোবাসেন। ঠিক একই রকম আগ্রহে ১১ বছর বয়সেও দিল্লি বিধানসবা নির্বাচনে ভোট দিয়ে নিজের সাংবিধানিক অধিকার প্রয়োগ করে গর্বিত চিত্তরঞ্জন পার্কের বাসিন্দা, রাজধানীর প্রবীণতম ভোটার কালীতারা মণ্ডল।
১৯০৮ সালে অবিভক্ত বাংলার বরিশাল জেলায় জন্ম কালীতারার। জীবনে দু'টি দেশভাগ, মন্বন্তর, মহামারী, একাধিক রাজনৈতিক উত্থানপতন এবং অজস্র নির্বাচন দেখেছেন শতোত্তীর্ণা। শরীর অশক্ত হলেও সমান উত্সাহে এবারও দিল্লি বিধানসভা নির্বাচনে নিজের ভোটটি দিতে উপস্থিত হলেন চিত্তরঞ্জন পার্কের বুথে। সঙ্গী ছিলেন পরিবারের বাকি সদস্যরা।
5/6১৯০৮ সালে অবিভক্ত বাংলার বরিশাল জেলায় জন্ম কালীতারার। জীবনে দু'টি দেশভাগ, মন্বন্তর, মহামারী, একাধিক রাজনৈতিক উত্থানপতন এবং অজস্র নির্বাচন দেখেছেন শতোত্তীর্ণা। শরীর অশক্ত হলেও সমান উত্সাহে এবারও দিল্লি বিধানসভা নির্বাচনে নিজের ভোটটি দিতে উপস্থিত হলেন চিত্তরঞ্জন পার্কের বুথে। সঙ্গী ছিলেন পরিবারের বাকি সদস্যরা।
নিজে ভোটাধিকার প্রয়োগ করলেন তো বটেই, সেই সঙ্গে শহরের অধিবাসীদের বুথে উপস্থিত হয়ে নিজেদের কর্তব্যপালন করতেও আবেদন জানালেন দিল্লির এই প্রপিতামহী।
6/6নিজে ভোটাধিকার প্রয়োগ করলেন তো বটেই, সেই সঙ্গে শহরের অধিবাসীদের বুথে উপস্থিত হয়ে নিজেদের কর্তব্যপালন করতেও আবেদন জানালেন দিল্লির এই প্রপিতামহী।
অন্য গ্যালারিগুলি