বাংলা নিউজ > ছবিঘর > সুপার সাইক্লোনে রাষ্ট্রপতির পদক পাওয়া, বাজেপয়ীর আস্থাভাজন -কে এই নয়া রেলমন্ত্রী?

সুপার সাইক্লোনে রাষ্ট্রপতির পদক পাওয়া, বাজেপয়ীর আস্থাভাজন -কে এই নয়া রেলমন্ত্রী?

  • ছিলেন আইএএস অফিসার। কর্পোরেট জগতে চাকরিও করেছিলেন। ১৯৯৯ সালে ওড়িশার সুপার সাইক্লোন দক্ষতার সঙ্গে সামলেছিলেন। সেজন্য পেয়েছিলেন পুরস্কারও। একনজরে জেনে নিন নয়া রেলমন্ত্রী, তথ্য ও প্রযুক্তিমন্ত্রী এবং যোগাযোগ মন্ত্রী তথা প্রাক্তন আইএএস অফিসার অশ্বিনী বৈষ্ণের বিষয়ে -
রাজস্থানের যোধপুরে জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৯২ সালে জৈন নারায়ণ ব্যাস বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইলেকট্রনিক অ্যান্ড কমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে স্বর্ণপদক পান। দু'বছর পর আইএএস অফিসার হন। তারপর থেকে ধীরে ধীরে পরিচিত গড়ে উঠতে শুরু করে। (ছবি সৌজন্য এএনআই)
1/8রাজস্থানের যোধপুরে জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৯২ সালে জৈন নারায়ণ ব্যাস বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইলেকট্রনিক অ্যান্ড কমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে স্বর্ণপদক পান। দু'বছর পর আইএএস অফিসার হন। তারপর থেকে ধীরে ধীরে পরিচিত গড়ে উঠতে শুরু করে। (ছবি সৌজন্য এএনআই)
১৯৯৯ সালে ওড়িশার সুপার সাইক্লোনের সময় তাঁর প্রশাসনিক দক্ষতা সকলের নজরে আসে। সুপার সাইক্লোন আছড়ে পড়ার আগে মার্কিন নৌবাহিনীর ওয়েবসাইটে নজরদারি চালাতেন। (ছবি সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)
2/8১৯৯৯ সালে ওড়িশার সুপার সাইক্লোনের সময় তাঁর প্রশাসনিক দক্ষতা সকলের নজরে আসে। সুপার সাইক্লোন আছড়ে পড়ার আগে মার্কিন নৌবাহিনীর ওয়েবসাইটে নজরদারি চালাতেন। (ছবি সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)
নিয়মিত সুপার সাইক্লোনের গতিপথে নজরদারি চালাতেন। নিয়মিত ব্যবধানে ওড়িশা সচিবালয়ের আধিকারিকদের সেই তথ্য দিতে হয়। যা ওড়িশা সরকারের কাছে মূল্য তথ্যভাণ্ডার ছিল। (ছবি সৌজন্য এএনআই)
3/8নিয়মিত সুপার সাইক্লোনের গতিপথে নজরদারি চালাতেন। নিয়মিত ব্যবধানে ওড়িশা সচিবালয়ের আধিকারিকদের সেই তথ্য দিতে হয়। যা ওড়িশা সরকারের কাছে মূল্য তথ্যভাণ্ডার ছিল। (ছবি সৌজন্য এএনআই)
পর্যাপ্ত ত্রাণশিবির না থাকা সত্ত্বেও তাঁর তথ্যের ভিত্তিতে সুপার সাইক্লোনে বালাসোর জেলায় ১০,০০০ জনকে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। সেজন্য জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের তরফে প্রেসিডেন্টের রুপোর পদক পান। (ছবি সৌজন্য এএনআই)
4/8পর্যাপ্ত ত্রাণশিবির না থাকা সত্ত্বেও তাঁর তথ্যের ভিত্তিতে সুপার সাইক্লোনে বালাসোর জেলায় ১০,০০০ জনকে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। সেজন্য জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের তরফে প্রেসিডেন্টের রুপোর পদক পান। (ছবি সৌজন্য এএনআই)
২০০৩ সালে পর্যন্ত বৈষ্ণ ওড়িশায় কাজ করেছিলেন। তারপর অটলবিহারী বাজপেয়ীর আমলে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে ডেপুটি সেক্রেটারি হয়েছিলেন। ২০০৪ সালে এনডিএ সরকার হেরে যাওয়ার পর হয়েছিলেন বাজপেয়ীর ব্যক্তিগত সচিব। তথন থেকেই বিজেপির সঙ্গে তাঁর ঘনিষ্ঠতা গড়ে উঠতে শুরু করে। (ছবি সৌজন্য এএনআই)
5/8২০০৩ সালে পর্যন্ত বৈষ্ণ ওড়িশায় কাজ করেছিলেন। তারপর অটলবিহারী বাজপেয়ীর আমলে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে ডেপুটি সেক্রেটারি হয়েছিলেন। ২০০৪ সালে এনডিএ সরকার হেরে যাওয়ার পর হয়েছিলেন বাজপেয়ীর ব্যক্তিগত সচিব। তথন থেকেই বিজেপির সঙ্গে তাঁর ঘনিষ্ঠতা গড়ে উঠতে শুরু করে। (ছবি সৌজন্য এএনআই)
২০০৬ সালে মারগাঁও পোট ট্রাস্টের ডেপুটি চেয়ারম্যান হয়েছিলেন। পরবর্তী দু'বছর সেই দায়িত্ব সামলেছিলেন। তারপর আমেরিকায় এমবিএ করতে চলে গিয়েছিলেন। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
6/8২০০৬ সালে মারগাঁও পোট ট্রাস্টের ডেপুটি চেয়ারম্যান হয়েছিলেন। পরবর্তী দু'বছর সেই দায়িত্ব সামলেছিলেন। তারপর আমেরিকায় এমবিএ করতে চলে গিয়েছিলেন। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
পরে কর্পোরেট ক্ষেত্রেও চাকরি করেছিলেন। ২০১২ সালে কর্পোরেট চাকরি ছেড়ে দিয়েছিলেন। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
7/8পরে কর্পোরেট ক্ষেত্রেও চাকরি করেছিলেন। ২০১২ সালে কর্পোরেট চাকরি ছেড়ে দিয়েছিলেন। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
২০১৯ সালে জুনে রাজ্যসভার সাংসদ হন। তাঁকে সমর্থন করে বিজেপি এবং বিজেপি। তবে বিজেপিতে যোগ দেন। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
8/8২০১৯ সালে জুনে রাজ্যসভার সাংসদ হন। তাঁকে সমর্থন করে বিজেপি এবং বিজেপি। তবে বিজেপিতে যোগ দেন। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
অন্য গ্যালারিগুলি