বাড়ি > ছবিঘর > ‘জিয়া নস্টাল’ মিমির, ফিরলেন স্কুলজীবনের ফেলে আসা দিনগুলোতে

‘জিয়া নস্টাল’ মিমির, ফিরলেন স্কুলজীবনের ফেলে আসা দিনগুলোতে

  • স্কুলজীবনের দিনগুলোতে ফিরে যেতে কার না ভালো লাগে ? মেয়েবেলার স্মৃতিসাগরে ডুব দিলেন মিমি। 
স্কুলজীবনের দিনগুলোতে ফিরে যেতে কার না ভালো লাগে ? ফেলে আসা সেই দিন সবসময়ই হাতছানি দিয়ে ডাকে। মন কেমন করে উঠে স্কুলের মাঠ, ক্লাসরুম, আর বন্ধুদের কথা মন পড়লেই। এবার স্কুলজীবনের স্মৃতির সাগরে ডুব দিলেন মিমি চক্রবর্তী। (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)
1/7স্কুলজীবনের দিনগুলোতে ফিরে যেতে কার না ভালো লাগে ? ফেলে আসা সেই দিন সবসময়ই হাতছানি দিয়ে ডাকে। মন কেমন করে উঠে স্কুলের মাঠ, ক্লাসরুম, আর বন্ধুদের কথা মন পড়লেই। এবার স্কুলজীবনের স্মৃতির সাগরে ডুব দিলেন মিমি চক্রবর্তী। (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)
জলপাইগুড়িতে কেটেছে মিমির মেয়েবেলা। সেখানকার কনভেন্ট স্কুলের ছাত্রী ছিলেন মিমি। এই ছবির সম্পর্কে মিমি ইনস্টাগ্রামে লিখেছেন, ‘হাইস্কুল জীবনের সুপারকুল পর্ব’।
2/7জলপাইগুড়িতে কেটেছে মিমির মেয়েবেলা। সেখানকার কনভেন্ট স্কুলের ছাত্রী ছিলেন মিমি। এই ছবির সম্পর্কে মিমি ইনস্টাগ্রামে লিখেছেন, ‘হাইস্কুল জীবনের সুপারকুল পর্ব’।
জানুয়ারির ঠান্ডায় স্কুলের বন্ধুদের সঙ্গে নদীর জলে পা ডুবিয়ে একটু জিরিয়ে নিচ্ছেন মিমি। সত্যি তো জীবনে চলার পথে অনেক বন্ধুত্ব হয়, তবে স্কুলের বন্ধুরা আজীবন মনের খাতায় রয়ে যান। (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)
3/7জানুয়ারির ঠান্ডায় স্কুলের বন্ধুদের সঙ্গে নদীর জলে পা ডুবিয়ে একটু জিরিয়ে নিচ্ছেন মিমি। সত্যি তো জীবনে চলার পথে অনেক বন্ধুত্ব হয়, তবে স্কুলের বন্ধুরা আজীবন মনের খাতায় রয়ে যান। (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)
স্কুলের বন্ধুদের সঙ্গে দেওয়া আড্ডা, ভাগ করে টিফিন খাওয়ার বিকল্প নেই। পরিবর্ত নেই তাঁদের সঙ্গে স্কুলের আশপাশ ঘুরে দেখবারও। বেস্ট ফ্রেন্ড অঙ্কিতার সঙ্গে নদীর উপর পড়ে থাকা পাথরে বসে ছবির জন্য পোস্ট দিচ্ছেন ১৭ বছর আগের মিমি। (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)
4/7স্কুলের বন্ধুদের সঙ্গে দেওয়া আড্ডা, ভাগ করে টিফিন খাওয়ার বিকল্প নেই। পরিবর্ত নেই তাঁদের সঙ্গে স্কুলের আশপাশ ঘুরে দেখবারও। বেস্ট ফ্রেন্ড অঙ্কিতার সঙ্গে নদীর উপর পড়ে থাকা পাথরে বসে ছবির জন্য পোস্ট দিচ্ছেন ১৭ বছর আগের মিমি। (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)
দু-দিন আগেই আইএসসি বোর্ডের ১২ ক্লাসের পরীক্ষার পেন-পেন্সিল ভর্তি পাউচটি খুঁজে পেয়েছেন মিমি। সেই ছবি শেয়ার করে নিয়ে মিমি ফিরে গিয়েছিলেন ১৭ বছর আগের পরীক্ষার সেই দিনগুলোতে।  (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)
5/7দু-দিন আগেই আইএসসি বোর্ডের ১২ ক্লাসের পরীক্ষার পেন-পেন্সিল ভর্তি পাউচটি খুঁজে পেয়েছেন মিমি। সেই ছবি শেয়ার করে নিয়ে মিমি ফিরে গিয়েছিলেন ১৭ বছর আগের পরীক্ষার সেই দিনগুলোতে।  (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)
মিমি একটি দীর্ঘ ইনস্টা পোস্টে লেখেন,'এই পোস্টটি দেখে আপনারা হয়তো উত্তেজিত হবে না, কিন্তু আমি খুব খুব উত্তেজিত। এগুলো আমার আইএসসি বোর্ডের পরীক্ষার সময়কার পেন-পেন্সিল কিট। কত বছর ধরে এভাবেই অক্ষত রয়েছে। আজ হঠাৎ আমি এইগুলো খুঁজে পেলাম। তোমরা জানো যে আমার ছোটবেলা কেটেছে জলপাইগুড়িতে। আর তাই আমার মেয়েবেলার যাবতীয় স্মৃতি সেখানেই। আমি ভাবতেই পারিনি যে এটা কলকাতার বাড়িতে খুঁজে পাব'। 
6/7মিমি একটি দীর্ঘ ইনস্টা পোস্টে লেখেন,'এই পোস্টটি দেখে আপনারা হয়তো উত্তেজিত হবে না, কিন্তু আমি খুব খুব উত্তেজিত। এগুলো আমার আইএসসি বোর্ডের পরীক্ষার সময়কার পেন-পেন্সিল কিট। কত বছর ধরে এভাবেই অক্ষত রয়েছে। আজ হঠাৎ আমি এইগুলো খুঁজে পেলাম। তোমরা জানো যে আমার ছোটবেলা কেটেছে জলপাইগুড়িতে। আর তাই আমার মেয়েবেলার যাবতীয় স্মৃতি সেখানেই। আমি ভাবতেই পারিনি যে এটা কলকাতার বাড়িতে খুঁজে পাব'। 
তিনি আরও লেখেন, ' এই খাগের কলমটা আমায় আরও নস্ট্যালজিক করে তুলেছে। যারা বাঙালি তারা ভালোভাবেই জানে যে খাগেরকলম আমরা কখন ব্যবহার করি। সরস্বতী পুজোয় এই কলম দেওয়া হয়, বলা হয় যে এটা দেবীর কলম। পাউচটা খুলতেই আমি যেন পুরো ফিরে গেলাম সেইদিনগুলোতে যখন আমার ১৭ বছর বয়স। আমি আমার স্কুলকে খুব মিস করছি। শুধু ওই অঙ্কের পরীক্ষাগুলো আর চাই না। আমার স্কুল বাস, স্কুলের ক্যান্টিন, বার্ষিক উৎসব, স্পোর্টস, টিফিন ভাগ করে খাওয়া, খ্রিস্টমাস ক্যারল, গানের প্রতিযোগিতা, আবৃত্তি, লাইব্রেরি, ক্রাশকে নিয়ে আলোচনা, লজ্জা পাওয়া..আমি একটু স্মৃতিতে ডুব দিলাম'।(ছবি-ইনস্টাগ্রাম)
7/7তিনি আরও লেখেন, ' এই খাগের কলমটা আমায় আরও নস্ট্যালজিক করে তুলেছে। যারা বাঙালি তারা ভালোভাবেই জানে যে খাগেরকলম আমরা কখন ব্যবহার করি। সরস্বতী পুজোয় এই কলম দেওয়া হয়, বলা হয় যে এটা দেবীর কলম। পাউচটা খুলতেই আমি যেন পুরো ফিরে গেলাম সেইদিনগুলোতে যখন আমার ১৭ বছর বয়স। আমি আমার স্কুলকে খুব মিস করছি। শুধু ওই অঙ্কের পরীক্ষাগুলো আর চাই না। আমার স্কুল বাস, স্কুলের ক্যান্টিন, বার্ষিক উৎসব, স্পোর্টস, টিফিন ভাগ করে খাওয়া, খ্রিস্টমাস ক্যারল, গানের প্রতিযোগিতা, আবৃত্তি, লাইব্রেরি, ক্রাশকে নিয়ে আলোচনা, লজ্জা পাওয়া..আমি একটু স্মৃতিতে ডুব দিলাম'।(ছবি-ইনস্টাগ্রাম)
অন্য গ্যালারিগুলি