বাংলা নিউজ > ছবিঘর > Tokyo Olympics: লড়াই হবে যেই পদকের জন্য, জেনে নিন তার বৃত্তান্ত

Tokyo Olympics: লড়াই হবে যেই পদকের জন্য, জেনে নিন তার বৃত্তান্ত

অলিম্পিক্সের পদক তৈরি করার জন্য জাপান এক প্রতিযোগীতার আয়োজন করেছিল। সারাবিশ্ব থেকে পেশাদার প্রায় ৪০০ ডিজাইনার এই প্রতিযোগীতায় অংশগ্রহণ করেছিলেন। তাদের মধ্যে সেরা নির্বাচিত হয়ে পদকগুলো ডিজাইন করেছেন জুনিচি কাওয়ানিশি।

পদকগুলির ব্যাস ৮৫ মিলিমিটার। আইওসির নিয়মমাফিক পদকগুলোতে পাঁচটি রিঙ্ক প্রতীক, গ্রীক জয়ের দেবী নাইকি এবং অলিম্পিক্সের প্রতীক রয়েছে। সোনা পদককে ৬ গ্রামের বেশি স্বর্ণ ব্যবহার করা হয়েছে।
1/6পদকগুলির ব্যাস ৮৫ মিলিমিটার। আইওসির নিয়মমাফিক পদকগুলোতে পাঁচটি রিঙ্ক প্রতীক, গ্রীক জয়ের দেবী নাইকি এবং অলিম্পিক্সের প্রতীক রয়েছে। সোনা পদককে ৬ গ্রামের বেশি স্বর্ণ ব্যবহার করা হয়েছে।
আইওসির নিয়মমাফিক পদকগুলোতে পাঁচটি রিং প্রতীক রয়েছে। এটি স্বর্ণ পদকের অন্য আরও একটি দিক। জাপানের রাজধানী টোকিওতে এক অনুষ্ঠানে পদক উন্মোচন করা হয়েছিল।
2/6আইওসির নিয়মমাফিক পদকগুলোতে পাঁচটি রিং প্রতীক রয়েছে। এটি স্বর্ণ পদকের অন্য আরও একটি দিক। জাপানের রাজধানী টোকিওতে এক অনুষ্ঠানে পদক উন্মোচন করা হয়েছিল।
স্থানীয় আয়োজক কমিটি এবং প্যারাঅলিম্পিক গেমসের আয়োজকরা জানিয়েছে, ২০২০ টোকিও অলিম্পিকের পদক তৈরিতে তারা ব্যবহার করেছে ব্যবহৃত ইলেকট্রনিক ডিভাইজ। ২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারিতে জাপান ঘোষণা করেছিল, অলিম্পিক্সের পদক তৈরিতে তারা ব্যবহার করবে ইলেকট্রনিক ডিভাইস। সেই থেকে তারা দুই বছর পুরো জাপানে ব্যবহৃত বিভিন্ন ইলেকট্রনিক ডিভাইজ সংগ্রহ করে। সাধারণ মানুষকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানানো হয়েছিল সরকারের পক্ষ থেকে।
3/6স্থানীয় আয়োজক কমিটি এবং প্যারাঅলিম্পিক গেমসের আয়োজকরা জানিয়েছে, ২০২০ টোকিও অলিম্পিকের পদক তৈরিতে তারা ব্যবহার করেছে ব্যবহৃত ইলেকট্রনিক ডিভাইজ। ২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারিতে জাপান ঘোষণা করেছিল, অলিম্পিক্সের পদক তৈরিতে তারা ব্যবহার করবে ইলেকট্রনিক ডিভাইস। সেই থেকে তারা দুই বছর পুরো জাপানে ব্যবহৃত বিভিন্ন ইলেকট্রনিক ডিভাইজ সংগ্রহ করে। সাধারণ মানুষকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানানো হয়েছিল সরকারের পক্ষ থেকে।
মোট ৫০০০ সোনা, রৌপ্য ও ব্রোঞ্জ পদক তৈরি করা হয়েছে টোকিও অলিম্পিকের জন্য।  রৌপ্য পদকে পিউর রূপা এবং ব্রোঞ্জ পদকে লাল ব্রাস অ্যালয় রয়েছে যার ৯৫ শতাংশ কপার এবং ৫ শতাংশ জিঙ্ক।
4/6মোট ৫০০০ সোনা, রৌপ্য ও ব্রোঞ্জ পদক তৈরি করা হয়েছে টোকিও অলিম্পিকের জন্য।  রৌপ্য পদকে পিউর রূপা এবং ব্রোঞ্জ পদকে লাল ব্রাস অ্যালয় রয়েছে যার ৯৫ শতাংশ কপার এবং ৫ শতাংশ জিঙ্ক।
আয়োজকরা বলছে, ৬.২১ মিলিয়ন মোবাইল ফোনসহ মোট ৭৮,৮৯৫ টন ব্যবহৃত ইলেকট্রনিক ডিভাইজ পাওয়া গেছে। যার থেকে ৩২ কেজি স্বর্ণ, ৩৫০০ কেজি রৌপ্য এবং ২,২০০ কেজি ব্রোঞ্জ পাওয়া গেছে।
5/6আয়োজকরা বলছে, ৬.২১ মিলিয়ন মোবাইল ফোনসহ মোট ৭৮,৮৯৫ টন ব্যবহৃত ইলেকট্রনিক ডিভাইজ পাওয়া গেছে। যার থেকে ৩২ কেজি স্বর্ণ, ৩৫০০ কেজি রৌপ্য এবং ২,২০০ কেজি ব্রোঞ্জ পাওয়া গেছে।
পদকের সঙ্গে যে রিবন যুক্ত হয়েছে সেটাও রিসাইকেল পলিস্টার ফাইবার দিয়ে তৈরি করা হয়েছে। ফলে প্রতিটি পদক তৈরিতে জাপান অর্ধেকেরও কম খরচ করেছে বলে দাবি করা হয়েছে।
6/6পদকের সঙ্গে যে রিবন যুক্ত হয়েছে সেটাও রিসাইকেল পলিস্টার ফাইবার দিয়ে তৈরি করা হয়েছে। ফলে প্রতিটি পদক তৈরিতে জাপান অর্ধেকেরও কম খরচ করেছে বলে দাবি করা হয়েছে।
অন্য গ্যালারিগুলি