বাংলা নিউজ > ছবিঘর > পার্শ্বশিক্ষকদের নবান্ন অভিযানকে ঘিরে ধুন্ধুমার, পুলিশের বিরুদ্ধে মারধরের অভিযোগ

পার্শ্বশিক্ষকদের নবান্ন অভিযানকে ঘিরে ধুন্ধুমার, পুলিশের বিরুদ্ধে মারধরের অভিযোগ

  • বেতন কাঠামো–সহ একাধিক দাবি–দাওয়াতে শুক্রবার নবান্ন অভিযানের ডাক দেন পার্শ্বশিক্ষকরা। আর সেই ঘটনায় পুলিশের সঙ্গে এদিন শিক্ষকদের সঙ্ঘর্ষে ধুন্ধুমার কাণ্ড বাঁধল সুবোধ মল্লিক স্কোয়ারে। এদিনের ঘটনায় জখম হয়েছেন বেশ কয়েকজন আন্দোলনকারী। বেশ কয়েকজন শিক্ষককে আটক করেছে পুলিশ।
‌পুলিশ–পার্শ্বশিক্ষকদের সঙ্ঘর্ষে শুক্রবার রণক্ষেত্রের পরিস্থিতি তৈরি হয় কলকাতার বুকে। এদিন বেতন কাঠামো–সহ একাধিক দাবি–দাওয়াতে নবান্ন অভিযান কর্মসূচির ডাক দিয়েছিলেন পার্শ্বশিক্ষকরা। সেই মতো সুবোধ মল্লিক স্কোয়ারে জমায়েত করেন তাঁরা। পরিকল্পনা মাফিক রানি রাসমনি রোডের দিকে এগোনোর পুলিশি অনুমতিও ছিল। কিন্তু গোল বাঁধে ঘণ্টা তিনেক ধরে আন্দোলনকারীদের পুলিশ আটকে রাখার পর। ছবি সৌজন্য :‌ পিটিআই (PTI)
1/6‌পুলিশ–পার্শ্বশিক্ষকদের সঙ্ঘর্ষে শুক্রবার রণক্ষেত্রের পরিস্থিতি তৈরি হয় কলকাতার বুকে। এদিন বেতন কাঠামো–সহ একাধিক দাবি–দাওয়াতে নবান্ন অভিযান কর্মসূচির ডাক দিয়েছিলেন পার্শ্বশিক্ষকরা। সেই মতো সুবোধ মল্লিক স্কোয়ারে জমায়েত করেন তাঁরা। পরিকল্পনা মাফিক রানি রাসমনি রোডের দিকে এগোনোর পুলিশি অনুমতিও ছিল। কিন্তু গোল বাঁধে ঘণ্টা তিনেক ধরে আন্দোলনকারীদের পুলিশ আটকে রাখার পর। ছবি সৌজন্য :‌ পিটিআই (PTI)
প্রায় তিন ঘণ্টা রাস্তা অবরোধের পর ধৈর্য হারিয়ে এগোনোর চেষ্টা করেন আন্দোলনরত শিক্ষকরা। তাঁদের অভিযোগ, তখনই ব্যারিকেড করে তাঁদের আটকে দেয় পুলিশ। ব্যারিকেড ভাঙার চেষ্টা করলে পুলিশ–শিক্ষক ধস্তাধস্তি শুরু হয়। রণক্ষেত্রে পরিণত হয় সুবোধ মল্লিক স্কোয়ার। ছবি সৌজন্য :‌ পিটিআই (PTI)
2/6প্রায় তিন ঘণ্টা রাস্তা অবরোধের পর ধৈর্য হারিয়ে এগোনোর চেষ্টা করেন আন্দোলনরত শিক্ষকরা। তাঁদের অভিযোগ, তখনই ব্যারিকেড করে তাঁদের আটকে দেয় পুলিশ। ব্যারিকেড ভাঙার চেষ্টা করলে পুলিশ–শিক্ষক ধস্তাধস্তি শুরু হয়। রণক্ষেত্রে পরিণত হয় সুবোধ মল্লিক স্কোয়ার। ছবি সৌজন্য :‌ পিটিআই (PTI)
ঘটনায় পুলিশের বিরুদ্ধে লাঠিচার্জের অভিযোগ এনেছে পার্শ্বশিক্ষকরা। আরও অভিযোগ, মহিলা বিক্ষোভকারীদের আটকাতে মহিলা পুলিশকর্মীর সংখ্যাও পর্যাপ্ত ছিল না। পুরুষ পুলিশকর্মীদের দিয়ে থামানোর চেষ্টা করা হয় মহিলা শিক্ষকদের। তাঁদেরও মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। যদিও সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছে পুলিশ। ছবি সৌজন্য :‌ পিটিআই (PTI)
3/6ঘটনায় পুলিশের বিরুদ্ধে লাঠিচার্জের অভিযোগ এনেছে পার্শ্বশিক্ষকরা। আরও অভিযোগ, মহিলা বিক্ষোভকারীদের আটকাতে মহিলা পুলিশকর্মীর সংখ্যাও পর্যাপ্ত ছিল না। পুরুষ পুলিশকর্মীদের দিয়ে থামানোর চেষ্টা করা হয় মহিলা শিক্ষকদের। তাঁদেরও মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। যদিও সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছে পুলিশ। ছবি সৌজন্য :‌ পিটিআই (PTI)
আন্দোলনকারীদের দাবি, তাঁরা শান্তিপূর্ণ অবস্থানের পথেই হাঁটছিলেন। তাঁরা নবান্নে গিয়ে শুধু দাবি–দাওয়া সম্পন্ন স্মারকলিপি জমা দিতে চেয়েছিলেন। কিন্তু পুলিশ তাতে বাধা দিয়ে মারধর করেছে বলে অভিযোগ। যদিও পুলিশের সাফাই, বিধানসভা চলার কারণে এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। সেই কারণেই তাঁদের এগোতে দেওয়া হয়নি। ছবি সৌজন্য : এএনআই
4/6আন্দোলনকারীদের দাবি, তাঁরা শান্তিপূর্ণ অবস্থানের পথেই হাঁটছিলেন। তাঁরা নবান্নে গিয়ে শুধু দাবি–দাওয়া সম্পন্ন স্মারকলিপি জমা দিতে চেয়েছিলেন। কিন্তু পুলিশ তাতে বাধা দিয়ে মারধর করেছে বলে অভিযোগ। যদিও পুলিশের সাফাই, বিধানসভা চলার কারণে এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। সেই কারণেই তাঁদের এগোতে দেওয়া হয়নি। ছবি সৌজন্য : এএনআই
উল্লেখ্য, এদিন পুলিশ–শিক্ষক সঙ্ঘর্ষের ঘটনার কয়েক ঘণ্টা পরেই বাজেট বক্তৃতায় পার্শ্বিশিক্ষকদের জন্য একাধিক ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি জানান, প্রতি বছর ৩ শতাংশ হারে বেতন বৃদ্ধি করা হবে পার্শ্বশিক্ষকদের। পাশাপাশি অবসর গ্রহণের পর তাঁদের দেওয়া হবে এককালীন ৩ লক্ষ টাকা। ছবি সৌজন্য : পিটিআই (PTI)
5/6উল্লেখ্য, এদিন পুলিশ–শিক্ষক সঙ্ঘর্ষের ঘটনার কয়েক ঘণ্টা পরেই বাজেট বক্তৃতায় পার্শ্বিশিক্ষকদের জন্য একাধিক ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি জানান, প্রতি বছর ৩ শতাংশ হারে বেতন বৃদ্ধি করা হবে পার্শ্বশিক্ষকদের। পাশাপাশি অবসর গ্রহণের পর তাঁদের দেওয়া হবে এককালীন ৩ লক্ষ টাকা। ছবি সৌজন্য : পিটিআই (PTI)
এদিকে, এদিন শিক্ষকদের শান্তিপূর্ণ অবস্থানকে সামাল দিতে জলকামান, ব্যারিকেডের পাশাপাশি র‌্যাফ এবং কমব্যাট ফোর্সও মোতায়ন করে পুলিশ। এদিনের ঘটনায় জখম হয়েছেন বেশ কয়েকজন আন্দোলনকারী। তাঁদের মধ্যে একজনের আঘাত গুরুতর বলে জানা গিয়েছে। পাশাপাশি বেশ কয়েকজন শিক্ষককে আটক করেছে পুলিশ। ছবি সৌজন্য :‌ পিটিআই (PTI)
6/6এদিকে, এদিন শিক্ষকদের শান্তিপূর্ণ অবস্থানকে সামাল দিতে জলকামান, ব্যারিকেডের পাশাপাশি র‌্যাফ এবং কমব্যাট ফোর্সও মোতায়ন করে পুলিশ। এদিনের ঘটনায় জখম হয়েছেন বেশ কয়েকজন আন্দোলনকারী। তাঁদের মধ্যে একজনের আঘাত গুরুতর বলে জানা গিয়েছে। পাশাপাশি বেশ কয়েকজন শিক্ষককে আটক করেছে পুলিশ। ছবি সৌজন্য :‌ পিটিআই (PTI)
অন্য গ্যালারিগুলি