বাংলা নিউজ > ছবিঘর > দ্বিতীয় সন্তান জন্মের আগেই নতুন বাড়ি মনের মতো সাজাচ্ছেন করিনা,শীঘ্রই শিফট করবেন

দ্বিতীয় সন্তান জন্মের আগেই নতুন বাড়ি মনের মতো সাজাচ্ছেন করিনা,শীঘ্রই শিফট করবেন

  • গত বছর জুলাই মাসেই নতুন বাড়ি কেনবার কথা জানিয়েছিলেন সইফ। সেই বাড়ির অন্দরসজ্জার কাজও প্রায় শেষ। শীঘ্রই বাড়ি বদলাবেন সইফিনা। 
গত বছরেই নতুন বাড়ি কেনবার কথা জানিয়েছিলেন সইফ। এরপরই জানা যায় পরিবার বড়ো হচ্ছে সইফিনার। বুঝতে অসুবিধা হয়নি। সদস্য সংখ্যা বাড়ার জেরেই বাড়ি পালটাচ্ছেন এই তারকা দম্পতি। 
1/8গত বছরেই নতুন বাড়ি কেনবার কথা জানিয়েছিলেন সইফ। এরপরই জানা যায় পরিবার বড়ো হচ্ছে সইফিনার। বুঝতে অসুবিধা হয়নি। সদস্য সংখ্যা বাড়ার জেরেই বাড়ি পালটাচ্ছেন এই তারকা দম্পতি। 
‘স্বপ্নের বাড়ি’র ঝলকও সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশ্যে আনলেন বেবো। ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে বাড়ির অন্দরের ছবি প্রকাশ্যে এনেছেন করিনা। যেখানে দেখা গেল ইন্টিরিয়ার ডিজাইনারকে নিজের মনের ইচ্ছা বুঝিয়ে দিচ্ছেন অভিনেত্রী। (ছবি-ইনস্টাগ্রাম) 
2/8‘স্বপ্নের বাড়ি’র ঝলকও সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশ্যে আনলেন বেবো। ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে বাড়ির অন্দরের ছবি প্রকাশ্যে এনেছেন করিনা। যেখানে দেখা গেল ইন্টিরিয়ার ডিজাইনারকে নিজের মনের ইচ্ছা বুঝিয়ে দিচ্ছেন অভিনেত্রী। (ছবি-ইনস্টাগ্রাম) 
ছবিতে কালো-সাদা মিডি ড্রেসে পাওয়া গেল করিনাকে। বেবো ছাড়া সকলের মুখ ছিল মাস্কে ঢাকা। করিনার এই বাড়ি সাজাচ্ছেন ইন্টিরিয়ার ডিজাইনার দরশিনি। (ছবি-ইনস্টাগ্রাম) 
3/8ছবিতে কালো-সাদা মিডি ড্রেসে পাওয়া গেল করিনাকে। বেবো ছাড়া সকলের মুখ ছিল মাস্কে ঢাকা। করিনার এই বাড়ি সাজাচ্ছেন ইন্টিরিয়ার ডিজাইনার দরশিনি। (ছবি-ইনস্টাগ্রাম) 
সইফ-করিনার বাড়ির অন্দরসজ্জা প্রায় শেষ, তা ছবিই বলে দিচ্ছে। কাঁচের দরজা, দুদিকে বইয়ের তাক- সিলিং থেকে ঝুলছে ফ্যানসি আলো- খুব সম্ভবত এটা সইফ-করিনার স্টাডি রুম। বইপোকা সইফ- দেশে-বিদেশের হাজারো বইয়ের কালেকশন রয়েছে পতৌদির নবাবের। (ছবি-ইনস্টাগ্রাম) 
4/8সইফ-করিনার বাড়ির অন্দরসজ্জা প্রায় শেষ, তা ছবিই বলে দিচ্ছে। কাঁচের দরজা, দুদিকে বইয়ের তাক- সিলিং থেকে ঝুলছে ফ্যানসি আলো- খুব সম্ভবত এটা সইফ-করিনার স্টাডি রুম। বইপোকা সইফ- দেশে-বিদেশের হাজারো বইয়ের কালেকশন রয়েছে পতৌদির নবাবের। (ছবি-ইনস্টাগ্রাম) 
২০২০-র অগস্টে যৌথ বিবৃতিতে করিনার দ্বিতীয়বার করিনার মা হতে চলবার খবর প্রকাশ্যে আনেন এই জুটি। ২০১৬ সালের ডিসেম্বরে জন্ম সইফিনার প্রথম সন্তান তৈমুরের।  (PTI)
5/8২০২০-র অগস্টে যৌথ বিবৃতিতে করিনার দ্বিতীয়বার করিনার মা হতে চলবার খবর প্রকাশ্যে আনেন এই জুটি। ২০১৬ সালের ডিসেম্বরে জন্ম সইফিনার প্রথম সন্তান তৈমুরের।  (PTI)
মুম্বই মিররকে দেওয়া সাক্ষাত্কারে করোনা আবহেও বারবার বাড়ির বাইরে বার হওয়ার কারণ হিসাবে গত বছর জুলাই মাসে সইফ জানান, ‘আমাদের নতুন বাড়িতে রিনোভেশনের কাজ চলছে। সেই কাজের তদারকির জন্যই আমাকে প্রায়শই রাস্তা পেরিয়ে সেখানে যেতে হয়। সেটাই একমাত্র কারণ, না হলে ঘরবন্দি অবস্থায় হাঁসফাঁস করছি বলে আমি বাড়ির বাইরে বার হচ্ছি এমনটা নয়’। (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)
6/8মুম্বই মিররকে দেওয়া সাক্ষাত্কারে করোনা আবহেও বারবার বাড়ির বাইরে বার হওয়ার কারণ হিসাবে গত বছর জুলাই মাসে সইফ জানান, ‘আমাদের নতুন বাড়িতে রিনোভেশনের কাজ চলছে। সেই কাজের তদারকির জন্যই আমাকে প্রায়শই রাস্তা পেরিয়ে সেখানে যেতে হয়। সেটাই একমাত্র কারণ, না হলে ঘরবন্দি অবস্থায় হাঁসফাঁস করছি বলে আমি বাড়ির বাইরে বার হচ্ছি এমনটা নয়’। (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)
অন্তঃসত্ত্বা থাকা অবস্থাতেও নিজের কাজের সঙ্গে আপোস করেননি অভিনেত্রী। ওয়ার্কিং মাদার হওয়ার দরুন, সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে অভিনেত্রী জানিয়েছেন, তাঁর কাছে কোন প্ল্যান ছিল না তিনি কোনটা করবেন। তিনি কখনোই ঘরে পা তুলে বসে থাকার মতো ব্যক্তিত্ব নন। তিনি যা করতে চান তাই করেন। গর্ভাবস্থায় এবং তাঁর পরেও তিনি কাজ করে যেতে চান।  (PTI)
7/8অন্তঃসত্ত্বা থাকা অবস্থাতেও নিজের কাজের সঙ্গে আপোস করেননি অভিনেত্রী। ওয়ার্কিং মাদার হওয়ার দরুন, সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে অভিনেত্রী জানিয়েছেন, তাঁর কাছে কোন প্ল্যান ছিল না তিনি কোনটা করবেন। তিনি কখনোই ঘরে পা তুলে বসে থাকার মতো ব্যক্তিত্ব নন। তিনি যা করতে চান তাই করেন। গর্ভাবস্থায় এবং তাঁর পরেও তিনি কাজ করে যেতে চান।  (PTI)
অনেকেই বলেন অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় কাজ করা যায় না? করিনার কথায়, কাজ করলে তিনি খুশি থাকেন এবং বেবিও সুস্থ থাকবে। ‘ডেলিভারির পরে তুমি যদি সুস্থ মনে করো তাহলে সন্তান এবং কাজের মধ্যে সামঞ্জস্য রেখে চলতে পার, কাজ শুরু করা প্রয়োজন’। তিনি কর্মরতা মা হিসেবে গর্বিত অনুভব করেন।. (ANI Photo)
8/8অনেকেই বলেন অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় কাজ করা যায় না? করিনার কথায়, কাজ করলে তিনি খুশি থাকেন এবং বেবিও সুস্থ থাকবে। ‘ডেলিভারির পরে তুমি যদি সুস্থ মনে করো তাহলে সন্তান এবং কাজের মধ্যে সামঞ্জস্য রেখে চলতে পার, কাজ শুরু করা প্রয়োজন’। তিনি কর্মরতা মা হিসেবে গর্বিত অনুভব করেন।. (ANI Photo)
অন্য গ্যালারিগুলি