বাংলা নিউজ > ছবিঘর > প্রয়াত স্বাতীলেখা সেনগুপ্ত : মা-কে হারালেন পুটু পিসি, বাংলার রঙ্গমঞ্চ হারাল এক দাপুটে অভিনেত্রীকে

প্রয়াত স্বাতীলেখা সেনগুপ্ত : মা-কে হারালেন পুটু পিসি, বাংলার রঙ্গমঞ্চ হারাল এক দাপুটে অভিনেত্রীকে

  • ফিল্মোগ্রাফিতে মাত্র পাঁচটা ছবি, দুটো মুক্তির অপেক্ষায়। নিজের জীবনটা থিয়েটারকেই উত্সর্গ করেছিলেন স্বাতীলেখা সেনগুপ্ত।
আজীবন থিয়েটার পাগল মানুষ ছিলেন স্বাতীলেখা সেনগুপ্ত। বাংলার অন্যতম চর্চিত নাট্যব্যক্তিত্ব রুদ্রপ্রসাদ সেনগুপ্তের সহধর্মিনী। পুরো জীবনটাই রঙ্গমঞ্চের জন্য উজাড় করে দিয়েছেন এই দম্পতি। সত্যজিত রায়ে ‘বিমলা’ রুপোলি পর্দা থেকে দীর্ঘ ৩০ বছর দূরে ছিলেন। কিন্তু আক্ষেপ ছিল না এতটুকুও। 
1/7আজীবন থিয়েটার পাগল মানুষ ছিলেন স্বাতীলেখা সেনগুপ্ত। বাংলার অন্যতম চর্চিত নাট্যব্যক্তিত্ব রুদ্রপ্রসাদ সেনগুপ্তের সহধর্মিনী। পুরো জীবনটাই রঙ্গমঞ্চের জন্য উজাড় করে দিয়েছেন এই দম্পতি। সত্যজিত রায়ে ‘বিমলা’ রুপোলি পর্দা থেকে দীর্ঘ ৩০ বছর দূরে ছিলেন। কিন্তু আক্ষেপ ছিল না এতটুকুও। 
‘ঘরে-বাইরে’ সর্বত্র রুদ্রপ্রসাদ সেনগুপ্তের কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে চলেছেন স্বাতীলেখা সেনগুপ্ত। আজ, বুধবার না-ফেরার দেশে চলে গেলেন তিনি। দীর্ঘদিন ধরেই কিডনির সমস্যায় ভুগছিলেন, আজ সব লড়াইয়ে ইতি। 
2/7‘ঘরে-বাইরে’ সর্বত্র রুদ্রপ্রসাদ সেনগুপ্তের কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে চলেছেন স্বাতীলেখা সেনগুপ্ত। আজ, বুধবার না-ফেরার দেশে চলে গেলেন তিনি। দীর্ঘদিন ধরেই কিডনির সমস্যায় ভুগছিলেন, আজ সব লড়াইয়ে ইতি। 
হাসি-খুশি অমায়িক, ছোটদের প্রতি স্নেহ বৎসল অথচ প্রয়োজনে কড়া প্রকৃতির মানুষ ছিলেন স্বাতীলেখা দেবী। ‘বেলাশুরু’র সঙ্গে যথন রুপোলি পর্দায় ফিরলেন, জানিয়েছিলেন- 'বিনয় আজকাল আমি একটু প্র্যাকটিস করি৷ আগে সবাই আমাকে প্রাউড মনে করতো৷ আসলে আমি খুবই লাজুক…৷
3/7হাসি-খুশি অমায়িক, ছোটদের প্রতি স্নেহ বৎসল অথচ প্রয়োজনে কড়া প্রকৃতির মানুষ ছিলেন স্বাতীলেখা দেবী। ‘বেলাশুরু’র সঙ্গে যথন রুপোলি পর্দায় ফিরলেন, জানিয়েছিলেন- 'বিনয় আজকাল আমি একটু প্র্যাকটিস করি৷ আগে সবাই আমাকে প্রাউড মনে করতো৷ আসলে আমি খুবই লাজুক…৷
বাবা-মায়ের দেখানো পথেই হেঁটেছেন সোহিনী।নান্দীকার নাট্যগোষ্ঠীর দুই স্তম্ভ সোহিনী ও স্বাতীলেখা সেনগুপ্ত।  ‘বেলাশেষে’ ছবিতে অতিথি শিল্পীর ভূমিকায় মায়ের সঙ্গে অভিনয়ও করেছিলেন। 
4/7বাবা-মায়ের দেখানো পথেই হেঁটেছেন সোহিনী।নান্দীকার নাট্যগোষ্ঠীর দুই স্তম্ভ সোহিনী ও স্বাতীলেখা সেনগুপ্ত।  ‘বেলাশেষে’ ছবিতে অতিথি শিল্পীর ভূমিকায় মায়ের সঙ্গে অভিনয়ও করেছিলেন। 
সোজা কথা সোজাভাবে বলতে ভালোবাসতেন স্বাতীলেখা সেনগুপ্ত। এক সাক্ষাত্কারে তিনি বলেছি্লেন, ‘আমাদের মতো লোকেদের জন্য সিনেমা একটু ডিসস্যাটিংফাইং৷ কারণ সিনেমা একেবারেই পরিচালকের মিডিয়াম৷ উল্টে, থিয়েটার অভিনেতার মিডিয়াম’। যোগ করেছিলেন, ‘(থিয়েটারে) একেবারে একটা জ্যান্ত রিয়্যাকশন উঠে আসে৷ বাকিগুলো ধরছি না -টাকাপয়সা বা স্টারডম অনেক বেশি সিনেমায়৷কিন্তু সেগুলো আামাদের জন্য একদম ম্যাটার করে না’। (ছবি- সৌজন্যে টুইটার) 
5/7সোজা কথা সোজাভাবে বলতে ভালোবাসতেন স্বাতীলেখা সেনগুপ্ত। এক সাক্ষাত্কারে তিনি বলেছি্লেন, ‘আমাদের মতো লোকেদের জন্য সিনেমা একটু ডিসস্যাটিংফাইং৷ কারণ সিনেমা একেবারেই পরিচালকের মিডিয়াম৷ উল্টে, থিয়েটার অভিনেতার মিডিয়াম’। যোগ করেছিলেন, ‘(থিয়েটারে) একেবারে একটা জ্যান্ত রিয়্যাকশন উঠে আসে৷ বাকিগুলো ধরছি না -টাকাপয়সা বা স্টারডম অনেক বেশি সিনেমায়৷কিন্তু সেগুলো আামাদের জন্য একদম ম্যাটার করে না’। (ছবি- সৌজন্যে টুইটার) 
নাচনী নাটকের একটি দৃশ্যে মেয়ে সোহিনী ও জামাই সপ্তর্ষি এবং রুদ্রপ্রসাদ সেনগুপ্তের সঙ্গে স্বাতীলেখা সেনগুপ্ত।  (ছবি সৌজন্যে- ফেসবুক) 
6/7নাচনী নাটকের একটি দৃশ্যে মেয়ে সোহিনী ও জামাই সপ্তর্ষি এবং রুদ্রপ্রসাদ সেনগুপ্তের সঙ্গে স্বাতীলেখা সেনগুপ্ত।  (ছবি সৌজন্যে- ফেসবুক) 
‘দুঃসময় পেরিয়ে সুর বাঁধতে শেখা, হাসতে চাওয়া, বাঁচতে শেখা সর্বোপরি থিয়েটারে মেতে থাকা সেও তোমার কাছেই শেখা…’ গত মাসেই সোহিনী সেনগুপ্তর জন্মদিনে ঠিক এমনিভাবেই নান্দীকারের তরফে শুভেচ্ছা জানানো হয়েছিল অভিনেত্রীকে। কে জানত… এটাই শেষ! 
7/7‘দুঃসময় পেরিয়ে সুর বাঁধতে শেখা, হাসতে চাওয়া, বাঁচতে শেখা সর্বোপরি থিয়েটারে মেতে থাকা সেও তোমার কাছেই শেখা…’ গত মাসেই সোহিনী সেনগুপ্তর জন্মদিনে ঠিক এমনিভাবেই নান্দীকারের তরফে শুভেচ্ছা জানানো হয়েছিল অভিনেত্রীকে। কে জানত… এটাই শেষ! 
অন্য গ্যালারিগুলি