বাংলা নিউজ > ছবিঘর > DDLJ ছবিতে এই দুটি বড় ভুলের কথা জানেন কী?

DDLJ ছবিতে এই দুটি বড় ভুলের কথা জানেন কী?

  • পঞ্জাব বলে মহারাষ্ট্রে শুটিং
  • রাতারাতি ভরে গেল সর্ষের ক্ষেত
নব্বইয়ের দশকে শাহরুখ-কাজলের জুটি ছিল এক কথায় হিট। সেই সময়ের অন্যতম জনপ্রিয় ছবি ‘দিলওয়ালে দুলহানিয়া লে যায়েঙ্গে’। ছবি ঘিরে রয়েছে নানা অজানা গল্প। এই সর্ষের ক্ষেতেই রয়েছে প্রেমিক-প্রেমিকাদের অন্যতম স্বপ্নের গল্প।
1/6নব্বইয়ের দশকে শাহরুখ-কাজলের জুটি ছিল এক কথায় হিট। সেই সময়ের অন্যতম জনপ্রিয় ছবি ‘দিলওয়ালে দুলহানিয়া লে যায়েঙ্গে’। ছবি ঘিরে রয়েছে নানা অজানা গল্প। এই সর্ষের ক্ষেতেই রয়েছে প্রেমিক-প্রেমিকাদের অন্যতম স্বপ্নের গল্প।
‘তুঝে দেখা তো জানা সনম’ লতা মঙ্গেশকর এবং কুমার শানুর গলায় এই গান মূলত জয় করেছিল দর্শকদের। গানের দৃশ্যে প্রথমে কাজল তথা সিমরানকে দেখা যায় সবুজ কাঁচা সর্ষের ক্ষেতে দাঁড়িয়ে থাকতে।
2/6‘তুঝে দেখা তো জানা সনম’ লতা মঙ্গেশকর এবং কুমার শানুর গলায় এই গান মূলত জয় করেছিল দর্শকদের। গানের দৃশ্যে প্রথমে কাজল তথা সিমরানকে দেখা যায় সবুজ কাঁচা সর্ষের ক্ষেতে দাঁড়িয়ে থাকতে।
রাজ অর্থাৎ শাহরুখের সঙ্গে দেখা করতে সে ছুটে যায় পাকা হলুদ ফুল ফুটেছে সেই সর্ষের ক্ষেতে। হয়তো ছবির দৃশ্যে এই সর্ষের ক্ষেতের রঙের মতো তাঁদের ভালবাসার রঙ গাঢ় হয়েছে সেটা বোঝানোর হয়েছে।
3/6রাজ অর্থাৎ শাহরুখের সঙ্গে দেখা করতে সে ছুটে যায় পাকা হলুদ ফুল ফুটেছে সেই সর্ষের ক্ষেতে। হয়তো ছবির দৃশ্যে এই সর্ষের ক্ষেতের রঙের মতো তাঁদের ভালবাসার রঙ গাঢ় হয়েছে সেটা বোঝানোর হয়েছে।
ছবির এই দৃশ্য থেকেই দুজনের ভালবাসার রসায়ন শুরু। তবে এই শ্যুটিং মূলত কোথায় হয়েছিল? তা অনেকেরই মনে প্রশ্ন। ছবির দ্বিতীয় অংশের ক্লাইম্যাক্সে মূলত পঞ্জাবের আপটা রেলওয়া স্টেশনের কাছাকাছি ক্ষেতে এই শ্যুটিং হয়।
4/6ছবির এই দৃশ্য থেকেই দুজনের ভালবাসার রসায়ন শুরু। তবে এই শ্যুটিং মূলত কোথায় হয়েছিল? তা অনেকেরই মনে প্রশ্ন। ছবির দ্বিতীয় অংশের ক্লাইম্যাক্সে মূলত পঞ্জাবের আপটা রেলওয়া স্টেশনের কাছাকাছি ক্ষেতে এই শ্যুটিং হয়।
মুম্বই থেকে ৬০ কিলোমিটার দূরে আপটা নামক এই রেল স্টেশনটি অবস্থিত। সেখানেই মূলত ছবিতে ট্রেনের দৃশ্যেরও শ্যুটিং হয়। বাউজি সিমরানকে রাজের সঙ্গে যাওয়ার জন্য বলেন, ‘যা সিমরন নিজের জীবনকে বেছে নে’ এই সংলাপটি বলেন।
5/6মুম্বই থেকে ৬০ কিলোমিটার দূরে আপটা নামক এই রেল স্টেশনটি অবস্থিত। সেখানেই মূলত ছবিতে ট্রেনের দৃশ্যেরও শ্যুটিং হয়। বাউজি সিমরানকে রাজের সঙ্গে যাওয়ার জন্য বলেন, ‘যা সিমরন নিজের জীবনকে বেছে নে’ এই সংলাপটি বলেন।
বাবা যশ চোপড়ার মৃত্যুর পর ১৯৯৫ সালে আদিত্য চোপড়ার পরিচালক হিসেবে ডেবিউ ছিল এই ছবি। ন্য়াশনাল ফিল্ম অ্যাওয়ার্ড শো-তে সেই বছরের অন্যতম সেরা জনপ্রিয় ছবি হিসেবে পুরস্কৃত হয়েছিল এই ছবি।
6/6বাবা যশ চোপড়ার মৃত্যুর পর ১৯৯৫ সালে আদিত্য চোপড়ার পরিচালক হিসেবে ডেবিউ ছিল এই ছবি। ন্য়াশনাল ফিল্ম অ্যাওয়ার্ড শো-তে সেই বছরের অন্যতম সেরা জনপ্রিয় ছবি হিসেবে পুরস্কৃত হয়েছিল এই ছবি।
অন্য গ্যালারিগুলি