তাঁর মৃত্যুতে হুমকি ইরানের, কে এই কাশেম সোলেইমানি?

আমেরিকার হানায় মৃত্যু হয়েছে ইরানিয়ান কম্যান্ডার... more

১৯৫৭ সালে পূর্ব ইরানের একটি দরিদ্র পরিবারে জন্ম কাশেম সোলেইমানির। ১৯৭৯ সালের ইরান বিপ্লবের সময় রেভোলিউশনারি গার্ডে যোগ দেন। ১৯৮০-র দশকে ইরান-ইরাক যুদ্ধে লড়েছিলেন। (ছবি সৌজন্য এএফপি)
1/8১৯৫৭ সালে পূর্ব ইরানের একটি দরিদ্র পরিবারে জন্ম কাশেম সোলেইমানির। ১৯৭৯ সালের ইরান বিপ্লবের সময় রেভোলিউশনারি গার্ডে যোগ দেন। ১৯৮০-র দশকে ইরান-ইরাক যুদ্ধে লড়েছিলেন। (ছবি সৌজন্য এএফপি)
১৯৯৮ সালে কুদস ফোর্সের দায়িত্ব নেন সোলেইমানি। ২০১৩ সালে 'দ্য নিউ ইয়র্কার'-এ একটি লেখায় বলা হয়, মধ্যপ্রাচ্যের ইরানের অবস্থান জোরদার করতে উদ্যোগী হন সোলেইমানি। ক্ষমতার কারবারি ও মিলিটারি ফোর্স হিসেবে প্রতিপক্ষদের হত্যা, বন্ধুপক্ষকে অস্ত্র সরবরাহ ও অধিকাংশ সময় সন্ত্রাসবাদীদের একটি নেটওয়ার্ককে পরিচালিত করতেন। যে জঙ্গি সংগঠনগুলি ইরাকে কয়েকশো মার্কিন নাগরিককে হত্যা করেছে। (ছবি সৌজন্য এএফপি)
2/8১৯৯৮ সালে কুদস ফোর্সের দায়িত্ব নেন সোলেইমানি। ২০১৩ সালে 'দ্য নিউ ইয়র্কার'-এ একটি লেখায় বলা হয়, মধ্যপ্রাচ্যের ইরানের অবস্থান জোরদার করতে উদ্যোগী হন সোলেইমানি। ক্ষমতার কারবারি ও মিলিটারি ফোর্স হিসেবে প্রতিপক্ষদের হত্যা, বন্ধুপক্ষকে অস্ত্র সরবরাহ ও অধিকাংশ সময় সন্ত্রাসবাদীদের একটি নেটওয়ার্ককে পরিচালিত করতেন। যে জঙ্গি সংগঠনগুলি ইরাকে কয়েকশো মার্কিন নাগরিককে হত্যা করেছে। (ছবি সৌজন্য এএফপি)
২০০১ সাল থেকেই মূলত সোলেইমানির উত্থান শুরু হয়। ৯/১১ হামলার পর আফগানিস্তানে আক্রমণের পরিকল্পনা চালাচ্ছিল আমেরিকা। ওই প্রতিবেদনের দাবি, তেহরান ও ওয়াশিংটনের মধ্যে তিক্ত সম্পর্ক সত্ত্বেও সোলেইমানির লোকজন আফগানিস্তান নিয়ে আমেরিকাকে গোয়েন্দা তথ্য দেয়।  (ছবি সৌজন্য এএফপি)
3/8২০০১ সাল থেকেই মূলত সোলেইমানির উত্থান শুরু হয়। ৯/১১ হামলার পর আফগানিস্তানে আক্রমণের পরিকল্পনা চালাচ্ছিল আমেরিকা। ওই প্রতিবেদনের দাবি, তেহরান ও ওয়াশিংটনের মধ্যে তিক্ত সম্পর্ক সত্ত্বেও সোলেইমানির লোকজন আফগানিস্তান নিয়ে আমেরিকাকে গোয়েন্দা তথ্য দেয়। (ছবি সৌজন্য এএফপি)
কিন্তু, ২০০২ সালে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জর্জ বুশ ইরানকে অ্যাক্সিস অফ এভিলে অন্তর্ভুক্ত করলে ক্ষুব্ধ হন সোলেইমানি। তারপর তাঁর মার্কিন বিরোধী মনোভাব আরও জোরদার হয়। (ছবি সৌজন্য এএফপি)
4/8কিন্তু, ২০০২ সালে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জর্জ বুশ ইরানকে অ্যাক্সিস অফ এভিলে অন্তর্ভুক্ত করলে ক্ষুব্ধ হন সোলেইমানি। তারপর তাঁর মার্কিন বিরোধী মনোভাব আরও জোরদার হয়। (ছবি সৌজন্য এএফপি)
২০০৩ সালে ইরাকে মার্কিন সেনা প্রবেশের পর বাগদাদে নতুন সম্ভাবনা দেখে ইরান। ইরাকে সোলেইমানির উপর ভার দেয় তেহরান। আমেরিকাকে সাহায্য করার পাশাপাশি সন্ত্রাসবাদীদের সমর্থন জুগিয়েছিলেন তিনি। লক্ষ্য ছিল, জঙ্গিরা আমেরিকাকে পিছু হটিয়ে দেবে। ফলে ইরাকে প্রভাব বাড়বে তেহরানের। (ছবি সৌজন্য এপি)
5/8২০০৩ সালে ইরাকে মার্কিন সেনা প্রবেশের পর বাগদাদে নতুন সম্ভাবনা দেখে ইরান। ইরাকে সোলেইমানির উপর ভার দেয় তেহরান। আমেরিকাকে সাহায্য করার পাশাপাশি সন্ত্রাসবাদীদের সমর্থন জুগিয়েছিলেন তিনি। লক্ষ্য ছিল, জঙ্গিরা আমেরিকাকে পিছু হটিয়ে দেবে। ফলে ইরাকে প্রভাব বাড়বে তেহরানের। (ছবি সৌজন্য এপি)
লেবাননে হেজবুল্লাকেও উদ্দীপ্ত করে যান সোলেইমানি। সিরিয়ায় বাশার আল-আসাদের ক্ষমতা ধরে রাখার মূল স্থপতি ছিলেন তিনি। সেই সময় রাশিয়ার সঙ্গে কাজ করেছেন। ইরাকি বাহিনীর সহায়তায় আইসিসের বিরুদ্ধে লড়েছিলেন। (ছবি সৌজন্য এএফপি)
6/8লেবাননে হেজবুল্লাকেও উদ্দীপ্ত করে যান সোলেইমানি। সিরিয়ায় বাশার আল-আসাদের ক্ষমতা ধরে রাখার মূল স্থপতি ছিলেন তিনি। সেই সময় রাশিয়ার সঙ্গে কাজ করেছেন। ইরাকি বাহিনীর সহায়তায় আইসিসের বিরুদ্ধে লড়েছিলেন। (ছবি সৌজন্য এএফপি)
বর্তমানে পশ্চিম এশিয়ার যে পরিস্থিতি তাতে বড়সড় ভূমিকা রয়েছে সোলেইমানির। অন্যদিকে, ভৌগোলিক রাজনীতিতে তেহরানের গুরুত্ব বাড়ানোর ক্ষেত্রেও সোলেইমানির ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ। (ছবি সৌজন্য এপি)
7/8বর্তমানে পশ্চিম এশিয়ার যে পরিস্থিতি তাতে বড়সড় ভূমিকা রয়েছে সোলেইমানির। অন্যদিকে, ভৌগোলিক রাজনীতিতে তেহরানের গুরুত্ব বাড়ানোর ক্ষেত্রেও সোলেইমানির ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ। (ছবি সৌজন্য এপি)
ইরানের সুপ্রিম নেতা আয়াতোল্লাহ আলি খামেনেইয়ের ঘনিষ্ঠ ছিলেন সোলেইমানি। বহির্দেশীয় নীতি নির্ধারণেই তিনি কার্যত ইরানের দ্বিতীয় ব্যক্তি ছিলেন। (ছবি সৌজন্য এপি)
8/8ইরানের সুপ্রিম নেতা আয়াতোল্লাহ আলি খামেনেইয়ের ঘনিষ্ঠ ছিলেন সোলেইমানি। বহির্দেশীয় নীতি নির্ধারণেই তিনি কার্যত ইরানের দ্বিতীয় ব্যক্তি ছিলেন। (ছবি সৌজন্য এপি)
অন্য গ্যালারিগুলি