বাড়ি > ময়দান > 'প্লিজ যাবেন না', চোখের জলে কোচ বিদায় ইস্টবেঙ্গলের, ভিডিয়ো
বিমানবন্দরে আলেয়ান্দ্রো মেনেনদেস গার্সিয়া (ছবি সৌজন্য সংগৃহীত)
বিমানবন্দরে আলেয়ান্দ্রো মেনেনদেস গার্সিয়া (ছবি সৌজন্য সংগৃহীত)

'প্লিজ যাবেন না', চোখের জলে কোচ বিদায় ইস্টবেঙ্গলের, ভিডিয়ো

  • ডার্বিতে হারের পর কোন কোচের জন্য সমর্থকদের এমন বাঁধভাঙা আবেগ দেখেছে ময়দান, তা মনে করতে পারছেন না প্রবীণ ফুটবলপ্রেমীরাও।

কেউ হাউমাউ করে কাঁদছেন, কেউ আবার জড়িয়ে ধরে আকুতি-মিনতি করছেন - 'দয়া করে যাবেন না।'

আরও পড়ুন : আলেসান্দ্রোর এককালের সহকারী হলেন ইস্টবেঙ্গলের নতুন কোচ

ডার্বিতে হারের পর কোন কোচের জন্য সমর্থকদের এমন বাঁধভাঙা আবেগ দেখেছে ময়দান, তা মনে করতে পারছেন না প্রবীণ ফুটবলপ্রেমীরাও।

আই লিগে এবারের অভিযান ভালো শুরু হলেও তারপরই হোঁচটে খায় ইস্টবেঙ্গল। টানা দুটি ম্যাচে হারে লাল-হলুদ। গোকুলামের বিরুদ্ধে হারের পর কোয়েস কর্তা সঞ্জিত সেনকে জুতো দিয়ে মারা হয়। সম্মানের ডার্বিতেও হেরেছে লাল-হলুদ। অথচ অন্যবারের মতো এবার কোচের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দেননি ইস্টবেঙ্গল সমর্থকরা। বরং আলেয়ান্দ্রো মেনেনদেস গার্সিয়া যে ইস্তফা দিতে পারেন, সেই আঁচ করেই তাঁর পাশে থাকার বার্তা দিয়েছিলেন সমর্থকরা। যদিও শেষপর্যন্ত ইস্তফা দেন আলেয়ান্দ্রো।

আরও পড়ুন : প্রতিবাদের ভাষায় যুবভারতীতে মিশে গেল লাল-হলুদ ও সবুজ-মেরুন

আজ সকালে কলকাতা ছেড়ে পাড়ি দেওয়ার জন্য বিমানবন্দরে গাড়ি থেকে নামতেই তাঁকে জড়িয়ে ধরেন সমর্থকরা। চোকের বাঁধ মানছিল না কারোর। কেউ কেউ বলছিলেন, 'দয়া করে থেকে যান।' কেউ বলছিলেন, 'আপনাকে ছাড়া কী হবে?'

তাতে অবশ্য আটকাননি আলোয়ান্দ্রো। সমর্থকদের কিছুটা আশ্বস্ত করলেন। যেন বলতে চাইলেন, 'এটাই পেশাদারি কোচের জীবন'। তারপর ঢুকে গেলেন বিমানবন্দরের টার্মিনালে। সঙ্গে যেন একটা কলকাতা ফুটবলে ছাপ রেখে গেলেন।


বন্ধ করুন