বাংলা নিউজ > ময়দান > 'নিয়মের ফাঁক বের করতে আমরা সিদ্ধহস্ত', 'কনকাশন সাব' বিতর্কে মন্তব্য মঞ্জরেকরের
'নিয়মের ফাঁক বের করতে আমরা সিদ্ধহস্ত', 'কনকাশন সাব' বিতর্কে মন্তব্য মঞ্জরেকরের। (ছবি সৌজন্য টুইটার)
'নিয়মের ফাঁক বের করতে আমরা সিদ্ধহস্ত', 'কনকাশন সাব' বিতর্কে মন্তব্য মঞ্জরেকরের। (ছবি সৌজন্য টুইটার)

'নিয়মের ফাঁক বের করতে আমরা সিদ্ধহস্ত', 'কনকাশন সাব' বিতর্কে মন্তব্য মঞ্জরেকরের

  • মঞ্জরেকরের মত, সৎ উদ্দেশ্যেই সব নিয়ম করা হয়।

শুভব্রত মুখার্জি

ভারতের প্রাক্তন ক্রিকেটার তথা বর্তমান ধারাভাষ্যকার সঞ্জয় মঞ্জরেকর বরাবরের বিতর্কিত চরিত্র। স্বদেশীয় ক্রিকেটার হোক বা ধারাভাষ্যকার - তাঁদের নিয়ে আলটপকা মন্তব্য করে থাকেন। রবীন্দ্র জাদেজাকে আগেই 'খুচরো' ক্রিকেটার বলে কটাক্ষ করে বিসিসিআইয়ের ধারাভাষ্যকারদের প্যানেল থেকে বাদ পড়েছিল। ভারত বনাম অস্ট্রেলিয়া সিরিজে যেহেতু অস্ট্রেলিয়া আয়োজক দেশ, তাই ফের ধারাভাষ্যকারদের প্যানেলে ফিরেছেন।

টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচে জয়লাভ করেছে ভারত। ওই ম্যাচে ব্যাটিংয়ের সময় রবীন্দ্র জাদেজার মাথায় লাগে মিচেল স্টার্কের বল। তারপরও তিনি খেলা চালিয়ে যান। ২৩ বলে ৪৪ রানের ঝোড়ো ইনিংস খেলে ভারতকে একটি সম্মানজনক জায়গায় পৌঁছে দেন। সেই সময় হ্যামস্ট্রিং চোটেও ভুগছিলেন জাদেজা। তারপরেই ইনিংস বিরতিতে ফিরে ভারত জাদেজা 'আচ্ছন্ন' অনুভব করার ফলে তাঁর জায়গায় 'কনকাশন সাব' হিসেবে যুজবেন্দ্র চাহালকে নামায়। চাহালের ২৫ রানে ৩ উইকেট নেওয়া পারফরম্যান্সের উপর ভিত্তি করেই ভারত ম্যাচ জিতে যায় এবং ম্যাচের সেরা হন চাহাল। ভারতের এই 'কনকাশন সাব' ব্যবহার নিয়ে তৈরি হয়েছে বিতর্ক।

সেই প্রসঙ্গে সঞ্জয় বলেন, 'আমি খুব খুশি চাহাল এই সুযোগটা পেয়েছে। বিরাট নিজেও জানে এই পারফরম্যান্স কীভাবে ম্যাচের রং বদলে দিয়েছে। চাহাল ভারতের জন্য খুব বড় বোনাস ছিল এবং ভগবানের কাছে কৃতজ্ঞ যে তারা ১৬০ রানে পৌঁছে গিয়েছিল। কিন্তু এই চাহালের ঘটনার পরে এই কনকাশন সাব নিয়মটি নিয়ে নতুন করে ভাবার সময় এসেছে। সমস্ত নিয়মের পিছনেই থাকে সৎ উদ্দেশ্য। কিন্তু আমরা নিয়মের ত্রুটি খুঁজে বের করে তাকে নিজেদের স্বার্থে ব্যবহার করার ক্ষেত্রে সিদ্ধহস্ত। ভারত এই নিয়মের সুবিধা নিয়েছে কিনা, আমি জানি না। তবে আইসিসির এই নিয়মটি নিয়ে পুনরায় ভাবার সময় এসেছে।'

বন্ধ করুন