100 Hours 100 Stars-এ রবিচন্দ্রন অশ্বিন।
100 Hours 100 Stars-এ রবিচন্দ্রন অশ্বিন।

100 Hours 100 Stars: নিউজিল্যান্ডে পৌঁছেই গলা ব্যথা করায় ভয় পেয়েছিলেন, জানালেন অশ্বিন

  • লকডাউনের আগে থেকেই নিজেদের ঘরবন্দি করে নেন, জানালেন টিম ইন্ডিয়ার তারকা স্পিনার।

করোনা ভাইরাসের প্রকোপ যখন ক্রমশ সারা বিশ্বকে গ্রাস করতে শুরু করেছে, তখন ভারতীয় ক্রিকেট দল নিউজিল্যান্ড সফরে ছিল। তারকা স্পিনার রবিচন্দ্রন অশ্বিন দলের সঙ্গেই কিউয়ি সফরে উড়ে যান। ফিভার নেটওয়ার্কের অভিনব উদ্যোগ #100Hours100Stars-এর শোয়ে অশ্বিন জানালেন, নিউজিল্যান্ডে পা দেওয়ার পরেই কীভাবে ভয় পেয়েছিলেন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার।

তরাকা স্পিনার বলেন, ‘নিউজিল্যান্ডে পৌঁছনোর পরেই সর্দি ও গলা ব্যথা করেছিল। তখন ভয় পেয়েছিলাম। তবে জেট ল্যাগের জন্য এগুলো হয়। কয়েকদিনের মধ্যেই ঠিক হয়ে গিয়েছিল।’

অশ্বিন জানান, মহামারি ছড়িয়ে পড়ার আগে থেকেই তাঁর স্ত্রী প্রীতি সতর্কতামূলক সমস্ত ব্যবস্থা সেরে রেখেছিলেন। অশ্বিনের কথায়, ‘প্রীতি শুরু থেকেই সতর্ক ছিল। আমাকে মাস্ক, স্যানিটাইজার দিয়ে রেখেছিল। বার বার হাত ধোয়ার কথা স্মরণ করিয়ে দিত। দেশে ফেরার পরে আমি কয়েকটা ক্লাব ম্যাচ খেলি বটে। তবে তার পরেই আমরা নিজেদের ঘরবন্দি করে নিই। সুতরাং লকডাউনের আগে থেকেই আমরা হোম কোয়ারান্টাইনে চলে যাই।’

অশ্বিন আরও জানান, একমাত্র নেপালের যে ব্যক্তি বাড়ি যেতে পারেননি, তিনি ছাড়া বাড়িতে বাকি যাঁরা কাজ করতেন, তাঁদের প্রত্যেককেই লকডাউনের আগে ছুটি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন তাঁরা। প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র লোকে বাড়িতেই দিয়ে যায়। ছাদের বাগানে সব্জি চাষ হয়। তাতেই কাজ চলে যায়।

বন্ধ করুন