ভারতের বিশ্বকাপজয়ের প্রতীকী ছবি ধোনির এই ছক্কা। ছবি- টুইটার।
ভারতের বিশ্বকাপজয়ের প্রতীকী ছবি ধোনির এই ছক্কা। ছবি- টুইটার।

ধোনির এক ছক্কায় বিশ্বকাপ জেতেনি ভারত, মনে করিয়ে দিলেন গম্ভীর

  • বিশ্বকাপ জয়ের স্মরণীকায় ধোনির ছক্কার ছবিটিই প্রাধান্য পেয়ে এসেছে সর্বত্র। বাকি সব কিছুই চলে গিয়েছে আড়ালে।

একটা ছক্কাই বদলে দিয়েছিল ছবি, এমনটা ভাবা ঠিক নয়। তবে টিম ইন্ডিয়ার ২০১১ বিশ্বকাপ জয়ের প্রতীকী ছবি হয়ে দাঁড়িয়েছে ওই একটি ছক্কাই।

৯ বছর আগে ঠিক এই দিনটিতেই (২ এপ্রিল) ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে প্রথম দল হিসেবে ঘরের মাঠে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হয়েছিল ভারত। ৪৯তম ওভারের দ্বিতীয় বলে নুয়ান কুলশেখরাকে বিশাল ছক্কা হাঁকিয়ে দলের জয় নিশ্চিত করেছিলেন ধোনি।

স্বাভাবিকভাবেই বিশ্বকাপ জয়ের স্মরণীকায় ধোনির ছক্কার ছবিটিই প্রাধান্য পেয়ে এসেছে সর্বত্র। বাকি সব কিছুই চলে গিয়েছে আড়ালে।

ভারতের দ্বিতীয়বার বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হওয়ার বর্ষপূর্তিতে ইএসপিএন ক্রিকইনফো সোশ্যাল মিডিয়ায় ধোনির স্মরণীয় ছক্কার ছবি পোস্ট করে লেখে, '২০১১ সালের এই দিনটিতেই এই শটটি লক্ষ লক্ষ ভারতীয়কে উচ্ছ্বাসে ভাসিয়েছিল।'

বিষয়টি ভালো লাগেনি টিম ইন্ডিয়ার প্রাক্তন তারকা তথা বর্তমান বিজেপি সাংসদ গৌতম গম্ভীরের। গম্ভীর নিজেও সেদিন দলের জয়ে বড় অবদান রেখেছিলেন। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৯৭ রান করে গম্ভীরই ভারতের জয়ের মঞ্চ প্রস্তুত করেন। তাছাড়া ম্যাচে কম-বেশি অবদান ছিল কোহলি, জাহির, যুবরাজদেরও।

ফাইনাল ছাড়া গোটা টুর্নামেন্টে ধোনির ব্যাট সেভাবে কথা বলেনি অথচ বিশ্বকাপজুড়ে দারুণ পারফম্যান্স করেছিলেন গম্ভীর, সচিন, যুবারাজ, জাহিররা। কার্যকরী অবদান রাখেন হরভজন সিং ও সুরেশ রায়নাও।

একা ধোনির প্রতি এমন আনুগত্য দেখানোয় গম্ভীর ইএসপিএন ক্রিকইনফোকে একহাত নেন। টুইটারে তিনি লেখেন, 'ইএসপিএন ক্রিকইনফোকে শুধু মনে করিয়ে দেওয়া যে, ২০১১ বিশ্বকাপ জিতেছিল গোটা ভারতবর্ষ, গোটা ভারতীয় দল এবং সমস্ত সাপোর্ট স্টাফরা। একটা ছক্কাতেই আপনাদের আবিষ্ট হয়ে থাকার এটা ভালো সময় যদিও।'

গম্ভীরের ইঙ্গিত বুঝতে অসুবিধা হওয়ার কথা নয়। তাঁর রিটুইটের পরেই নেটিজেনদের চর্চায় চেল আসে বিষয়টি। কেউ কেউ গম্ভীরের সমর্থনে কথা বলেন। আবার ধোনি সমর্থকদের মধ্যে বিরূপ প্রতিক্রিয়া ফেলে গম্ভীরের এই টুইট।

বন্ধ করুন