বাংলা নিউজ > ময়দান > ‘ভক্তকে দেখতে নিজেই হাজির হয়েছিলেন বিন্দ্রা’, বাবার মৃত্যুদিবসে আবেগপ্রবণ জয়দীপ
জয়দীপের অসুস্থ বাবার সঙ্গে দেখা করতে নিজের হাজির হয়েছিলেন অভিনব বিন্দ্রা।
জয়দীপের অসুস্থ বাবার সঙ্গে দেখা করতে নিজের হাজির হয়েছিলেন অভিনব বিন্দ্রা।

‘ভক্তকে দেখতে নিজেই হাজির হয়েছিলেন বিন্দ্রা’, বাবার মৃত্যুদিবসে আবেগপ্রবণ জয়দীপ

  • জয়দীপ কর্মকারের বাবার অসুস্থতার কারণে একনিষ্ঠ 'ভক্তকে' দেখতে তাঁদের বাড়িতেই উপস্থিত হয়েছিলেন অভিনব বিন্দ্রা। সেখানেই তোলা হয়েছিল এই ছবি।

শুভব্রত মুখার্জি : ২০১২ সালের লন্ডন অলিম্পিকে ভাগ্য সুপ্রসন্ন হলে প্রথম বাঙালি হিসেবে অলিম্পিক পদক জয়ের মধ্যে দিয়ে নজির সৃষ্টি করত পারতেন অর্জুন পুরস্কারপ্রাপ্ত বাঙালি শুটার জয়দীপ কর্মকার।। সে বার অবশ্য ৫০ মিটার এয়ার রাইফেল প্রোন ইভেন্টে অল্পের জন্য চতুর্থ স্থানে শেষ করে পিটি ঊষা,মিলখা সিংদের সঙ্গে সিংহাসন ভাগ করে নিয়েছিলেন তিনি। ২৮ শে সেপ্টেম্বর জয়দীপ কর্মকার তাঁর বাবা শান্ত কর্মকারের প্রয়াণ দিবসে সোশ্যাল মিডিয়াতে এক পোস্টের মাধ্যমে অভিনব 'শ্রদ্ধার্ঘ্য' নিবেদন করলেন। কাকাতলীয় ভাবে আজকের দিন মিলিয়ে দিল ভারতীয় ক্রীড়িজগতের এক কিংবদন্তি এবং তাঁর একনিষ্ঠ 'ভক্তকে', তা তুলে ধরলেন সবার সামনে।

নিজের টুইটার হ্যান্ডেল থেকে একটি ছবি পোস্ট করেন তিনি। যেখানে দেখা যায় ভারতের অলিম্পিক্সের ইতিহাসে প্রথম ব্যক্তিগত সোনাজয়ী অভিনব বিন্দ্রা দাঁড়িয়ে রয়েছেন জয়দীপ কর্মকারের বাবা শান্ত কর্মকারের পাশে। শান্ত কর্মকার বসে রয়েছেন একটি চেয়ারে আর তাঁর পাশে দাঁড়িয়ে রয়েছেন অভিনব বিন্দ্রা। ছবির বর্ণনায় জয়দীপ কর্মকার লেখেন বাবার অসুস্থতার কারণে একনিষ্ঠ 'ভক্তকে' দেখতে তাঁদের বাড়িতেই উপস্থিত হয়েছিলেন বিন্দ্রা। সেখানেই তোলা হয়েছিল এই ছবি।

পরবর্তীতে ফের একটি টুইট করে জয়দীপ কর্মকার লেখেন, 'বাবা তাঁর চ্যাম্পিয়ানকে সামনে পেয়ে ভীষণ রকম উচ্ছ্বসিত ছিলেন। চ্যাম্পিয়ানের সাথে নিজের বাড়িতেই তিনি কথোপকথনে মগ্ন ছিলেন। ২০১৯ সালের ২৮ শে সেপ্টেম্বর বাবা তার স্বর্গীয় যাত্রায় 'রওনা ‘ দিয়েছিলেন। আর এই ২৮ শে সেপ্টেম্বরেই ছবির বাদিকে (বিন্দ্রা) থাকা মানুষটি জন্মগ্রহন করেছিলেন। মাঝেমধ্যে জন্ম-মৃত্যু এক হৃদয়স্পর্শী গল্পের জন্ম দিয়ে যায়।’

বন্ধ করুন