বাংলা নিউজ > ময়দান > টোকিয়ো অলিম্পিক্সে ফের ধাক্কা, সরে দাঁড়ালেন দশ হাজার স্বেচ্ছাসেবী
টোকিয়ো অলিম্পিক্স নিয়ে ডামাডোল চলছেই।
টোকিয়ো অলিম্পিক্স নিয়ে ডামাডোল চলছেই।

টোকিয়ো অলিম্পিক্সে ফের ধাক্কা, সরে দাঁড়ালেন দশ হাজার স্বেচ্ছাসেবী

  • করোনা পরিস্থিতির মাঝে জাপানে অলিম্পিক্স করা নিয়ে নানা ডামাডোল চলছে। দেশের মানুষ থেকে টোকিয়োর চিকিৎসকেরা প্রত্যেকেই এই মুহূর্তে জাপানে গেমস আয়োজনের বিপক্ষে। সেই প্রতিবাদেই দশ হাজার স্বেচ্ছাসেবী সরে দাঁড়িয়েছেন।

টোকিয়ো অলিম্পিক্সের আর দেড় মাস মতো বাকি। তার আগে বড় ধাক্কা খেল আয়োজকরা। প্রায় ১০ হাজার স্বেচ্ছাসেবক সরে অলিম্পিক্স থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। বৃহস্পতিবার টোকিয়ো অলিম্পিক্সের প্রেসিডেন্ট সেইকো হাসিমোতো এ কথা জানিয়ে বলেছেন, এতে গেমস আয়োজনে কোনও সমস্যা হবে না।

করোনা পরিস্থিতির মাঝে জাপানে অলিম্পিক্স করা নিয়ে নানা ডামাডোল চলছে। দেশের মানুষ থেকে টোকিয়োর চিকিৎসকেরা প্রত্যেকেই এই মুহূর্তে জাপানে গেমস আয়োজনের বিপক্ষে। সেই প্রতিবাদেই দশ হাজার স্বেচ্ছাসেবী সরে দাঁড়িয়েছেন। তবে কোনও অবস্থাতেই যে অলিম্পিক্স বাতিল হবে না সেটা পরিষ্কার করে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। একমাত্র চরম কোনও পরিস্থিতি না হলে নির্দিষ্ট সূচি মেনেই অলিম্পিক্স হবে।

এক সংবাদমাধ্যমকে হাসিমোতো বলেছেন, ‘কোনও অবস্থাতেই অলিম্পিক্স বাতিল করে দেওয়া বা পিছিয়ে দেওয়া সম্ভব নয়। গেমস শুরু হওয়ার আর ৫০ দিন বাকি রয়েছে। আমরা করোনা সংক্রমণ আটকাতে সব রকম ব্যবস্থা নিচ্ছি। অ্যাথলিটদের বলব, নির্ভয়ে জাপানে আসার জন্য। আমাদের এখন সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ, সুষ্ঠু ভাবে গেমসের আয়োজন করা।’

এর সঙ্গেই তিনি যোগ করেছেন, ‘বিশ্বের বেশির ভাগ দেশেই যদি খুব কঠিন পরিস্থিতি তৈরি হয় এবং অধিকাংশ প্রতিযোগীই  যদি আসতে না পারে, সে ক্ষেত্রে হয়তো গেমস করা সম্ভব হবে না। তবে এর বাইরে অন্য কোনও কারণে গেমস বাতিল করা হবে না।’ 

হাসিমোতো পরিষ্কার করে বলে দিয়েছেন, গেমস পরিচালনার জন্য মোট ৮০ হাজার স্বেচ্ছাসেবী নিযুক্ত ছিলেন। তাদের মধ্যে যদি ১০ হাজার স্বেচ্ছাসেবী পদত্যাগ করেন, তবে এর প্রভাব গেমসে পড়বে না।

বন্ধ করুন