বাংলা নিউজ > ময়দান > AFC CUP 22: মাঠে নেমেই গোল কৃষ্ণর, মাজিয়াকে ৫ গোলের মালা পরিয়ে নক-আউটে ATKMB
নক আউটে পৌঁছল এটিকে মোহনবাগান। ছবি: টুইটার

AFC CUP 22: মাঠে নেমেই গোল কৃষ্ণর, মাজিয়াকে ৫ গোলের মালা পরিয়ে নক-আউটে ATKMB

  • মোহনবাগানের শেষ ম্যাচে বসুন্ধরা ক্লাবের বিরুদ্ধে যদি হিরো হয়ে থাকেন লিস্টন কোলাসো। তো এদিনের ম্যাচের হিরো নিঃসন্দেহে জনি কাউকো। প্রথমার্ধেই তিনি বাগানের হয়ে কয়েক মিনিটের ব্যবধানে পরপর দুই গোল করে মাজিয়াকে ব্যাকফুটে ফেলে দেন।

শুভব্রত মুখার্জি

∆ মোহনবাগান: ৫

∆ মাজিয়া স্পোর্টস ক্লাব: ২

দিনের শুরুতে কিছুটা হলেও অস্বস্তি দানা বেঁধে ছিল এটিকে মোহনবাগান সমর্থকদের মনে। কলকাতার ক্রীড়াজগতের দুই সেরা ঠিকানা ইডেন গার্ডেনে যখন বসেছে আইপিএলের কোয়ালিফায়ারের আসর ঠিক তখন যুবভারতীতে মোহন সমর্থকরা অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছিল তাদের প্রিয় দলের এএফসি কাপের নক আউট পর্যায়ে যাওয়ার। সমর্থকদের সেই আশা শুধু পূরণ করলেন না মোহন ফুটবলাররা বলা ভালো মালদ্বীপের মাজিয়া স্পোর্টস ক্লাবকে ৫-২ ফলে চূর্ণ করে তারা পৌঁছে গেল নক আউট পর্বে। প্রচণ্ড গরমের দিনের শেষে একপশলা বৃষ্টি যেমন স্বস্তির নিঃশ্বাস নিয়ে আসে। আজকের জয়ে নক আউটে পৌঁছে সেই স্বস্তির নিঃশ্বাস যেন ফেলল ফেরান্দোর ছেলেরা।

দিনের প্রথম ম্যাচে বসুন্ধরা কিংস অপর ভারতীয় ক্লাব গোকুলাম কেরালাকে ২-১ গোলে হারিয়ে দেওয়াতে কিছুটা হলেও চাপমুক্ত হয়ে মাঠে নেমেছিল মোহন ফুটবলাররা। যা আজ ছত্রে ছত্রে ফুটে উঠল তাদের খেলাতে। মোহনবাগানের শেষ ম্যাচে বসুন্ধরা ক্লাবের বিরুদ্ধে যদি হিরো হয়ে থাকেন লিস্টন কোলাসো। তো এদিনের ম্যাচের হিরো নিঃসন্দেহে জনি কাউকো। প্রথমার্ধেই তিনি বাগানের হয়ে কয়েক মিনিটের ব্যবধানে পরপর দুই গোল করে মাজিয়াকে ব্যাকফুটে ফেলে দেন।

ম্যাচের ২৬ মিনিটে মোহনবাগানকে গোল করে লিড এনে দেন কাউকো। ১১ মিনিট বাদে ৩৭ মিনিটের মাথায় দলের হয়ে দ্বিতীয় গোল করে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন তিনি। বিরতিতে যাওয়ার আগে ঠিক ৪৫ মিনিটের মাথায় মাজিয়ার হয়ে একটি গোল পরিশোধ করেন তানা। বিরতিতে স্কোর ছিল বাগানের পক্ষে ২-১। বিরতির পর যেন নিজেদের খেলার 'গিয়ার' পরিবর্তন করেন মোহন ফুটবলাররা। ৫৬ মিনিটে রয় কৃষ্ণ এবং ৫৮ মিনিটে শুভাশিষ বোস পরপর দু'টি গোল করে মোহনবাগানকে ৪-১ ফলে এগিয়ে দেন।

তখন কার্যত যুবভারতীর নৈশালোকে দিশেহারা অবস্থা মাজিয়ার ডিফেন্ডারদের। ৭১ মিনিটে বাগানের হয়ে ম্যাকহিউ গোল করে মাজিয়ার কফিনে শেষ পেরেকটি পুঁতে দিয়ে বাগানের হয়ে স্মরণীয় জয় নিশ্চিত করেন। তানা মাজি আর হয়ে ৭৩ মিনিটে আরও একটি গোল শোধ করলেও তা ম্যাচের ফলাফলের উপর কোন প্রভাব ফেলে না। এই জয়ের ফলে প্রথম ম্যাচে গোকুলামের কাছে হারার পরেও পরপর দু'টি জয়ে এএফসি কাপের নক আউট পর্বে পৌঁছে গেল ম্যারিনার্সরা। গ্রুপ ডি'র এই ম্যাচে এদিন ম্যাচ শেষে অতিরিক্ত পাঁচ মিনিট সময় যোগ করা হলেও মোহনবাগানের গোলমুখ খুলতে পারেনি মাজিয়ার স্ট্রাইকাররা।

বন্ধ করুন