বাংলা নিউজ > ময়দান > ২৮ বছর বাদে লখনউ-এ ফিরছে টেস্ট, খেলবে ভারত-নিউজিল্যান্ড
লখনউ-এর অটল বিহারী বাজপেয়ী স্টেডিয়াম (ছবি:টুইটার)
লখনউ-এর অটল বিহারী বাজপেয়ী স্টেডিয়াম (ছবি:টুইটার)

২৮ বছর বাদে লখনউ-এ ফিরছে টেস্ট, খেলবে ভারত-নিউজিল্যান্ড

  • দীর্ঘ প্রায় তিন দশক ধরে কোনও আন্তর্জাতিক ম্যাচের স্বাদ পায়নি লখনউ ক্রিকেট স্টেডিয়াম। তবে ২৮ বছরের খরা এবার কাটতে চলেছে।

শুভব্রত মুখার্জি: দীর্ঘ প্রায় তিন দশক ধরে কোনও আন্তর্জাতিক ম্যাচের স্বাদ পায়নি লখনউ ক্রিকেট স্টেডিয়াম। তবে ২৮ বছরের খরা এবার কাটতে চলেছে। ভারতের টি-২০ বিশ্বকাপ অভিযান শেষ হওয়ার পরপরেই দেশের মাটিতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট ম্যাচের সাক্ষী থাকবে লখনউ। নতুন ভাবে তৈরি করা করা অটল বিহারী বাজপেয়ী স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে এই ম্যাচটি। উল্লেখ্য ২০১৬ সালে উত্তরপ্রদেশের ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের হাত ধরে এই স্টেডিয়ামের পথ চলা শুরু হয়েছিল। ১৯৯৪ সালের জানুয়ারিতে লখনউ তার একমাত্র টেস্ট ম্যাচের আয়োজন করেছিল। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচটি খেলা হয়েছিল কেডিএস বাবু স্টেডিয়ামে।

সূত্রের খবর অনুযায়ী, আসন্ন কিউয়ি সিরিজের দুটি টেস্টের ভেন্যু ইতিমধ্যেই চূড়ান্ত করে ফেলেছে বিসিসিআই। বিসিসিআইয়ের মতে পরের বছর যেহেতু দুটো আইপিএল দল এই সেন্টারকে ঘিরেই অংশ নিতে চলেছে ফলে আমেদাবাদের পরে লখনউ অন্যতম বড় ক্রিকেট ভেন্যু হতে চলেছে। নয়া স্টেডিয়ামের পরিকাঠামো বিশ্বমানের । ৭০ হাজার দর্শক একসাথে এই স্টেডিয়ামে বসে খেলা দেখার সুযোগ পাবেন। তাই আমেদাবাদের মত লখনউকেও একাধিক আন্তর্জাতিক ইভেন্ট আয়োজনের সুযোগ করে দিতে চায় বিসিসিআই। ভারতে টি-২০ বিশ্বকাপ হলে অন্যতম ভেন্যু হত লখনউ।

নভেম্বর মাসের শেষ দিকে কিউয়িদের বিরুদ্ধে এই সিরিজটি আয়োজন করার কথা রয়েছে। টেস্ট সিরিজের পরে তিনটি টি-২০ ম্যাচ খেলবে উইলিয়ামসনরা। উল্লেখ্য এই সিরিজ শেষ হওয়ার পরেই ডিসেম্বরে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে তাদের দেশে ভারতের সিরিজ রয়েছে। দুই সিরিজের মাঝে রয়েছে ১০ দিনের ব্যবধান। সেকথা মাথায় রেখে বায়ো বাবল- বায়ো বাবল ট্রান্সফারের বিষয়েও ভাবনা চিন্তা শুরু করেছে বিসিসিআই।

বন্ধ করুন