বাংলা নিউজ > ময়দান > দল থেকে বাদ পড়ার পর অভিমানে ক্রিকেট দেখা ছেড়েছিলেন ভারতের প্রাক্তন পেসার
কুম্বলে, দ্রাবিড়, আগারকররের সঙ্গে সলিল আঙ্কোলা (ছবি:গেটি ইমেজ)

দল থেকে বাদ পড়ার পর অভিমানে ক্রিকেট দেখা ছেড়েছিলেন ভারতের প্রাক্তন পেসার

  • সলিল আঙ্কোলা বলেন, ‘এক সময় আমি ভারতীয় দল থেকে বাদ পড়েছিলাম এবং একই সময়ে আমি ভারত এ দলে নির্বাচিত হয়েছিলাম। কিন্তু সেখানে আমাকে ম্যাচ খেলার জন্য নয়, পানীয় নিয়ে যাওয়ার জন্য রাখা হয়েছিল।’

১৯৯০ এর দশকে ভারতীয় ক্রিকেট দলে এমন অনেক খেলোয়াড় ছিলেন যারা তাদের ক্যারিয়ারকে এমন পর্যায়ে নিয়ে গিয়েছিলেন যা নিয়ে আজও আলোচনা করা হয়। হোক সে সচিন তেন্ডুলকর, আজহার, অজয় ​​জাদেজা, অজিত আগরকার বা অনিল কুম্বলের মতো খেলোয়াড়। এই খেলোয়াড়রা এমন ছিলেন যে তারা ৯০-এর দশকে পা রাখেন এবং ভারতীয় দলের একজন গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড় হয়ে ওঠেন। কিন্তু এই সব ছাড়াও, এই দশকে আরও কিছু খেলোয়াড় ছিল যারা এই খেলোয়াড়দের সময়কালে অভিষেক করেছিলেন কিন্তু ক্রিকেট ইতিহাসে তাদের নাম আজ হারিয়ে যায়। সলিল আঙ্কোলা সেই রকমই একজন ক্রিকেটার। তিনি সচিন তেন্ডুলকরের সঙ্গে তার আন্তর্জাতিক কেরিয়ারের অভিষেক করেছিলেন। কিন্তু তারপরে সবটাই অন্ধকারে চলে যায়। প্রাক্তন ভারতীয় ফাস্ট বোলার তার ক্যারিয়ার সম্পর্কে ক্রিকবাজের সঙ্গে কথা বলেছেন। সলিল আঙ্কোলা জানিয়েছেন কীভাবে তিনি তার ক্যারিয়ারে সফল হতে পারেননি। 

আরও পড়ুন… ভারতের বিরুদ্ধে দক্ষিণ আফ্রিকার হারের কারণ কী? উত্তর দিলেন কেশব মহারাজ

কথোপকথনে সময়ে সলিল আঙ্কোলা বলেন, ‘এক সময় আমি ভারতীয় দল থেকে বাদ পড়েছিলাম এবং একই সময়ে আমি ভারত এ দলে নির্বাচিত হয়েছিলাম। কিন্তু সেখানে আমাকে ম্যাচ খেলার জন্য নয়, পানীয় নিয়ে যাওয়ার জন্য রাখা হয়েছিল।’ আঙ্কোলা বলেন, ‘২০০১ সালের পর আমি ক্রিকেট থেকে পুরোপুরি দূরে ছিলাম। এমন কি ক্রিকেট দেখাও ছেড়ে দিয়েছিলাম একই বছর, আমি একটি ভুল করেছিলাম যা নিয়ে আমি আজ পর্যন্ত অনুতপ্ত।’ প্রাক্তন এই ক্রিকেটার বলেন, ‘ওই সময় আমাকে সনির পক্ষ থেকে ক্রিকেট সংক্রান্ত চাকরির প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল, যা আমি ফিরিয়ে দিয়েছিলাম। আমি জানি না কেন আমি সেই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছিলাম। আমি অবশ্যই একটি ভুল সিদ্ধান্ত নিয়েছি যার জন্য আমি এখনও অনুতপ্ত।’ 

আরও পড়ুন… ভারতের বিরুদ্ধে দক্ষিণ আফ্রিকার হারের কারণ কী? উত্তর দিলেন কেশব মহারাজ

২০১০ সালে সলিল আঙ্কোলা তার ব্যক্তিগত জীবনেও খুব বিরক্ত ছিলেন। প্রকৃতপক্ষে, একই বছরে, তিনি তার স্ত্রী এবং সন্তানের থেকে বিচ্ছিন্ন হয়েছিলেন। আঙ্কোলা এই ধাক্কা সহ্য করতে না পেরে মদ্যপানে আসক্ত হয়ে পড়েন। মদের নেশা থেকে সরে আসতে আরও একবার ক্রিকেটকে বেছে নিলেন আঙ্কোলা। এই কারণেই গত বছর তিনি মুম্বইয়ের প্রধান নির্বাচকের পদ দখল করেছিলেন। এ প্রসঙ্গে প্রাক্তন এই ক্রিকেটার বলেন, ‘আমার বয়স তখন প্রায় ৫২ বছর, আপনি ৫০ পেরিয়ে গেলে আপনার ধারণা বদলে যায়। আমি জানি না কীভাবে এবং কেন, এটা ঘটেছে। আমি সত্যিই ক্রিকেটকে মিস করছিলাম।’

বন্ধ করুন